বুধবার, ২৮ Jul ২০২১, ১০:১৭ পূর্বাহ্ন


দক্ষিণ সুরমায় বয়বৃদ্ধ প্যারালাইজড রোগীর জায়গা আত্মসাতের চেষ্টা

দক্ষিণ সুরমায় বয়বৃদ্ধ প্যারালাইজড রোগীর জায়গা আত্মসাতের চেষ্টা


শেয়ার বোতাম এখানে
  • 21
    Shares

স্টাফ রিপোর্ট:

সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার খালোমুখস্থ গাজিরপাড়ায় জাল দলিলের মাধ্যমে ভূমি আত্মসাৎচেষ্টার অভিযোগ ওঠেছে একই এলাকার আব্দুল্লাহ ও তার ছেলে জুবায়ের রাফিসহ পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে। প্রবাস ফেরত এক বয়োবৃদ্ধের ভূমি আত্মসাতের উদ্দেশ্যে বৃদ্ধের স্বজনদের ওপর হামলা-মামলা, বহিরাগত লোক দিয়ে হুমকি ও নানাভাবে হয়রানি করা হচ্ছে।। বুধবার দুপুরে সিলেট জেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এমন অভিযোগ করেছেন দক্ষিণ সুরমা উপজেলার খালোমুখস্থ গাজিরপাড়া গ্রামের হাজি গেদা মিয়া।

অসুস্থ গেদা মিয়ার পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তাঁর আত্মীয় রুহিন আহমদ। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, গেদা মিয়া বার্ধক্য ও শারীরিক অসুস্থতার পাশাপাশি কোমর থেকে পা পর্যন্ত প্যারালাইজড হয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন। দীর্ঘ ৪০ বছর মধ্যপ্রাচ্যের সৌদিআরবে চাকরিরত ছিলেন তিনি। প্রবাসে চাকরির সুবাধে নিজের নামে অনেক জমি-জমা খরিদ করেন।

একই এলাকার আব্দুল্লাহ, তার ছেলে জুবায়ের রাফি ও তাদের পুরো পরিবারের কুদৃষ্টি পড়েছে গেদা মিয়ার জায়গার ওপর। তারা জায়গা আত্মসাৎ করতে ভুয়া দলিল সৃজন করে নিজেদের পাশাপাশি বহিরাগত সন্ত্রাসীদের দিয়ে গেদা মিয়ার পরিবারকে বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। রাফি আদালতে জারিকারক পদে চাকরি করার সুবাদে প্রশাসন দিয়ে তাদের হয়রানি করার হুমকি দেওয়ায় আতঙ্কে রয়েছে গেদা মিয়ার পুরো পরিবার।

লিখিত বক্তব্যে পাঠের সময় রুহিন বলেন, ওই চক্র গেদা মিয়ার জমি-জমা আত্মসাৎ করতে মরিয়া হয়ে ওঠেছে। এরই ধারাবাহিকতায় তারা তার মেয়ে নাজমা বেগমের ৩ ছেলে, ভাতিজি মান্না ও তার ছেলে, চাচাতো ভাই নূর মিয়ার ছেলেসহ মোট ৬ জনের উপর মিথ্যা মামলা দায়ের করার পাশাপাশি, মান-সম্মান ক্ষুণœ করতে বিভিন্ন মাধ্যমে অপপ্রচার চালাচ্ছে। রাফি গত ৩১ মে গেদা মিয়ার বাড়ির রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা ৪০ বছর বয়সের ভাতিজি মান্না বেগমের উপর মোটরসাইকেল তুলে গুরুতর আহত করে রাস্তায় ফেলে যায়। পরে তাকে উদ্ধার করে ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এতেও ক্ষান্ত না হয়ে ভাতিজির বাড়িতেও হামলা চালায় রাফি। হামলা করে রাফি নিজে থেকে পুলিশ এনে দাবি করে গেদা মিয়ার পরিবার না-কি ঘরে প্রবেশ করে তার বাবা আব্দুল্লাহর ওপর হামলা চালিয়েছে। যা রাফির সাজানো নাটক ছিল। পুলিশ পরিদর্শনে এসে তার অভিযোগের সত্যতা পায়নি। বরং পুলিশ গেদা মিয়ার ভাতিজি মান্না বেগমকে দেখে রাফিদের বিরুদ্ধে মামলা করার পরামর্শ দেয়। পরে ভাতিজি বাদি হয়ে মোটরসাইকেল তুলে আহত করা এবং বাড়িতে হামলার ঘটনায় আদালতে রাফিসহ তার পরিবারের ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা করে।

লিখিত বক্তব্যে রুহিন বলেন, রাফি তার আপন চাচা হাবিব মিয়ার জায়গা আত্মসাৎ করতে কুপিয়ে তাকে গুরুতর আহত করে। এ ঘটনায় রাফি ও তার পরিবারের সদস্যদের আসামি করে তারই চাচাতো ভাই জাকারিয়া বাদি হয়ে মামলা করে। এলাকার মুরুব্বিগণ রাফিদের কর্মকান্ডে অসন্তোষ্ট হয়ে পঞ্চায়েত থেকে তাদেরকে বাদ দিয়েছেন। সরকারি চাকরির সুবাদে এলাকায় সে দম্ভ করে চরাফেরা করে। তাদের ভয়ে গেদা মিয়া নিজের ও পরিবারের নিরাপত্তা চেয়ে মোগলাবাজার থানায় সাধারণ ডায়রি করেছি।

সংবাদ সম্মেলনে প্রশাসনের উর্ধ্বেতন মহলের সহযোগিতা কামনা করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে, গেদা মিয়া, তার মেয়ে এবং ১০ বছরের নাতি উপস্থিত ছিল।


শেয়ার বোতাম এখানে
  • 21
    Shares

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin