শনিবার, ২০ Jul ২০২৪, ০৩:৫০ পূর্বাহ্ন


উভয় সংকট: শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বেতন নিয়ে কিছু কথা:

উভয় সংকট: শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বেতন নিয়ে কিছু কথা:


শেয়ার বোতাম এখানে

তাওহীদুল ইসলাম:
অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শিক্ষার্থীদের বেতনের জন্য ম্যাসেজ/ ফোন/ নোটিশ দেয়া হচ্ছে। বিশেষ করে প্রাইভেট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো থেকে। এ বিষয়টিকে ভালো চোখে দেখছেন না অভিভাবক মহল। কারণ,করোনার মহামারি। মানুষ ঘরবন্দি। বন্দি অায়ের পথ। এটা অবশ্যই যুক্তিসংগত।

কিন্তু কিছু কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অাছে, যেগুলো সত্যিকার অর্থে লাভজনক নয়, তারাও মাসে তুলে মাসে নেয়,এমন অবস্থা। এসব প্রতিষ্ঠানে অনেক শিক্ষক রয়েছেন যাদেরও পথচলার একমাত্র মাধ্যম তাদের সামান্য সম্মানি- অার সুযোগ থাকলে প্রাইভেট পড়ানির সম্মানি। করোনার কারণে তাদেরও এই দুটি পথ বন্ধ। তাদেরও অনেক এ সময়ে অসহায়।

শার্ট- প্যান্ট অার ইন করে চলাফেরার কারণে তারা কারো কাছে না পারছে হাত পাততে অার না পারছে সইতে।

অামাদেরকে তাদেরও কথা চিন্তা করতে হবে। যদিও অামরা অনেকেই মনে করি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মানেই অায়ের সুবর্ণ সুযোগ। কিন্তু যারা প্রতিষ্ঠান করেছে অার পরিচালনা করতেছে তারাই জানে কত ধানে কত চাল। কথায় অাছে না, হাতি খায় যেমন,লাদেও তেমন।

তবে, কিছু প্রতিষ্ঠান অাছে যারা অত্যন্ত ব্যবসা নির্ভর,তারা শিক্ষা প্রতিষ্টান দিয়ে অনেক অর্থ বিত্তের মালিক হচ্ছেন। এসব প্রতিষ্ঠানে অাবার দরিদ্র পরিবারের সন্তান খুব কমই লেখাপড়া করে থাকেন,যদি অামি ভুল না বলে থাকি। অামরা তো দেখি,যত প্রাইভেট প্রতিষ্ঠান নামডাকি ,সে সব প্রতিষ্ঠানে

পড়ালেখার খরছ অনেক বেশি অার সেখানে তারাই পড়ে যাদের বেশিরভাগের রয়েছে প্রাইভেট গাড়ী, না হয় রিজার্ভ গাড়ী। প্রতিষ্ঠান ছুটির সাথে সাথে ক্যাম্পাসের সামনে লাইন ধরে সারিবদ্ধ গাড়ীয়ে। সে সব প্রতিষ্ঠানের কোন অভিভাবক অামার মনে হয় না মধ্যবিত্ত পরিবারের। তাহলে তাদের বেতন দিতে সমস্যা হওয়ারও কথা না।

অাবার,এসব প্রতিষ্ঠান যেভাবে অায় করে সে মোতাবেক করোনাকালীন এমন সময়ে বেতন মওকুফ করে দৃষ্টান্তও স্থাপন করতে পারতো। তাই, অাসুন, অামরা সবাই সবার কথা চিন্তা করি,অারো মানবিক হই। কারো বেতন দেয়া না দেয়ার অাগে চিন্তা করি, সেই মানুষটি কি অামার এ বেতনের উপর নির্ভরশীল? বেতন নেয়ার অাগেও চিন্তা করি, অামি কি না নিলে চলতে পারবো না, যদি পারি তবে এমন সময় উদার হওয়াই মহত্তের লক্ষণ।


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin