বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ১০:০৪ অপরাহ্ন


কমলগঞ্জের করোনাযুদ্ধে মাঠে সক্রিয় ইউএনও আশেকুল হক

কমলগঞ্জের করোনাযুদ্ধে মাঠে সক্রিয় ইউএনও আশেকুল হক


শেয়ার বোতাম এখানে

মোস্তাফিজুর রহমান, কমলগঞ্জ:

করোনার বিস্তার ঘটেছে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে। ইতিমধ্যে ৩ জন আক্রান্ত ও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে করোনার সংক্রমণ এড়াতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহন করেছে সরকার। সরকারের এ সব নির্দেশনা বাস্তবায়নে মাঠ পর্যায়ে কাজ করে যাচ্ছে স্থানীয় প্রশাসন। মাঠ পর্যায়ে করোনাযোদ্ধা হিসাবে কাজ করছেন প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

কমলগঞ্জে মধ্যমনি হয়ে করোনাযোদ্ধা হিসেবে মাঠে সক্রিয় হয়ে কান করে যাচ্ছেন ইউএনও আশেকুল হক।

উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি হিসাবে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নিরলস পরিশ্রম করে চলেছেন।

কমলগঞ্জবাসীর সেবায় বিরামহীন ছুটে চলছেন সারা উপজেলায়। তার আন্তরিক প্রচেষ্টা নজর কেড়েছে কমলগঞ্জবাসির। তিনি দিনরাত সমানতালে ছুটে চলছেন উপজেলার এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে।

করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে উপজেলার ১টি পৌরসভা ও ৯টি ইউনিয়নে মোটামুটি নিরবতা ও আতঙ্ক বিরাজ করছে। করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবেলায় দিনরাত মাঠে কাজ করে যাচ্ছেন ইউএনও আশেকুল হক। করোনা যুদ্ধে উপজেলার আনাচে-কানাচে বিরামহীন ভাবে ভোর হতে রাত্রি পর্যন্ত ছুটে চলছেন। জনগণকে সচেতন করা,হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা,দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখার পাশাপাশি নিন্ম আয়ের মানুষের খোঁজ-খবর রাখা ইত্যাদি নিশ্চিত করছেন জোড়ালোভাবে। তিনি হাটবাজারে সচেতনতামূলক প্রচারণা চালানো, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য বাজার হস্তান্তর করা এবং ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা এবং মানুষকে ঘরে রাখতে উপজেলার আনাচে কানাচে কাজ করে নজির স্থাপন করেছেন করোনাযোদ্ধা আশেকুল হক।

কর্মহীন হতদরিদ্র ও লকডাউনে আটকা মানুষের মাঝে বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্য সামগ্রী পৌছে দিচ্ছেন। ত্রান কার্যক্রমে করছেন তদারকি। করোনায় আক্রান্তদের পাশে দাড়িঁয়েছেন এবং বাকীদের নিরাপদ রাখতে করছেন লকডাউন। সেনাবাহিনীসহ আইনশৃঙ্গলা বাহিনীকে সঙ্গে প্রতিদিন করছেন অভিযান। নারায়নগঞ্জ ও ঢাকা ফেরত সংবাদ পেলেই নিচ্ছেন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা। কোন এলাকায় মুত্যুর সংবাদ পেলেই নমুনা সংগ্রহ করাচ্ছেন নিজে উপস্থিত থেকে। প্রতিদিনই উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় পরিস্থিতি মোকাবেলায় অভিযান পরিচালনা করছেন। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে প্রশাসনের বেঁধে দেওয়া নিয়ম-কানুনগুলো সঠিকভাবে পালন করা হচ্ছে কিনা সেই বিষয় নিশ্চিত করতে ছুটে চলেছেন সারা উপজেলায়। সেই সাথে হোটেল, চায়ের দোকানসহ অন্যান্য দোকান বন্ধ রাখার বিষয়ে প্রতি মুহুর্তে কঠোর নজরদারি করছেন।

করোনা যোদ্ধা উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশেকুল হক এর এমন কর্মকান্ডে উপজেলা বাসীর কাছে ভূয়সী প্রশংসা পাচ্ছেন। উপজেলাবাসীর জন্য তিনি আন্তরিকভাবে যে কাজ করে যাচ্ছেন, তা সত্যিই প্রশংসনীয় বলে মনে করছেন এলাকার সচেতনমহল। আন্তরিকতা থাকলে একজন ইউএনও একটি উপজেলার জন্য অনেক কিছু করতে পারেন, ইউএনও আশেকুল হক যেন তার’ই উদাহরণ।

 

করোনা যোদ্ধা ইউএনও কর্মকান্ড সম্পর্ক উপজেলার বিশিষ্ট নাগরিক আহমদ সিরাজ বলেন, নিষ্টাবান ও আন্তরিক মানুষ হিসাবে কমলগঞ্জবাসীর কাছে তিনি পরিচিত হয়েছেন ইতি মধ্যে। তবে এ করোনায় তিনি আপ্রান চেষ্টা করছেন জনসাধারণকে নিরাপদ রাখতে। দিনরাত কাজ করেছে চলেছেন।

উপজেলা প্রশাসনের নানা পদক্ষেপের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন কমলগঞ্জ থানা পুলিশ কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশেকুল হক বলেন, সকলের সহযোগিতা ছাড়া করোনা প্রতিরোধ করা সম্ভব না তাই সরকারি সকল নির্দেশনা মেনে চলার জন্য অনুরোধ করছি পাশাপাশি সকলকে নিজ গৃহে অবস্থান করার জন্য অনুরোধ করেন পাশাপাশি মাহে রমজান সকল ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদেরকে নিজ ঘরে তারাবীহ নামাজ আদায় করাসহ মসজিদে শুধু ১২ জন মুসল্লি সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে নামাজ আদায় করার অনুরোধ করাসহ সরকারের আইন মেনে চল জনসমাগম পরিহার করার আহ্বান জানান।


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin