শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৫৭ পূর্বাহ্ন


দ্বীপ নিভে গেছে থামছেনা কান্না

দ্বীপ নিভে গেছে থামছেনা কান্না


শেয়ার বোতাম এখানে

স্টাফ রিপোর্ট:  অভিষেক দে দ্বীপের জীবন প্রদীপ নিভে গেছে পক্ষকাল আগে। কিন্তু দ্বীপের পিতা-মাতা স্বজনের আহাজারি এখনো থামছে না। কে দেবে তাদের শান্তনা। বুকের মানির হারানোর শান্তনা খুঁজতে একুশে ফেব্রুয়ারি দ্বীপের পিতা-মাতা ছুটে আসেন সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে। দ্বীপের শিশুকালের ছবি বুকে আঁকড়ে সেখানেই কান্নায় ভেঙে পড়েন দু’জনে। তাদের এ কান্না ভাষা শহীদ হারানোর মত বেদনা বিধূর।

সরস্বতী পূজা নিয়ে কথা কাটাকাটির জেরে ৬ ফেব্রুয়ারি সিলেট নগরীর টিলাগড়ে খুন হন গ্রিনহিল স্টেট কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছাত্রলীগকর্মী অভিষেক দে দ্বীপ।

একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে আসেন অভিষেকের মা-বাবা। প্রভাতফেরির পর শহীদ মিনারে দাঁড়িয়ে নিজের সন্তানের জন্য কান্না ভেঙে পড়েন তারা। ছেলে হারা এ মাতা-পিতার কান্নার সাথে উপস্থিত অনেকেই চোখ মুছেন। এসময় তাদের মুখ থেকে ছেলে হত্যার বিচার দাবি স্পষ্ট হয়ে ওঠে।

এ হত্যার দুসপ্তারের বেশি সময় অতিবাহিত। কিন্তু এ সময়ে একজন ছাড়া আর কোনো আসামিকেও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। দ্বীপের মা অনিতা দে অভিযোগ করে বলেন, ‘১৫ দিনেও পুলিশ আসামি ধরতে পারেনি।’ এ সময় তাকে বুক চাপড়ে কান্না করতে দেখা যায়।

অভিষেকের বাবা দীপক দে হত্যাকারীদের ফাঁসি দাবি করে বলেন, ‘খুন হওয়ার পর জানতে পারি সরস্বতী পূজার ঘটনা নিয়ে নাকি আমার ছেলেকে হত্যা করেছে ওরা। কিন্তু এঘটনায় সৈকত ছাড়া আর কোনো আসামিকে ধরতে পারেনি পুলিশ। কোন কারণে পুলিশ নীরব রয়েছে তা বুঝতে পারছি না।’

এ বিষয়ে শাহপরান (রহ.) থানার ওসি আবদুল কাইয়ুম চৌধুরী বলেন, ‘মামলার আসামিরা পলাতক রয়েছে। পুলিশ তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা করছে।’


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin