বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:৪২ পূর্বাহ্ন


নির্বাচনী সহিংসতার ঘটনায় প্রবাসে থেকেও মামলার আসামী হলেন সাদেক

নির্বাচনী সহিংসতার ঘটনায় প্রবাসে থেকেও মামলার আসামী হলেন সাদেক


শেয়ার বোতাম এখানে

গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি:

আসামী ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আর মাত্র তিন দিন বাকি থাকতেই দেশব্যাপি সরকার দলীয় জোট ও বিএনপি জোটের প্রার্থীদের মধ্যে তুমুল উত্তেজনা বিরাজ করছে। নির্বাচনী প্রচারনায় ৩০০ আসনের ন্যায় সিলেট-৬ গোলাপগঞ্জ বিয়ানীবাজার আসনে মহাজোটের প্রার্থী নুরুল ইসলাম নাহিদ ও বিএনপি জোটের প্রার্থী ফয়ছল আহমদ চৌধুরীর কর্মী সমর্থকদের মধ্যে টান টান উত্তেজনা বিরাজ করছে বলে জানা যায়।

এরই ধারাবাহিকতায় গত মঙ্গলবার বিকেলে ধানের শীষের প্রার্থী ফয়ছল আহমদ চৌধুরী গোলাপগঞ্জ উপজেলার ফুলবাড়ী ইউনিয়নের স্থানীয় হেতিমগঞ্জ বাজারে পূর্ব নির্ধারিত নির্বাচনী জনসভা ছিল। ধানের শীষের প্রার্থীর নেতাকর্মীরা বিকেল ৩ টা থেকে

বিভিন্ন দিক থেকে মিছিলে মিছিলে সভাস্থান পরিপূর্ণ হয়ে যায়। ধানের শীষের প্রার্থী ফয়ছল আহমদ চৌধুরী বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী নিয়ে সভাস্থলে উপস্থিত হয়ে বক্তব্য শুরু করেন। তাঁর বক্তব্য প্রদানকালে নির্বাচনী ডিউটি পালনকারী নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তার পুলিশ ফোর্স সহ-সভাস্থলে উপস্থিত হয়ে নেতাকর্মীদের যান চলাচলের রাস্তা ছেড়ে সরে যাওয়ার জন্য বলেন। এসময় নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের বাকবিতন্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে তা সংঘর্ষে রুপ নেয়।

এসময় পুলিশকে উদ্দেশ্য করে সভাস্থলের আশপাশ থেকে ইট পাটকেল ছুড়া শুরু হলে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমক) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সুমন্ত ব্যানার্জির মাথায় আঘাত লাগলে তিনি মারাত্মক রক্তাক্ত জখম প্রাপ্ত হন।

পরে পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ বিশেষ ফোর্স এসে লাঠিচার্জ করে নেতা কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে ফেলে। এসময় সভাস্থল থেকে ৬ জন বিএনপি কর্মীকে আটক করা হয়।

পরে এ ঘটনায় গোলাপগঞ্জ মডেল থানা পুলিশের এস আই রুকনুজ্জামান মামলার বাদী হয়ে ধানের শীষের প্রার্থী ফয়ছল আহমদ চৌধুরীকে ১নং আসামী করে ৫৬ জন আসামীর নামে উল্লেখ সহ আরো অজ্ঞাত ২০০/৩০০ জনের আসামীকে পুলিশ এসল্ট মামলা দায়ের করেন। যা গোলাপগঞ্জ মডেল থানার মামলা নং ১২/২১৮, তারিখ ২৫-১২-২০১৮ ইংরেজী। এই মামলার এজাহার নামীয় ৫৬ জন আসামীর

মধ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ যুক্তরাজ্যে থাকা সাবেক ছাত্রনেতা সাদেক আহমদকে ৮নং আসামী করা হয় এবং তার আপন ছোট ভাই তারেক আহমদকে ১২নং আসামী করা হয়েছে বলে জানা যায়।

এ ব্যাপারে মুঠোফোনে ধানের শীষের প্রার্থী ফয়ছল আহমদ চৌধুরীর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, তাদের শান্তিপূর্ণ সমাবেশে পুলিশ বাধা প্রধান করে সভাপন্ড করার পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করেছে এবং মিথ্যা মামলা দিয়ে নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করে ৩০ ডিসেম্বর ভোট জালিয়াতির পরিকল্পনা করছে।

প্রবাসে থাকা ব্যক্তিদের আসামী করার বিষয়ে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ এ কে এম ফজলুল হকের সাথে যোগাযোগ করা হএল তিনি বলেন, বিভিন্ন সোর্সের মাধ্যমে আসামীদের নাম সংগ্রহ করা হয়েছে। মামলাতে ভুলে কারো নাম আসলে তদন্তের মাধ্যমে সঠিক নাম আসবে বলে তিনি জানান।

এদিকে নেতাকর্মীদের বাসায় পুলিশ সহ সাদা পোশাকধারী বিভিন্ন সংস্থার বাহিনী তল্লাশী চালাচ্ছেন বলে জানা যায়। এই ঘটনায় পুরো গোলাপগঞ্জ উপজেলার মানুষের মধ্যে ভীতি সৃষ্টি করেছে বলে জানা যায়।


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin