শনিবার, ১৫ Jun ২০২৪, ০৬:৪৮ পূর্বাহ্ন


এই পরিবারে জন্ম হওয়াটাই ভুল হয়েছে: সেতুমন্ত্রীর ছোট ভাই

এই পরিবারে জন্ম হওয়াটাই ভুল হয়েছে: সেতুমন্ত্রীর ছোট ভাই


শেয়ার বোতাম এখানে

শুভ প্রতিদিন ডেস্ক:

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদের প্রার্থিতা নিয়ে দ্বন্দ্বে বড় ভাই আবদুল কাদের মির্জাকে ইঙ্গিত করে তার ছোট ভাই ও উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী শাহাদাত হোসেন বলেছেন, আমার মনে হয়, এই পরিবারের জন্ম হওয়াটাই আমার ভুল হয়েছে। আমি যদি এটা জানতাম, তাহলে আমার মাকে বলতাম, আমাকে বিষ খাইয়ে মেরে ফেলো।

শুক্রবার রাতে কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাটে নির্বাচনী প্রচারণার সময় সাংবাদিকদের এসব বলেন শাহাদাত হোসেন।শাহাদাত হোসেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই। তার আরেক ভাই আবদুল কাদের মির্জা কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বসুরহাট পৌরসভার মেয়র।

এবারের উপজেলা নির্বাচনে শাহাদাতের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী গোলাম শরীফ চৌধুরীর আনারস মার্কার পক্ষে ভোটের মাঠে নেমেছেন আবদুল কাদের মির্জা। মাঠে নেমে গত ১৫ মে বসুরহাট পৌরসভার মিলনায়তনে তার পছন্দের চেয়ারম্যান প্রার্থী গোলাম শরীফ চৌধুরীর এক মতবিনিময় সভায় ছোট ভাই শাহাদাত হোসেনকে কুলাঙ্গার আখ্যা দিয়ে কাদের মির্জা বলেন, শাহাদাত তার ভাই নন।

এ প্রসঙ্গে শাহাদাত হোসেন বলেন, আমি জন্ম থেকে তাদের সহযোগিতা করে আসছি। কিন্তু তারা আমাকে কখনো সহযোগিতা করেনি। আমার মনে হয়, এই পরিবারের জন্ম হওয়াটাই আমার ভুল হয়েছে। আমি যদি এটা জানতাম, তাহলে আমার মাকে বলতাম আমাকে বিষ খাইয়ে মেরে ফেলো।

আরও পড়ুন: আমাদের প্রার্থীকে ভোট দিলে আইসেন, নইলে বাড়িতে ঘুমাইয়েন: কাদের মির্জা

বড় ভাই ওবায়দুল কাদের ও আবদুল কাদের মির্জাকে ইঙ্গিত করে শাহাদাত আরও বলেন, তারা দুজনই দাবি করে, তারা দুজন ভাই। আমরা ভাই না। শিয়াল-কুকুর। আমরা কুলাঙ্গার। বলে কীসের ভাই? এই বিচার কার কাছে দেব আমি? প্রশাসন তো আমার বিরুদ্ধে। তারা সকাল-বিকেল আমার লোকদের নির্যাতন করছে। আমার একটা লোক রাস্তা দিয়ে হাঁটতে পারে না, তাকে ধরে নিয়ে বলে তোমার বিরুদ্ধে মামলা আছে। এখানে আওয়ামী লীগের লোকদেরও বিএনপি-জামায়াত বলে এখন নির্যাতন করা হয়েছে।

অন্যদিকে বৃহস্পতিবার (২৩ মে) সুপ্রিম কোর্টের এক রায়ে উপজেলা নির্বাচনে নিজের প্রার্থিতা ফেরত পান শাহাদাত হোসেন। শাহাদাত হোসেন বলেন, এটি আমাদের প্রথম বিজয়; জনগণ যদি ভোট দিতে পারে ২৯ মে চূড়ান্ত বিজয় হবে।গত ৫টি নির্বাচন কোম্পানীগঞ্জে সিজারে হয়েছে। একটি নির্বাচনও হয়নি। এবারও তারা তা চাইছে।

এসময় তিনি অভিযোগ করে বলেন, প্রতিপক্ষ প্রার্থী নির্বাচনী মাঠে হেলমেট বাহিনী নামিয়ে দিয়েছেন। সব সদস্য বসুরহাটসহ গোটা কোম্পানীগঞ্জে তার (শাহাদাত) সাধারণ কর্মী ও ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে নানা হুমকি দিচ্ছেন। এ কারণে সুস্থ নির্বাচন নিয়ে সন্দেহ রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে শাহাদাত সাংবাদিকদের বলেন, আপনারা বসুরহাটে ঘুরে দেখুন, তাদের কোনো ভোট আছে কি না? তারা হেলমেট বাহিনীর লোকদের দিয়ে বয়স্ক লোকদের হুমকি দিচ্ছে; কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যদের দিয়ে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। আমি অসহায় মানুষ, আমার ওপরে আল্লাহ আছে, আর নিচে জনগণ আছে। ২৯ তারিখে যদি সুষ্ঠু নির্বাচন করতে পারি, ইনশা আল্লাহ আমি বিপুল ভোটে জয়লাভ করব।

তিনি আরও বলেন, প্রশাসন যন্ত্রকে কাজে লাগিয়ে বারবার আমাকে নির্বাচন থেকে বহিষ্কার করছে, মনোনয়নপত্র বাতিল করছে। তাদের তাণ্ডবে আমার একটা কর্মী কোম্পানীগঞ্জে ঘুমাতে পারছে না। তারা হেলমেট বাহিনীর পাশাপাশি হাতুড়ি বাহিনীও বাহিনীও তৈরি করেছে। এদের নির্যাতন থেকে বাঁচতে আমার কর্মীরা বাড়ি থেকে ৭-৮ কিলোমিটার দুরে গিয়ে ঘুমায়। আমার বাড়িতে কাজের লোক পর্যন্ত পাই না। তাদের ভয়ে সবাই পালিয়ে গেছে।

প্রসঙ্গত; আগামী ২৯ মে তৃতীয় ধাপে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ, সদর ও বেগমগঞ্জ উপজেলায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। কোম্পানীগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে সেতুমন্ত্রীর ভাইসহ চারজন প্রার্থী হয়েছেন।

বাকি তিন প্রার্থী হলেন- উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি ও ঢাকার ব্যবসায়ী গোলাম শরীফ চৌধুরী পিপুল (আনারস), সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান বাদল (দোয়াত কলম) এবং যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী ওমর আলী রাজ (মোটর সাইকেল)।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ জসিম উদ্দিন (চশমা), মধ্যপ্রাচ্য প্রবাসী মামুন হোসেন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী পারভীন আক্তার (ফুটবল), ফাতেমা বেগম পারুল (প্রজাপতি)।


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin