বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ০২:০৩ অপরাহ্ন


এসএসসি ২০০৫ ও ২০০৭ সালের এইচএসসি ব্যাচের অর্ধশত শিক্ষার্থীর ইফতার মাহফিল

এসএসসি ২০০৫ ও ২০০৭ সালের এইচএসসি ব্যাচের অর্ধশত শিক্ষার্থীর ইফতার মাহফিল


শেয়ার বোতাম এখানে

স্কুল আর কলেজ জীবনের পর র্দীঘ দিনের বিরতির একটা সময় যদি পুরনো বন্ধুদের সাথে একত্রিত হওয়ার আনন্দ যেন বাদভাঙ্গে। মনে হয় সেই স্কুলের মাঠ আর কলেজ প্রাঙ্গনের কথা। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সিলেটের এক রেস্তোরায় ইফতারের জন্য এক হয়ে ছিলেন ২০০৫ সালের এসএসসি ও ২০০৭ সালের এইচএসসির অর্ধশতর বেশি সহপাঠিরা। র্দীঘ দিন পর একসাথে এক ব্যাচের বন্ধুদের মিলনে আনন্দ ছিলো আকাশ ছোঁয়া। শিক্ষা জীবন শেষে অনেকই আছেন নিজেস্ব পেশায় কেউ শিক্ষ, ব্যবসায়ী কেউ চিকিৎসক, প্রশাসনিক কর্মকর্তা, সাংবাদিক, শিল্পী, ইঞ্জিনিয়ার এক এক জন এক এক পেশায়। আবার কেউ কেউ আবার আছেন সংসারে ব্যস্থ। বহুদিন পর দেখা সহপার্ঠিকে বুকে নিযে কেমন আছিস বলাটার মধ্যে খুশি যেমন থাকে তেমনি তার মধ্যে থাকে স্কুল জীবন হারিয়ে ফেলার কষ্ট বিরাজ করে। মনে হয় সেই চিৎকার চেঁচামেচি, শ্রেণি কক্ষের দুষ্টুমী-আর মাঠের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্ত পযন্ত ছূটে যাওয়ার কথা। ইফতারে আসা এক বন্ধু বলছিলেন, স্কুল থেকে যে দিন শেষ বিদায় নেই সেই দিন অনেক কেদেঁ ছিলাম খুব কষ্ট হচ্ছিল, এখন প্রায়ই মনে হয় ফিরে যাই স্কুল অথবা সেই ফেলা আসা কলেজ জীবনে। তাই আজ এই ব্যস্থ জীবনে মান্নাদের গানের মত বলতে হয় কফি হাউজের সেই আড্ডাটা আজ আর নেই। স্কুল আর কলেজের বান্দার সেই সময়টা আর নেই।
স্কুল আর কলেজের স্মৃতিকথা মনে করে হুমায়রা আহমেদ বলেন, এখন প্রায়ই স্কুল-কলেজের সময়টা খুব মিস করি ঐ সময়টা মানুষের জীবনের জন্য র্স্বণযুগ থাকে। যখন হারিয়ে যায় তখনই তার মূল্য বোঝা যায়।
আরেক বন্ধু তামান্না মারিয়া জানান, শিক্ষা মানুষের জীবন তার জাতি এবং দেশকে উন্নত করে তাই শিক্ষা খুবই প্রয়োজন শত কষ্ট হলেও এটা অর্জন করতে হবে । আশা করি সবাই যেন সফল ভালো শিক্ষা অর্জন করতে পারেন।
বন্ধুদের সাথে ইফতারে যোগ দিতে আশা বন্ধু, আবু শাহেদ,সজিব চৌধুরী, নাসরিন বেগম, বিথী বিশ্বাস,আজিজ মুজতবা, হাসিব, মুর্শেদ, স্বর্ণা, কাওসার, হুসাইন, এস আই ফাহাদ, মীর মেহেদি রায়হান, সাব্বির আহমেদ, তাসনিম ফিহা জানান, ইফতারের জন্য স্কুল-কলেজ জীবনের বন্ধুদের সাথে দেখা করা আর কথা বলার সুযোগ যারা করেছেন তাদেরকে আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ দিতে চাই এটা খবই ভালো উদ্যাগ ছিলো।
ইফতারের আয়োজনে ছিলেন, নুরুল করিম মজলু, হুমায়রা আহমেদ হিমা, ইঞ্জিনিয়ার আরিফুর রহমান, আনিছুল হক, তামান্না মারিয়া, রুবেল আহমেদ কোয়াশা, হৃশি, হামিমসহ আরো অনেকে।
নুরুল করিম মজলু জানান, আমরা কয়েকজন বন্ধু চেয়ে ছিলাম যেন আমারা সকল বন্ধু একদিন এক সাথে হতে পারি নানা ব্যস্ততার কারনে একে অপরের সাথে দেখা হয় না তাই সবাইকে একতিত্র করার আমরা চেষ্টা করেছি। আমরা আগামীতেও এ চেষ্টা অব্যাহত রাখব। বিজ্ঞপ্তি


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin