শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০২:৪১ পূর্বাহ্ন


গোয়াইনঘাটে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা

গোয়াইনঘাটে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা


শেয়ার বোতাম এখানে

শুভ প্রতিদিন ডেস্ক : সিলেটের গোয়াইনঘাটে জমে উঠেছে ঈদ কেনাকাটা। প্রতিটি পোশাক বিপনী ও ফ্যাশন হাউজে চলছে বিকি-কিনি। ঈদকে সামনে রেখে শেষ মুহুর্তে এসে কেনাকাটায় ব্যতি ব্যস্ত ক্রেতা সাধারনরা। গোয়াইনঘাট উপজেলা সদর থেকে শুরু করে ইউনিয়ন পর্যায়ের হাট বাজারগুলোতেও ঈদ কেনাকাটা চলছে। ক্রেতাদের সরব উপস্থিতি সবখানেই।

সোমবার সরেজমিন গোয়াইনঘাট সদরে ঘুরে দেখা যায় প্রতিটি বিপনী বিতানে পোশাক কিনতে আসা মানুষের উপস্থিতি। বিশেষ করে কিশোরী ও নারীদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। গোয়াইনঘাটের নাবিলা ফ্যাশন, শিল্পী ফ্যাশন, খাঁন ফ্যাশন, শাহ্জালাল বিপনী বিতান, আরশী এন্ড তাওহিদা ফ্যাশন, আবিদ ফ্যাশন, তানজিনা ফ্যাশনসহ প্রায় সবকটি বিপনী বিতানে উপচে পড়া ভিড়। প্রতিটি দোকানে পছন্দসই পোষাক কিনছেন ক্রেতারা।

সরেজমিনে কথা হয় ক্রেতা-বিক্রেতাদের সাথে। শিল্পী ফ্যাশনের স্বত্তাধিকারী মহি উদ্দিন জানান, এবারের ঈদে তরুনীদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে ইন্ডিয়ান আলেয়াকার্ড, জর্জেট, বিভিন্ন জাতের থ্রী-পিছ, শাড়ী, শিশুদের পোষাকের মধ্যে আলমসের পোষাকের চাহিদা বেশি। নাবিলা ফ্যাশনের স্বত্তাধিকারী নুরুল হুদা নাদিম জানান, পদজা, নায়রা, আলেয়া কার্ড, জর্জেট ও আলমসের পোষাক বিক্রয় হচ্ছে বেশি। বেচাকানা আশানুরূপ। প্রচুর কাস্টমার আসছেন এবং প্রছন্দসই পোষাক কিনছেন।

খাঁন ফ্যাশনের স্বত্তাধিকারী মাহবুবুর রহমান খাঁন জানান, ঈদে বেচাকেনা বেড়েছে, কাস্টমারের উপস্থিতি ভালো।

বঙ্গবীর থেকে আসা তরুনী রোকসানা আহমেদ জানান,বর্তমানে তরুনীদের পছন্দের তালিকায় আলেয়া কার্ড বেশি চলছে,তাই আমি ও আমার বোনের জন্য এই পোষাক কিনেছি। পোষাকের মানও তুলনামূলক ভালোই।

শাহ্জালাল বিপনী বিতানে কথা হয় রহিমা বেগমের সাথে, তিনি শাড়ী কিনছেন পরিবারের ৬ জনের জন্য জর্জেট, টাঙ্গাইল ও প্রিন্টের শাড়ী কিনেছেন তিনি। পোষাকের মান ও দামে তিনি সন্তোষ্ট বলে জানান।

 


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin