শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ০৮:৩৭ পূর্বাহ্ন

এইচ বি রিতা’র শোকের কবিতা

এইচ বি রিতা’র শোকের কবিতা


শেয়ার বোতাম এখানে
  • 15
    Shares

সাহিত্য ডেস্ক:

নিউইয়র্কের লেখক এইচ বি রিতা’র একগুচ্ছ শোকের কবিতা প্রকাশ করা হল।

‘‘নিচে তা পাঠকের জন্য তুলে ধরা ’’

 

আ্যান নুয়্যেন

আ্যান নুয়্যেন,
তোমাকে বলা হয়নি এবারের স্প্রিং এর কথা
ওই যে তুমি, আমি
সাইডওয়াকে পড়ে থাকা প্যালমেইট, সিনুয়্যেটে,
কুড়িয়ে নিতাম জামা ভরে
ট্রিপারটাইট ছিল তোমার ভীষণ প্রিয়
স্কুল ব্যাকইয়ার্ডে যখন ওরা খেলছিল,
তুমি-আমি কুড়াচ্ছিলাম ট্রিপারটাইট ; জিপলড ভর্তি করে
তুমি বলেছিলে,
রিটা! ওই ওইল ম্যাক এ ডিফারেন্ট ডোর দ্যান আদার্স!
আ্যন নুয়্যেন! তোমাকে বলা হয়নি!
এবারের পুরো স্প্রিংয়ে তোমার প্রিয় পাতাগুলো পড়ে ছিল রাস্তায়
বাতাস ওদের সরাতে পারেনি, আসলে বাতাসও তেমন ছিলনা সেদিন
কি আশ্চর্য্য!
বাতাসও সেদিন বুজে গিয়েছিল হয়তো
নিঃশ্বাস যাতনায় তুমি একা; লড়ছো
তোমার প্রিয় ট্রিপারটাইট, প্যালমেইট, সিনুয়্যেটে
তারাও নড়েনি!
তোমার বিদায় বেলা, ওরাও কাঁদছিল।
(মে ০১, ২০২০)

 

‘‘আরো পড়ুন’’: ‘এইচ বি রিতার একগুচ্ছ দ্রোহের কবিতা’

 

বুক ফুটো করে চলে গেলে

আ্যান নুয়্যেন,
যেতে যেতে তুমি কিছু বলতে চেয়েছিলে কি?
এই যেমন-
স্প্রিং এর পাতা কুড়োনোর গল্প কিংবা
অসমাপ্ত চিত্রশিল্পের কথা?
কিংবা বলতে চেয়েছিলে কি,
বুকে আজ নিঃশ্বাসের বড্ড অভাব?
তুমি চলে গেলে.. কেনই বা গেলে!
তুমি কি জানতেনা,
তুমি ছাড়া আজ নিউইয়র্কের আকাশে চাঁদ উঠেনা?

স্মৃতির এ্যালবাম হাতড়ে আজ কত কি দেখি
দেখি, তুমি-আমি-আমারা প্লাস্টিকে মুড়ানো কত কি!
তোমার সেই প্রাণোচ্ছল হাঁসি, আদুরে ছোঁয়া
সবই ঠিক আছে; নেই শুধু প্রাণের স্পন্দন।
আজ শুধূ জ্বানালার পাশে দাঁড়িয়ে
হলদে পাতাগুলোকে বৃক্ষ তলে ঝড়ে পড়তে দেখি
দেখি, সবুজগুলো কেমন বুড়িয়ে যাচ্ছে।
যতদূর চোখ যায়, তোমাকে খুঁজি
তুমি কোথাও নেই;
শুধু শীতের বারান্দা জুড়ে শীর্ণ রোদ বেহায়া আলাপ জুড়ে যায়।
(মে ০১, ২০২০)

 

মাই বয় ইজ হাঙরি

পিতা নির্বাক পুত্র শোকে
অবোঝ শিশুটির মত কাঁদেন, দু’হাতে মুখ ঢেকে
জননী জানেনা সন্তানকে ফিরিয়ে আমার উপায়
জল পতনের শব্দে কেবল বুকের ভিতর পার ভাঙ্গে
ভয়ানক শোকে তখনো ডাকেন তিনি,
মারজান! মারজান! মারজান!
আমার নাড়ি ছেড়া ধন! আমার জান!
রোজ ভাঙ্গছে, কিছু একটা ভাঙ্গছে
ভেঙ্গে পরছে পিতার স্বপ্ন; আকাশ ফাটা ক্রন্দনে
তলপেট থেকে নিচে পুরোটা, জরায়ু সমেত হ্নদপিন্ড ছিঁড়ে
ভেঙ্গে পরছে হুটহাট বিশ্বাসের জন্মলিপি
জলদশ্যূর লুন্ঠিত আলিঙ্গনে প্রতিশ্রুতিতে গড়া নাড়ির বন্ধন
ক্ষরায় চৌচির জননীর বুক, ভেঙ্গে পরছে সব
ভেঙ্গে পরছে সব।
এ কি ভয়ানক পৃথিবী হুংকারে আজ
ফাটিয়ে দিচ্ছে জননীর বুক,
স্পন্দনহীন বেদনায় প্রিয় পিতার মুখ
জননীর চিৎকারে পুড়ে যাচ্ছে পৃথিবী,
নিশ্চুপ তখনো সর্বজ্ঞাতা কান্ডারী
বিধ্বস্ত জননী তখনো বলেন,
মাই বয় ইজ হাঙরি! মাই বয় ইজ হাঙরি।
(অগাস্ট,১৪, ২০২০)

 

 

আলোর কবি আলেয়া

 

সরোজ আলোকিনী আলেয়া
কাব্যিক মাত্রায় ফুঁড়ে নেয় যে নঁকশী কাঁথা
সেও জানে বস্তুগত ইন্দ্রিয়গোচরে কেমন;
সামলিয়ে নিতে হয় দেহের উত্তাপ।
কঠোর নারী সে, লড়াকু শ্বাশত
প্রেম প্রেম খেলা জানে সে,
তবু সংগোপনে পাশ কেটে যায়
আকাশ তলে প্রবল বর্ষণে ভিজবে বলে;
গৃহবন্দিনী কপাট খুলে দেয় নিরালায়।
রোষাগ্নি স্ফুলিংগে চেতনা জাগরণে,
বধীর কর্ণরন্ধ্রে বার্তা পৌছে দিত যে অনন্ত বাজ;
আলেয়া
সেও চলে যায় একা ঘরে;
একাকীত্বকে সঙ্গী করে।
অথচ, জানতো সে
একাকীত্বের গোপন ঘরে হঠাৎ ভূমিকম্প হলে
কতটা উত্তাপে বুক জ্বলে যায়
আলোর কবি আলেয়া,
জানে সে সূত্র যদি না মিলে;
পরন্ত বয়সকে ছেড়ে দিতে হয়।
(অগাস্ট, ০৬, ২০২০)

 

 

নেইয়েন

হায়মোক্রোম্যাটোসিস দখলে নিল যে প্রাণ;
অনাধিকারে
অবশেষে সেও ছুঁয়ে গেল মায়ের হাত,
মিথ্যে মমতায় চরম শোকে।
কেমেরায় বন্দি জীবন
তবু দৃশ্যমান পর্দায় জাংজি সাং
জন্মদাত্রীর ঋণশোধে গেয়ে গেল গান,
সিউইড স্যুপে।
প্রিয় এক টুকরো মধুর কেইক হাতে
আঙ্গুলের সাথে গাল স্পর্শে,
পরখ করে দেখে নাড়ির বাঁধন।
সে বলে, বিদায় মা!
আমি তোমাকে অনেকদিন স্মরণে রাখবো।
ভালোবাসি তোমাকে।
বুক পুড়ে যায় তাঁর ভার্চুয়াল রিয়ালিটির বদান্যতায়
‘মিটিং ইউ’ সত্য-মিথ্যার আবরণে, জেনেও
ব্যথাতুর হ্নদয়ে অন্ধ চোখে দেখে নেয় সে;
প্রজাপতির ডানায় উড়ন্ত মৃত নেইয়েনকে।
(জানুয়ারি, ২০, ২০২১)

 

 

বিদায় ২০২০

 

ইতিহাসের এক ভয়ানক খন্ড চিত্র তুমি,
দুই হাজার বিশ
কাঁদিয়েছো মানুষ-পশু, পৃথিবী এক কাতারে
কেঁদেছে অসহায় নারী-পুরুষ
পাশের ঘরে শেষ সম্বলটুকু বাক্সবন্ধি করে
পিতৃবিয়োগে সন্তান, জননীর বুক ফুটো করে
আকাশও কেঁদেছিল লাশের স্তুপ বুকে
কত কি কাঁদালে তুমি
নির্ভয়ে, নিষ্ঠুরতা নিয়ে ব্ল্যাক ডেথ্ খুঁজো
উস্কাতে চাও চতুর্দশ শতাব্দীর নির্মমতা
আর কতটুকু ধ্বংস হলে শান্ত হবে তুমি
কিসের বিনিময়ে ক্ষমা দিবে
দুই হাজার বিশ!
ঢের হয়েছে সহস্রাব্দের খেলা
এবার বিদায়
ধর্ম-বিজ্ঞান জ্ঞানীদের মতই বিশ্বাস রেখে
এবার তোমাকে বিদায়, দুই হাজার বিশ
স্বাগতমে একুশ; নতুন প্রত্যয়ে
নব সূচনায় নতুন আকাঙ্খায়।
(ডিসেম্বর, ২৫, ২০২০)

 

 

‘লেখিকার আরও কবিতা পড়তে  নিচের লিংকে ক্লিক করুন’’

(এইচ বি রিতা, নিউইয়র্ক

লেখকসাংবাদিককলামিষ্টকবিশিক্ষক)



শেয়ার বোতাম এখানে
  • 15
    Shares

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin