শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ০৪:৪৬ পূর্বাহ্ন

পর পর ডাকাতি : অশান্ত হয়ে ওঠেছে মাধবপুর

পর পর ডাকাতি : অশান্ত হয়ে ওঠেছে মাধবপুর


শেয়ার বোতাম এখানে

হবিগঞ্জের মাধবপুরে একের পর এক ডাকাতির ঘটনায় অশান্ত হয়ে ওঠেছে এলাকা। ইউপি সদস্য থেকে শুরু করে অধ্যক্ষের বাড়ি পর্যন্ত ডাকাতের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছে না।

মাধবপুর উপজেলার চৌমুহনী স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোহন মিয়ার বাড়িতে দুধর্ষ ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। রবিবার দিবাগত রাতে উপজেলার চৌমুহনী ইউনিয়নের অলিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। অধ্যক্ষ মোহন মিয়া জানান, রাত দেড়টার দিকে ১৫/২০ জনের একদল ডাকাত ঘরের দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে সবাইকে বেধে ফেলে। ঘরে রক্ষিত ৪০ হাজার টাকা, ৩ ভরি স্বর্ণ, এলইডি টিভি, ৪ মোবাইল ফোন লুট করে নিয়ে যায়।

এর দুদিন আগে শনিবার ভোররাতে মাধবপুরে ইউনিয়ন পরিষদের নারী সদস্যের বাড়িতে ডাকাতিমাধবপুরে ইউনিয়ন পরিষদের নারী সদস্যের বাড়িতে ডাকাতি হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার চৌমুহনী ইউনিয়নের ৪, ৫, ৬নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত আসনের সদস্য (মহিলা মেম্বার) এর বাড়িতে এ ডাকাতি হয়েছে।

এ সময় ডাকাতরা স্বর্ণালংকার ও মোবাইল ফোন লুট করে নিয়ে গেছে। ডাকাতের হামলায় মহিলা মেম্বার শেলিনা আক্তার আহত হয়েছেন।
এদিকে মাধবপুরে পুলিশকে কামড়িয়ে পালিয়ে গেছে ডাকাত। ৪ মার্চ দুপুরে উপজেলার জয়পুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহত পুলিশ সদস্য আশরাফুল আলম সরলকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ওই দিন দুপুরে কাশিমনগর পুলিশ ফাঁড়ির কনস্টেবল আশরাফুল আলম সরল ডাকাত সৈকত মিয়াকে ওই এলাকায় আটক করে। এ সময় সে পুলিশ সদস্যকে কামড় দিয়ে পালিয়ে যায়। অবশ্য কাশিমনগর পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক মুর্শেদ আলম বলেন, সৈকত মিয়াকে গ্রেফতার করতে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রেখেছে। তবে ওসি মো. ইকবাল হোসেন বিষয়টি অস্বীকার করেন।

অবশ্য ৬ মার্চ রাতে পুলিশ উপজেলার নোয়াপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরদিন শনিবার তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

গত ১৬ ফেব্রুয়ারি মাধবপুর উপজেলায় রতনপুর এলাকায় দিবাগত রাতে গুলিছুগে চার-পাঁচটি ব্যক্তিগত গাড়িতে ডাকাতি করে। মাধবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা মনির হোসেন বলেন, ডাকাতির বিষয়টি তিনি শুনেছেন। তবে গুলি নয়, ডাকাতেরা ঢিল ছোড়ে।

ডাকাতির শিকার সিকান্দার মিয়া নামের একজন মাইক্রোবাসচালক বলেন, তিনি ঢাকা থেকে মৌলভীবাজারে ফিরছিলেন। রাত সাড়ে তিনটার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের মাধবপুরের রতনপুরে পৌঁছালে মাইক্রোবাসের মধ্যে বিকট শব্দ শুনতে পান। এতে চাকা ফেটে গেছে ভেবে তিনি মাইক্রোবাস থামান।

এ সময় ১০-১২ জন অস্ত্রধারী ডাকাত হঠাৎ মাইক্রোবাসে ঢুকে একজন আরোহীসহ তাঁকে মারধর করে টাকা, মুঠোফোনসহ ২০-২৫ হাজার টাকার মালামাল নিয়ে পালিয়ে যায়। এ সময় ডাকাতেরা আরও চার-পাঁচটি ব্যক্তিগত গাড়ি আটকে চালক ও আরোহীদের ব্যাপক মারধর করে। ডাকাতেরা চলে যাওয়ার পর প্রতিটি গাড়ির গায়ে গুলি লাগার চিহ্ন দেখা যায়।

মাধবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. ইকবাল হোসেন জানান, মহিলা মেম্বারের বাড়িতে ডাকাত দল হানা দিয়েছিল। পুলিশ মহিলা মেম্বারের বাড়িতে গিয়ে ঘটনার সম্পর্কে খোঁজখবর নিয়েছে।
মাধবপুর সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার নাজিম উদ্দিনের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ঘটনাস্থলে গিয়ে খোঁজ খবর নেওয়া হয়েছে। ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।



শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin