বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ০৪:৩৫ পূর্বাহ্ন


আজ ১৫ ই ডিসেম্বর : সিলেট বিভাগ বাস্তবায়নে বিশাল জনসভা হয় বিশ্বনাথে

আজ ১৫ ই ডিসেম্বর : সিলেট বিভাগ বাস্তবায়নে বিশাল জনসভা হয় বিশ্বনাথে


শেয়ার বোতাম এখানে

বিশেষ প্রতিনিধি
বিশ্বনাথে ১৯৯৩ সালের এই দিনে সিলেট বিভাগ বাস্তবায়নের দাবীতে বিশ্বনাথ বাসষ্ট্যান্ডে অনুষ্ঠিত হয়ে ছিল এক বিশাল জনসভা। যা পরবর্তীতে সেই জনসভা জনসমুদ্রে রূপান্তরিত হয়।

সে দিন ছাত্র জনতাসহ বিশ্বনাথে সর্ব স্তরের মানুষ সিলেট বিভাগ বাস্তবায়নের আন্দোলনকে বেগবান ও গতিশীল করার জন্য সিলেট বিভাগ বাস্তবায়ন পরিষদ ও ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ গঠন করা হয়।

জানা গেছে, মোঃ ইস্কন্দর আলীকে আহবায়ক, নুরুল ইসলাম ও তজমুল আলীকে যুগ্ম আহবায়ক করে বিভাগ বাস্তবায়ন পরিষদ ও মোঃ আলাউদ্দিনকে আহবায়ক, তোফায়েল আহমদ ও জসিম উদ্দিন জুনেদকে যুগ্ম আহবায়ক ও ছাত্রলীগ নেতা তপন দাশকে সদস্য সচিব ও ছাত্রনেতা মৌলানা আশরাফুর রহমান, শামীম আহমদ, ফারুক আহমদ, সায়েক আহমদ, মোক্তাদির হোসেন শামীম, আব্দুল ওদুদ, আকদ্দুছ আলীকে সদস্য করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ বিশ্বনাথ থানা শাখা গঠন করা হয়। সর্ব দলীয় ছাত্র সমাজের আন্দোলন ও বৃহত্তর সিলেটের সর্ব স্তরের মানুষের আন্দোলন ও সংগ্রামের ফলে তৎকালীন সরকার সিলেট বিভাগ ঘোষণা করতে বাধ্য হয়।

সিলেট বিভাগ বাস্তবায়ন ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ বিশ্বনাথ থানা শাখার সাবেক সদস্য সচিব ও বিশ্বনাথ ডিগ্রী কলেজ ছাত্র কল্যাণ পরিষদেও সাবেক সাধারণ সম্পাদক, উপজেলা আওয়ামীলীগের কার্য নির্বাহী সংসদের সদস্য সাবেক ছাত্রনেতা তপন দাশের কাছে বিভাগ আন্দোলন সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন- শুধু বিভাগ আন্দোলন নয় আমরা বিশ্বনাথে পৌরসভা বাস্তবায়ন, গ্যাস সংযোগ চালু, বিশ্বনাথ কলেজ জাতীয়করণ, বিশ্বনাথের বিভিন্ন রাস্তাঘাট সংস্কার ও মেরামতের দাবীতে ছাত্র গণউন্নয়ন পরিষদের উদ্যোগে ১৯৯২ সালের ২৪ ডিসেম্বর সকাল সন্ধ্যা হরতালকে সামনে রেখে ১৯৯২ সালের ৩০ নভেম্বর ছাত্র গণউন্নয়ন পরিষদের আহবায়ক জালাল উদ্দিন জালাল চেয়ারম্যান এর সভাপতিত্বে ও আমার পরিচালনায় হরতালসহ বিভিন্ন কর্মসুচি গ্রহণ করি। যা পরবর্তী কর্মসুচি ১ ডিসেম্বর ১৯৯২ সালে দৈনিক সিলেটের ডাকে প্রকাশিত হয়। ১৯৯২ সালের ২৪ ডিসেম্বর বিশ্বনাথের মানুষ স্বতঃস্ফুর্তভাবে দাবী আদায়ের লক্ষ্যে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালন করে।

তিনি বলেন- বিশ্বনাথের বিভিন্ন স্থানীয় সমস্যা সমাধানে দল মত নির্বিশেষে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। স্থানীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌর প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ক্ষমতাশীল দল আওয়ামীলীগ ও সুশীল সমাজের অংশ গ্রহণে একটি উপজেলাকে আধুনিক যুগপোযোগী নাগরিক সুযোগ-সুবিধা ও জনগনের সকল ন্যায্য অধিকার বাস্তবায়ন সম্ভব।


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin