শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:২৭ পূর্বাহ্ন


পূণ্যভূমিতে স্বাগত শেখ হাসিনা

পূণ্যভূমিতে স্বাগত শেখ হাসিনা


শেয়ার বোতাম এখানে

নবীন সোহেল: অপেক্ষায় ছিল সিলেট। তিনি আসবেন আবার। যে মাঠে গত ৩০ জানুয়ারি এসে ভাষণ দিয়েছিলেন। হয়তো সেই একই মাঠে শিগগির এসে ভাষণ দেবেন। আশার আলো দেখাবেন সিলেটবাসীকে। বলবেন সিলেট নিয়ে তার স্বপ্নের কথা। জানাবেন ভবিষ্যৎ উন্নয়ন পরিকল্পনার কথা। সিলেটবাসীর সেই আশা পূরণ হচ্ছে আবার। এক বছরের মাথায় আজ শনিবার আবার পূণ্যভূমি সিলেটে পা রাখছেন প্রধানমন্ত্রী। বঙ্গবন্ধু তনয়া, মাদার অব হিউমেনিটি শেখ হাসিনা।
তবে এবারে তার আগমন অন্য আমেজ বিরাজ করছে। গেলবার এসেছিলেন সিটি নির্বাচনের প্রচরাণায়। এবার আসছেন জাতীয় নির্বাচনের সিলেট অঞ্চলের প্রার্থীদের জন্য ভোট প্রার্থনায়। সঙ্গত কারণেই পুরো সিলেট চেয়ে থাকবেন তার দিকে। কি উপহার দিয়ে যান, ভবিষ্যৎ সিলেট ক্যামেন করবেন- তার কণ্ঠস্বর থেকে সেইসব কথা শোনার জন্য অপেক্ষায় থাকবেন তারা।

সিলেটবাসীর প্রত্যাশা কম নয় তার কাছে। সড়ক যোগাযোগ, অবকাটামো উন্নয়ন, শিক্ষা, স্বাস্থ্য এবং আঞ্চলিক অর্থনৈতিক উন্নয়নে অন্তহীন প্রত্যাশা। সরকার সাধ্যমত সেই প্রত্যাশা অতীতে পূরণের চেষ্টা করেছে। এটি অব্যাহত রাখবেন।

 

এমন মাহেন্দ্রক্ষণের সাক্ষী হতে উন্মুখ হয়ে আছেন সিলেটবাসীর। প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে উৎসবের আমেজ সিলেটে। আনন্দে ভাসছেন সিলেটবাসী। সিলেটবাসীর সেই মহেন্দ্রক্ষণের পরিসমাপ্তি হবে আজ। সর্বত্রই শেখ হাসিনার আগমন নিয়ে আলোচনা। প্রধানমন্ত্রীর আগমনে নগরী ও সভাস্থল সেজেছে নতুন রঙে। আইনশৃংখলার সর্বোচ্চ নিরাপত্তার বেস্টনিতে ঘেরা হয়েছে সিলেট শহর।

 

আজ প্রধানমন্ত্রী সিলেট এসে হযরত শাজালাল (র.) মাজার, হযরত শাহপরানের (র.) মাজার ও হযরত গাজী বুরহান উদ্দিন (রহ.) মাজার জিয়ারত করবেন। জিয়ারত শেষে বিকেল ৩টায় নগরীর ঐতিহাসিক আলিয়া মাঠে জেলা-মহানগর আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত জনসভায় ভাষণ দিবেন। আলিয়া মাঠকে সাজানো হয়েছে ভিন্ন রঙে। মাঠের পূর্বদিকে মঞ্চটি করা হয়েছে নৌকার আদলে। এই নৌকামঞ্চ থেকে প্রধানমন্ত্রী সিলেটবাসীর কাছে নৌকার জন্য ভোট চেয়ে ভাষণ দিবেন। সিলেটের ১৯টি আসনে মহাজোটের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে বিজয় নিশ্চিত করতেই নির্বাচনী প্রচারণায় প্রধানমন্ত্রীর এ আগমন। তার আগমন এখানকার প্রার্থী ও আওমীলীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে নতুন উদ্যমের সঞ্চার করেছে। তারা আগের চেয়ে আরও বেশি উৎসাহিত এবং উজ্জ্বিবিত।

 

প্রধানমন্ত্রীর জনসভাস্থর আলিয়া মাঠের চারদিক বন্ধ করে কয়েকটি গেইট রাখা হয়েছে। প্যান্ডেল তৈরী করা হয়েছে পুরো মাঠজুড়েই। এই মঞ্চে নৌকার কান্ডারীরাও ভোট চাইবেন। বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রীর বহরে আসা কেন্দ্রীয় নেতারা ও সিলেটের শীর্ষ নেতারা। সিলেটের আগামী প্রত্যাশার কথাও তুলেও ধরবেন নেতৃবৃন্দরা।
জনসভাকে জনসমূদ্রে পরিণত করতে লক্ষাধিক মানুষের সমাগমের জন্য কাজ করছেন জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দরা। সিলেটের প্রতিটি উপজেলার নেতাকর্মীরা জনসভায় ব্যানার সহকারে যোগ দিবেন সভায়।

 

প্রধানমন্ত্রীর আগমনে উপলক্ষে পুরো নগরীকে কয়েকস্তরের নিরাপত্তায় বেষ্টনীতে থাকবে। জনসভাস্থল সর্বোচ্চ্য নিরাপত্তা বলয়ের মধ্যে থাকছে। শুক্রবার থেকেই পুলিশ, র‌্যাব, সিআইডিসহ কয়েকটি গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যদের বিশেষ টহল লক্ষ্য করা গেছে। ইতিমধ্যে সভাস্থল পুরোপুরি আইনশৃংখলার নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। শুক্রবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ টিম সভাস্থল পর্যবেক্ষণ করতে দেখা গেছে।

 

প্রধানমন্ত্রীর এ আগমনে সাধারণ ভোটাররাও সিলেটকে নিয়ে আগামীর উন্নয়ন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ শুনতে অধির আগ্রহে অপেক্ষায় আছেন।
এদিকে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিলেটের আলীয়া মাদ্রাসার মাঠের জনসভাস্থল পরিদর্শন করেছেন আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় ও সিলেটের নেতৃবৃন্দ। শুক্রবার নেতৃবৃন্দ আলীয়া মাদ্রাসার মাঠে গিয়ে জনসভাস্থল কাজের পরিদর্শন করেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠানিক সম্পাদক সিলেটের দায়িত্বপ্রাপ্ত আহমদ হোসেন, আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, কার্যনির্বাহী সদস্য, সিলেট মহানগর সভাপতি সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, আওয়ামীলীগ নেতা সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক, আনোয়ারুজ্জামন চৌধুরী, সুজাত আলী রফিক, ফয়জুল আনোয়ার আলাওর, বিজিৎ চৌধুরী, এড. রনজিত সরকার, আজহার উদ্দিন জাহাঙ্গীর, জুবের খান, বেলাল খান, মুশফিক জায়গীরদার, আফসর আজিজ, শেখ আবুল হাসনাত বুলবুল, লিটন পাল, মাহফুজুল করিম নেওয়াজ প্রমুখ।


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin