সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১২:৫২ অপরাহ্ন


দেশটা আমাদের,আসুন দেশকে ভালোবাসি : চন্দ্রশিলা ছন্দা

দেশটা আমাদের,আসুন দেশকে ভালোবাসি : চন্দ্রশিলা ছন্দা


শেয়ার বোতাম এখানে

দেশটা আমাদের। আসুন দেশকে ভালোবাসি

এক একটা হত্যা, ধর্ষণ, খুন হয়, আগুন লাগে, এক্সিডেন্ট বাড়ে, আমরা রাগে ক্ষোভে ফেটে পড়ি। কবিতা,আর্টিকেল লেখি।টকশো, ফেসবুক আর পত্রিকায় পাতা গরম করি। রাষ্ট্রের এবং সরকারের গুষ্ঠি কিলাই।
কিন্তু সমাধান নিয়ে ভাবি কী? দেশটা কি হঠাৎ এমন দানবের দেশ হয়ে উঠেছে? আমি মনে করি না। বিচার না হওয়ার সংস্কৃতি দীর্ঘকালের। কিন্তু সে অজুহাত দেখিয়ে আজকের দায় এড়ানোর মত সময় ও আর আমাদের হাতে নেই। অতীতকে টেনে আনা মানেই, পিছিয়ে পড়া। আমাদেরকে এখন সামনে এগুতে হবে। দেশকে ভালোবাসতে হবে। রাষ্ট্র এবং সরকারকে সহযোগীতা করতে হবে। একজন রাষ্ট্রনায়ক অবতার নন যে, সব উল্টেপাল্টে ঠিক করে দেবেন। আমরা আইন মেনে রাষ্ট্রকে সহযোগীতা করতে পারি। অথবা সরকার জনগণকে বাধ্য করতে পারে আইন মানতে। এজন্য আইনের কঠোর প্রয়োগ সবার আগে দরকার।

একটা কথা আছে ” নিজের কাজ সবচেয়ে ভালোভাবে করাই প্রকৃত দেশপ্রেম” কথাটি সম্ভবত সিক্রেটিসের। এ কথাটির অর্থ আমরা যে যে অবস্থানে আছি, যে যে কাজই করি না কেন, ন্যায় নীতি এবং বোধের সাথে যেন করি।
রাস্তায় যেখানে সেখানে কফ,থু থু আর বিভিন্ন রকম প্যাকেট ঠোঙা ফেলে দেবো আর সরকার এসে আমাদের একজন একজন করে বোধ শেখাবেন? এটা হয় না। আর এজন্যই সবার আগে প্রয়োজন শিক্ষা এবং সচেতনতা। সেটা পড়া লেখা করে হতে পারে। টিভি বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে হতে পারে। গল্প গুজবের ভেতর দিয়ে হতে পারে। দেশ বিদেশ বেড়িয়ে দেখে শুনেও হতে পারে। পাশাপাশি সরকারও বিভিন্ন উদ্যোগ নিতে পারে। মানুষের বোধ বৃদ্ধি হলে, ছোট থেকেই সত্য বলার অভ্যাস তৈরি হলে অপরাধ প্রবণতা অনেকটাই কমবে বলে আমি মনে করি। আমি মনে করি, মানুষের ভেতর দেশপ্রেম থাকলে অপরাধ প্রবণতা কমে আসবে। এদেশের বদনাম মানে আমাদের বদনাম! এ দেশটা একটা স্বাধীন সার্বভৌম দেশ, এটা আমার দেশ। সুতরাং দেশপ্রেমও অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটা ব্যাপার। দুর্নীতিতে যখন চ্যাম্পিয়ন হয় দেশ, তখন আমাদের মুখ কি চাঁদের মত ঝলমল করে? যখন অনিময় আর বিশৃঙ্খলার দায়ে ট্রাফিক আইন ভেঙে পড়ে, যানজটে প্রথম স্থানে আসে এ দেশ, তখন কী আমাদেরই মাথা হেট হয় না? এই আইন তো আমরাই ভাঙি! পাশাপাশি ট্রাফিক ও শিথিল। কারো কোন জবাবদিহিতা নেই। দেশে খুন ধর্ষণ যখন মহামারি আকার ধারণ করে তখন যখন বিশ্বের অন্যদেশগুলো ঘৃণা প্রকাশ করবে, তখন কী আমাদের লজ্জিত হওয়া উচিত নয়? এই কাজগুলো কারা করে? এদেশের মানুষরাই। যাদের দেশাত্ববোধ নেই, যাদের আইনের প্রতি শ্রদ্ধা নাই, ধর্ম ভীতি নাই, সরকারকে বিব্রত করতে চায় তারাই করে। সুতরাং এই সমস্ত অপরাধীদেরকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিলে যদি কিছুটা স্বস্তি ফিরে আসে। কাজেই সমালোচনার ঝড় না তুলে আসুন আমরা এক এক করে নিজেরাই আগে মানুষ হই। নিজেদের বোধকে জাগ্রত করি। সচেতনতা বৃদ্ধি করি। নৈতিকতার শিক্ষা দেই প্রতিটি ঘরে ঘরে।
১১.৪.১৯
চন্দ্রশিলা ছন্দা


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin