বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০৫:১৩ অপরাহ্ন

অস্ত্র মামলায় জি কে শামীমের ৭ দেহরক্ষী কারাগারে

অস্ত্র মামলায় জি কে শামীমের ৭ দেহরক্ষী কারাগারে


শেয়ার বোতাম এখানে

প্রতিদিন ডেস্ক:
অস্ত্র মামলায় চার দিনের রিমান্ড শেষে এস এম গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি কে শামীমের সাত দেহরক্ষীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। আজ বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর হাকিম হাবিবুর রহমান চৌধুরী এ আদেশ দেন।

আসামি পক্ষের আইনজীবী আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর আবদুর রহমান হাওলাদার আাদালতে জামিনের আবেদন করেন। তবে বিচারক এ আইনজীবীকে আগামী রোববার জামিন শুনানি করতে অনুরোধ করলে তিনি রাজী হওয়ায় বিচারক বোরবার জামিন আবেদনের শুনানির দিন ধার্য করেন। পরে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক।

কারাগারে যাওয়া সাত দেহরক্ষী হলেন, মো. দেলোয়ার হোসেন, মো. মুরাদ হোসেন, মো.জাহিদুল ইসালাম, মো.শহিদুল ইসলাম, মো.কামাল হোসেন, মো. সামসাদ হোসেন ও মো. আমিনুল ইসলাম।

এদিকে একই ঘটনায় দায়ের করা মানিলন্ডারিং আইনের মামলায় সাত দেহরক্ষীকে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত। একইদিন ঢাকা মহানগর হাকিম দেবদাস চন্দ্র অধিকারী শুনানি শেষে গ্রেপ্তার দেখানোর এ আদেশ দেন।

রাষ্ট্রপক্ষে সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর আজাদ রহমান গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন।

গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদনে মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা উল্লেখ করেন, গত ২০ সেপ্টেম্বর গুলশানের নিকেতনে নিজ কার্যালয় থেকে রিমান্ডে থাকা আসামি জি কে শামীমসহ সাত দেহরক্ষীকে আটকের সময় নগদ এক কোটি ৮১ লাখ টাকা, নয় হাজার ইউএস ডলার, ৭৫২ সিঙ্গাপুর ডলার, জি কে শামীমের মায়ের নামে ট্রাস্ট ব্যাংক নারায়ণগঞ্জ শাখায় ২৫ কোটি টাকার করে চারটি এবং ২৭ লাখ ৬০ হাজার টাকার একটি ও শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক মহাখালী শাখায় ১০ কোটি টাকা করে চারটি এফডিআর, শামীমের নামীয় টাস্ট ব্যাংক কেরানীগঞ্জ শাখায় ২৫ কোটি টাকার একটি এফডিআর জব্দ করা হয়। এ ছাড়া ওই সময় ৩৪টি ব্যাংক একাউন্টের চেকবইও উদ্ধার হয়।

আসামিদের গ্রেপ্তারের সময় বিপুল পরিমাণ অর্থের উৎস সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলে তারা কোনো সদুত্তর প্রদান বা বৈধ কোনো কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। তারা উপস্থিত সাক্ষীদের সামনে এ বিপুল পরিমাণ অর্থ বিদেশে পাচার করার জন্য মজুদ রেখেছিল বলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেদের সামনে স্বীকার করায় তাদের বিরুদ্ধে নায়েব সুবেদার মো. মিজানুর রহমান মামলাটি দায়ের করেন। তাই এজাহারনামীয় এ আসামিদের মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো প্রয়োজন।

উল্লেখ্য, মামলাটিতে জি কে শামীমও আসামি। তাকেও পরবর্তীতে গ্রেপ্তার দেখানো হবে বলে জানা গেছে।

অন্যদিকে অস্ত্র মামলায় পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) পরিদর্শক ফজলুল হক সাত দেহরক্ষীকে আদালতে হাজির করে ফেরত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, চার দিনের রিমান্ডে নিয়ে আসামিদের মামলার ঘটনা সংক্রান্তে সুনিবিড়ভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা মামলা সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রদান করেছেন। তাদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যাদি মামলার তদন্তকার্যে যথেষ্ট সহায়ক হবে। তাদের দেওয়া তথ্যাদি ও নাম-ঠিকানা যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। আসামিরা জামিনে মুক্তি পেলে পলাতক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এর আগে গত ২১ সেপ্টেম্বর এ সাত আসামির চার দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। ওই দিন জি কে শামীমের অস্ত্র ও মাদকের দুটি মামলায় পাঁচ দিন করে ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।



শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin