বুধবার, ১২ মে ২০২১, ০২:১২ পূর্বাহ্ন

ওসমানীনগরে পল্লী বিদ্যুতের কর্মচারী করোনা আক্রান্ত : বিল নিয়ে বাড়ি বাড়ি যাচ্ছেন অন্য কর্মচারীরা

ওসমানীনগরে পল্লী বিদ্যুতের কর্মচারী করোনা আক্রান্ত : বিল নিয়ে বাড়ি বাড়ি যাচ্ছেন অন্য কর্মচারীরা


শেয়ার বোতাম এখানে

রনিক পাল, ওসমানীনগর:

সিলেটের ওসমানীনগরে খাশিকাপন পল্লী বিদ্যুতের  জোনাল অফিসের এক লাইন টেকনিশিয়ান করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর বিদুৎ বিল নিয়ে অফিসের কর্মচারীরা বাড়ি বাড়ি যাচ্ছেন। এতে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকিতে ওসমানীনগর।

শুক্রবার রাতে ই-মেইলের মাধ্যমে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে ওসমানী মেডিকেল কলেজের ল্যাব থেকে রিপোর্ট জানানো হয় খাশিকাপন জুনাল অফিসের লাইন টেকনিশিয়ানের করোনা পজেটিভ। শনিবার সকালে উপজেলার তাজপুর বাজারে ওই লাইন টেকনিশিয়ান যে ভবনে ভাড়া থাকতেন তা লকডাউন করা হয়েছে।

এদিকে, শনিবার সকালেই বিদ্যুৎ বিল নিয়ে বাড়ি বাড়ি যাচ্ছেন খাশিকাপন জোনাল অফিসের কর্মচারীরা। এমন অবস্থায় গ্রামে গ্রামে বিল নিয়ে গিয়ে নাজেহাল হতে হচ্ছে খাশিকাপন পল্লী বিদ্যুতের কর্মচারীদেরও।

একদিকে পল্লী বিদ্যুতের কর্মচারী করোনা আক্রান্তের খবর অন্যদিকে, করোনা মোকবেলায় সবাইকে ঘরে থাকার কথা থাকলেও বিল নিয়ে পল্লী বিদ্যুতের কর্মচারীরা বাড়ি বাড়ি যাওয়ায় অনেকই করোনা আতংকে রয়েছেন। করোনার দূর্যোগকালীন সময়ে বিদুৎ বিল পরিষোদ করার তাগিদও দেওয়া হচ্ছে। বিল পরিশোদ না কররে লাইন বিচ্ছিন্ন করার কথাও জানানো হচ্ছে বিদুৎ গ্রাহকদের। করোনার এই মহামারির সময় খাশিকাপ পল্লীবিদুতের এমন কর্মকান্ড গ্রাহকরা ক্ষোভ প্রকাশ করছেন।

একাধিক গ্রাহক অভিযোগ করে বলেন, গত দুই মাসের মধ্যে কোন মিটার রিডার কোন রিডং লিখে নেন নি। অথচ তারা ভূতুরে বিল বানিয়ে বাড়ি বাড়ি করোনার মধ্যে বাড়ি বাড়ি আসছেন সেটা সচেতনতা নয়। নিরাপদ দূরত্ব বাজয় রাখার কথা জানালেও তারা কোন নিরাপদ দূরত্ব বজায় না রেখেই মার্স্ক না পড়েই বাড়ি বাড়ি যাচ্ছেন যেটা মারাত্ব ঝুঁকি। ওসমানীনগর উপজেলায় সার্ব শেষ ৩জন করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মিটার রিডার বলেন, আমাদের কিছু করার নাই। আমাদের অফিস থেকে চাপ আছে তাই বিল নিয়ে বাড়ি বাড়ি যেতে হয়। করোনা ঝুঁকি নিয়েও উর্ধতন কতৃপক্ষের নির্দেশে আমরা বাড়ি বাড়ি বিদ্যুৎ বিল পৌছাতে হচ্ছে।

উপজেলার গোয়ালাবাজর এলাকার পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহক শুভ দেব নয়ন বলেন, খাশিকাপন পল্লী বিদ্যুতের একজন কর্মচারী করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর জানতে পেরেছি। তার মধ্যে অন্যকর্মচারীরা বাড়ি বাড়ি বিদুৎবিল নিয়ে আসায় এবং এক বাড়ি থেকে অন্য বাড়ি আসা যাওয়া মোটেই ভালো বিষয় নয়। আমরা বাড়ি থেকে বের হই না । তারা যদি সবার বাড়ি বাড়ি আসা যাওয়া করে তাহলে আমাদের ঘরে থেকে কি লাভ।

বালাগঞ্জ -ওসমানীনগর খাশিকাপন জুনাল অফিসের ডি জি এম (ডেপুটি জেনারেল ম্যানেরজার) ফয়েজ উল্লাহ বলেন, পল্লী বিদ্যুতের করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি আইসোলেশনে আছেন। প্রশাসনিক ভাবে রুগীর খুঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে। বিল পরিষদের কোন তাগিদ দেওয়া হচ্ছে না শুধু আমরা বাড়ি বাড়ি বিলের কপি পৌছে দিচ্ছি।

 



শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin