রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০৩:১৩ অপরাহ্ন

প্রেমের প্রস্তাব দেয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে মদন মোহন কলেজ শিক্ষককে হত্যা

প্রেমের প্রস্তাব দেয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে মদন মোহন কলেজ শিক্ষককে হত্যা


শেয়ার বোতাম এখানে

স্টাফ রিপোর্ট: সিলেটে কোচিং ছাত্রী রুপাকে প্রেমের প্রস্তাব দেওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে প্রেমিক মোজাম্মিল হোসেন (২৪) ও প্রেমিকা নিশাত তাসনীম রুপা (২০) পরিকল্পনা করে হত্যা করেন মদন মোহন কলেজের প্রভাষক মো. সাইফুর রহমানকে। গতকাল সোমবার দুপুরে মোজাম্মিল ও রুপা সিলেট মহানগর মুখ্য হাকিস ৩য় আদালতের বিচারক সাইফুর রহমানের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য জানান পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়া এই প্রেমিকজুটি।

 

ফৌজধারী দ-বিধির ১৬৪ ধারায় দেওয়া জবানবন্দিতে মোজাম্মিল ও রুপা বলেন, সিলেট মহানগর পুলিশের শাহপরান এলাকার খিদিরপুর গ্রামের শফিকুর রহমানের বাসায় লজিং শিক্ষক হিসেবে থাকতেন সিলেট মদন মোহন কলেজের প্রভাষক মো. সাইফুর রহমান (২৯)। শফিকুর রহমানের মেয়ে নিশাত তাসনীম রুপা (২০)-কে পড়াতেন তিনি। একপর্যায়ে রুপাকে প্রেমের প্রস্তাব দেন শিক্ষক সাইফুর। এতে ক্ষুব্দ হন রুপার প্রেমিক মোজাম্মিল হোসেন (২৪)।

 

পরে রুপা ও মোজাম্মিল পরিকল্পনা করে সাইফুর রহমানকে শনিবার ডেকে নিয়ে নগরের সোবহানীঘাটস্থ হোটেল মেহেরপুরে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করা হয় প্রভাষক সাইফুর রহমানকে। পরে তাঁর লাশ ফেলে দেওয়া হয় সিলেট-সুনামগঞ্জ বাইপাস সড়কের দক্ষিণ সুরমার তেলিরাই এলাকায়।
মদন মোহন সরকারি কলেজের খন্ডকালীন শিক্ষক সাইফুর রহমানকে হত্যার ঘটনায় রোববার রাতেই নগরের টিলাগড় থেকে ছাতক উপজেলার আলমপুর গ্রামের মোজাম্মিল হোসেন (২৪) এবং খিদিরপুর গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে নিশাত তাসনিম রুপা (২০) কে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। মোজাম্মিল সিলেট এমসি কলেজের ইসলামি ইতিহাস বিভাগের চতুর্থ বর্ষে ছাত্র আর তাঁর প্রেমিকা রুপা একই কলেজের একই বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী।
এ ঘটনায় গতকাল সোমবার নিহতের মা রনিফা বেগম বাদি হয়ে অজ্ঞাতদের আসামি করে দক্ষিণ সুরমা থানায় একটি হত্যামামলা (নম্বর-১) দায়ের করেন।

 

তবে সাইফুররের ঘনিষ্টরা জানান, শিক্ষক সাইফুর রহমানের সাথে দীর্ঘ ৫ বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে রুপার। রূপাও ইতিহাস বিভাগের ছাত্রী। সম্প্রতি ছাত্রলীগকর্মী মোজাম্মিলের সাথে প্রেমে জড়িয়ে পড়েন রুপা। এতে বাঁধা দেন সাইফুর। আর এ কারণেই ক্ষুব্দ হয়ে তাকে হত্যা করা হয়।
মহানগর পুলিশের দক্ষিণ সুরমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খায়রুল ফজল বলেন, সোমবার দুপুরে তাদের আদালতে হাজির করা হলে হত্যার দায় স্বীকার করে তারা ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন। বিচারক প্রেমিকজুটির বক্তব্য লিপিবদ্ধ করে বিকলে তাদের জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন। ওসি খায়রুল ফজল বলেন, প্রেমসংক্রান্ত বিরোধের কারণেই শিক্ষক সাইফুর রহমানকে হত্যা করা হয় বলে জবনবন্দিতে জানায় মোজাম্মিল ও রুপা। তিনি বলেন, সাইফুর রহামনের লাশ উদ্ধারের পর ঘটনাটি তদন্তে নামে পুলিশ। এতে প্রেম সংক্রান্ত বিরোধের বিষয়টি উঠে আসে। এই সূত্র ধরে মোজাম্মিল ও রুপাকে রোববার রাতে তাদরে নিজ নিজ বাড়ি থেকে আটক করা হয়।

 

কলেজ শিক্ষক সাইফুর হত্যার রহস্য উদঘাটন করা হয়েছে বলে জানিয়ে সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (গণমাধ্যম) জেদান আল মুসা বলেন, আদালতে জবানবন্দি শেষে তাদের জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। আলোচিত এই হত্যাকা-ে আরও কারা জড়িত এমন প্রশ্নের জবাবে এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, বাকি অঅসামীদের গ্রেফতারের স্বার্থে এ বিষয়ে আর কিছু বলতে চাই না।

 

 

উল্লেখ্য, সিলেট নগরের মদন মোহন সরকারি কলেজের ইসলামের ইতিহাস বিভাগের খন্ডকালীন শিক্ষক সাইফুর রহমান গোয়াইনঘাট উপজেলার ফলতইল সগাম গ্রামের মো. ইউসুব আলীর ছেলে। গত শনিবার সকাল ১১টার দিকে মেস থেকে বের হন এই শিক্ষক। এরপর রাতে তিনি আর বাসায় ফিরেননি। রবিবার সকালে দক্ষিণ সুরমার তেলিরাই এলাকায় তাঁর লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেন স্থানীয় লোকজন।

 

এ ঘটনার প্রতিবাদে রোববার দুপুরে নগরের লামাবাজারে মদন মোহন কলেজের সামনে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।



শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin