বুধবার, ১২ মে ২০২১, ০১:০৬ পূর্বাহ্ন

কুলাউড়ায় দুই বিক্রয়কর্মী করোনা আক্রান্ত : তবুও খোলা ফার্মেসি

কুলাউড়ায় দুই বিক্রয়কর্মী করোনা আক্রান্ত : তবুও খোলা ফার্মেসি


শেয়ার বোতাম এখানে

স্টাফ রিপোর্ট:
মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় এক ফার্মেসীর দুইজন বিক্রয়কর্মী করোনা আক্রান্ত হওয়ার পরও লকডাউন করা হচ্ছে না। এতে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে সাধারণ মানুষের মধ্যে। অনেকেই ভয়ে ওই ফার্মেসী থেকে ঔষধ কেনা বন্ধ করে দিয়েছেন।

সাধারণ মানুষের দাবি, ফামের্সীর মালিক জনপ্রতিনিধি হওয়ায় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রেখেছেন। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে ফার্মেসীর অন্যান্য বিক্রয়কর্মীদের করোনা নেগেটিভ থাকায় সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক ফার্মেসীটি খোলা রাখা যাবে। আইন সবার জন্য সমান। জনপ্রতিনিধির ফার্মেসী হলেও তিনি আইনের ঊর্ধ্বে নয়।

জানা গেছে, গত ৩১ মে কুলাউড়ায় ৩জনের করোনা পজিটিভ আসে। এরমধ্যে পৌর শহরের মিতালী ফার্মেসীতে বিক্রয়কর্মী। আরো দুইদিন পর ওই ফার্মেসীর আরো একজনের করোনা শনাক্ত হয়।

প্রশাসনের পক্ষ থেকে একই সময়ে উপজেলায় করোনা আক্রান্তদের বাড়ি লকডাউন করা হলেও বন্ধ করা হয়নি মিতালি ফার্মেসী। এতে ওই এলাকার মাননুষের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। ফার্মেসী থেকে ঔষধ কিনতে আসা সাধারণ মানুষের মাঝেও ছড়িয়ে পড়েছে উদ্বেগ উৎকণ্ঠা।

এমনকি অনেক মানুষ মিতালী ফার্মেসী থেকে ঔষধ ক্রয় করা বন্ধ করে দিয়েছেন। ওই ফার্মেসি উপজেলা চেয়ারম্যান  সলমানের হওয়ায় প্রশাসনের নাকের ডগায় থাকা সত্বেও বন্ধ করা হচ্ছে না বলে অভিযোগ অনেকের।

এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নুরুল হক বলেন, ৩১ মে প্রথমে একজনের করোনা শনাক্ত হয়। পরে আমরা ওই ফার্মেসীর ১১জনের নমুনা পরীক্ষা করি। এরমধ্যে আরো একজনের করোনো পজিটিভি আসে।

এর আগে একজনের করোনা শনাক্তের পর ফার্মেসিটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। পরে আক্রান্তদের আইসোলেশনে পাঠানো হলেও সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক ফার্মেসি খোলা রাখা হয়েছে।

এ ব্যাপারে কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এটিএম ফরহাদ চৌধুরী জানান, আক্রান্ত দুইজন ছাড়া বাকিদের রিপোর্ট নেগেটিভ থাকায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে ফার্মেসি খোলা রাখার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ফার্মেসির মালিক কে সেটা আমাদের দেখার বিষয় না। আইন সবার জন্য সমান। দুইজন ছাড়া বাকিরা করোনা নেগেটিভ হওয়া স্বাস্থ্যবিধি মোতাবেক খোলা রাখা যাবে। তবে তাদেরকে সবসময় জীবাণুনাশক ব্যবহার করাসহ কিছু নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সে আলোকেই তারা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখতে পারবে।

এ ব্যাপারে কুলাউড়া উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম সফি আহমদ সলমানের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।



শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin