মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১, ০৪:৪৭ পূর্বাহ্ন

‘ক্যাসিনো’ বলে কোনো শব্দ নেই আইনে

‘ক্যাসিনো’ বলে কোনো শব্দ নেই আইনে


শেয়ার বোতাম এখানে

প্রতিদিন ডেস্ক:
[perfectpullquote align=”left” bordertop=”false” cite=”” link=”” color=”” class=”” size=””]• একটি আইন থাকলেও তা দেড়শ বছরের পুরনো
• ১৯৭২ সালের সংবিধানে জুয়া বন্ধে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়
• দুর্বল আইনে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার সুযোগ নেই
• ক্যাসিনো বা জুয়া খেলা বন্ধে নতুন আইন দরকার[/perfectpullquote]

দেশ স্বাধীনের পর ১৯৭২ সালের সংবিধানে জুয়া বন্ধের বিষয়ে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়ার জন্য রাষ্ট্রকে নির্দেশনা দেয়া হয়। যদিও পরবর্তীকালে এ বিষয়ে আর নতুন কোনো আইন হয়নি। ফলে এখনও কার্যকর রয়ে গেছে দেড়শ বছরের বেশি পুরনো আইনটি।

বর্তমান সংবিধানের ১৮ (২) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, ‘গণিকাবৃত্তি ও জুয়াখেলা নিরোধের জন্য রাষ্ট্র কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করিবে।’ এছাড়া ‘পাবলিক গ্যাম্বলিং অ্যাক্ট, ১৮৬৭’ এর ৩, ৪ ও ১৩ ধারা অনুসারে এটা শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

তবে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও বাংলাদেশ সরকারের কাছ থেকে লাইসেন্স বা পারমিট নিয়ে মদ বিক্রি ও পানের সুযোগ আছে।


সম্প্রতি ঢাকায় র‌্যাবের সমন্বিত অভিযানে চারটি কথিত ক্যাসিনো সিলগালা ও অনেককে আটকের পর জুয়া খেলা ও ক্যাসিনো নিয়ে এখন বাংলাদেশে বিস্তর আলোচনা হচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বরাতে জানা যাচ্ছে, ঢাকায় অন্তত ৬০টি এমন ক্যাসিনোর অস্তিত্ব রয়েছে।

পশ্চিমা উন্নত দেশগুলোর পাশাপাশি বাংলাদেশের আশপাশের দেশ সিঙ্গাপুর, ম্যাকাও, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া এমনকি নেপালেও জুয়া খেলার জায়গা হিসেবে ক্যাসিনোর জনপ্রিয়তা রয়েছে। কিন্তু বিভিন্ন ক্লাবে বা আড্ডায় গোপনে জুয়া খেলার অনেক আসর বসার কথা নানা সময়ে শোনা গেলেও আধুনিক যন্ত্রপাতি ও উপকরণসজ্জিত এ ক্যাসিনোগুলোর অস্তিত্ব থাকার খবর বাংলাদেশের মানুষের কাছে একেবারেই নতুন। অথচ মদ বিক্রি বা পানের মতো ক্যাসিনোর অনুমোদন বা লাইসেন্স দেয়ার কোনো ব্যবস্থা বা সুযোগই বাংলাদেশের কোনো আইনে নেই। জুয়ার বিষয়ে যে আইনটি কার্যকর আছে সেটি হলো ‘প্রকাশ্য জুয়া আইন ১৮৬৭’, সেখানে অবশ্য ‘ক্যাসিনো’ বিষয়ে কিছু বলা নেই।


শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin