বৃহস্পতিবার, ২৫ Jul ২০২৪, ০৭:৪৮ পূর্বাহ্ন


বালুচরে টিলা কাটায় বাধা দেওয়া ওঁরাও সম্প্রদায়ের উপর হামলা

বালুচরে টিলা কাটায় বাধা দেওয়া ওঁরাও সম্প্রদায়ের উপর হামলা


শেয়ার বোতাম এখানে

শুভ প্রতিদিন ডেস্ক:

সিলেটে টিলা কাটায় বাধা দেওয়ায় ক্ষুদ্র নৃ গোষ্টি ওঁরাও সম্প্রদায়ের কয়েকজনের উপর হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে আহত হয়েছেন দুজন। আহতদের মধ্যে রিপন ওঁরাও নামে একজনকে ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শুক্রবার বিকেলে সিলেট নগরের বালুচর এলাকার চন্দনটিলায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, বালুচর এলাকার টিলাগুলোতে ওঁরাও সম্প্রদায়ের বসবাস। স্থানীয় একটি ভূমিখেকো গোষ্ঠি দীর্ঘদিন ধরে তাদের জমি দখরের চেষ্টা চালিয়ে আসছে। ওরাওদের উচ্ছেদ করে অবাধে টিলাও কেটে চলছে তারা। এনিয়ে মামলাও চলছে। এই গোষ্ঠিই শুক্রবার শ্রমিক লাগিয়ে টিলা কাটছিলো বলে অভিযোগ।

স্থানীয় বাসিন্দা মিলন ওঁরাও বলেন, শুক্রবার দুপুরে কয়ঢেকজন শ্রমিক চন্দটিলা কাটা শুরু করে। তা দেখে আমার বোন ও স্ত্রীসহ কয়েকজন গিয়ঢে বাধা দেন। বাধা পেয়ে তাৎক্ষণিক তারা ফিরে গেলেও কিছুক্ষণ পর ১৫/১৬ জন দেশিয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে এসে নারীদের উপর হামলা চালায়।

তিনি বলেন, নারীদের উপর হামলা ঠেকাতে গেলে তারা রিপন ওঁরাও ও সজিব ওঁরাও পিটিয়ে আহত করে। এরমধ্যে রিপনের অবস্থা গুরুতর। তাকে ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তিনি বলেন, এই এলাকায় আমাদের জমি টুলটিকর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল মছব্বিরসহ তার আত্মীয় স্বজনরা দখল করে আছেন। তারা আরও জমি দখল করতে চাচ্ছেন। মছব্বিরের লোকজনই টিলা কাটা ও হামলার ঘটনা ঘটায় বলে অভিযোগ তার।

অভিযোগের বিষয়ে আব্দুল মছব্বিরের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তা্কে পাওয়া যায়নি।

সিলেটের শাপরান থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ইন্দ্রনীল ভট্টাচার্য বলেন, টিলা কাটা ও মারধরের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়েছিলো। কিন্তু টিরা কাটায় ব্যবহুত ঠেলা ছাড়া কাউকে পাওয়া যায়নি। দুই পক্ষেই কয়েকজন আহত হয়েছেন বলে শুনেছি। এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেবো।

নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও টিলা কাটা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এই বিষয়টা পরিবেশ অধিদপ্তরের দেখভাল করার কথা। তারা টিলা কাটার পরও মামলা করতে পারে। মামলা করলে আমরা তদন্ত করে দেখবো।

এদিকে, এ ঘটনার প্রেক্ষিতে রাতে সিলেটের প্রগতিশীল রাজনৈতিক দলসমূহ, পেশাজীবী, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এক বিবৃতিতে বলেন, ওঁরাও সম্প্রদায় একটি নিরীহ ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী। সিলেট মহানগরীর বালুচর এলাকায় তাদের আদি নিবাস। গত শতাব্দীর আশির দশক থেকে ঐ এলাকায় বসবাসরত চিহ্নিত একটি ভূমিদস্যূ দুর্বৃত্তচক্র ওঁরাও সম্প্রদায়ের সম্পত্তি আত্মসাৎ করার লক্ষ্যে নানাবিধ অপতৎপরতায় লিপ্ত হয়। ইতিমধ্যে বিপুল সংখ্যক ওঁরাও সম্প্রদায়ের পরিবার-পরিজন ও বসতভিটা থেকে অন্যায় ও নৃশংসতার মাধ্যমে সম্পূর্ণভাবে উচ্ছেদ করে দিয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, বর্তমানে ১৫/২০টি পরিবার অত্যন্ত বিপদজনক ও মানবেতর জীবনযাপনের মাধ্যমে সেখানে টিকে আছে। কিন্তু চিহ্নিত ঐ ভূমিদস্যু চক্র এবং তাদের গুন্ডাবাহিনী ওঁরাও সম্প্রদায়ের অসহায় মানুষদের তাদের বসতভিটা থেকে সম্পূর্ণভাবে উচ্ছেদ করে দিতে মরিয়া হয়ে উঠেপড়ে লেগেছে। এই জালিয়াত চক্রের বিরুদ্ধে সিলেট জেলা জজ আদালতে চলমান রয়েছে একাধিক মামলা । এই গোষ্টিই আজকে নৃশংস হামলা চালিয়েছে।

বিবৃতিদাতারা বলেন, কালবিলম্ব না করে রাষ্ট্রের পক্ষে দায়িত্বশীল সংশ্লিষ্ট সকল কর্তৃপক্ষকে জরুরি ভিত্তিতে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করে নিরীহ নৃ-গোষ্ঠী ওঁরাও সম্প্রদায়ের অসহায় মানুষদের রাষ্ট্রের সংবিধান স্বীকৃত অধিকার, ক্ষমতা ও তাদের অস্তিত্ব রক্ষার নূন্যতম ব্যবস্হা গ্রহণের জোর দাবি জানানো যাচ্ছে।

বিবৃতিতে সাক্ষর করেন- গণতন্ত্রী পার্টির কেন্দ্রীয় সভাপতি ব্যারিস্টার মোঃ আরশ আলী, সিলেট জেলা সিপিবির সাবেক সভাপতি এডভোকেট বেদানন্দ ভট্টাচার্য, সিলেট জেলা জাসদ সভাপতি লোকমান আহমদ, আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট এমাদ উল্ল্যাহ শহিদুল ইসলাম, সুজন সভাপতি ফারুক মাহমুদ চৌধুরী ,আইডিয়ার নির্বাহী প্রধান নজমুল হক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব অম্বরিষ দত্ত, সাংবাদিক সংগ্রাম সিংহ,সাম্যবাদী দলের জেলা সাধারণ সম্পাদক ধীরেণ সিংহ, ন্যাপ ঐক্য সিলেট জেলা সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সুবল চন্দ্র পাল,সিপিবি জেলা সভাপতি ফরহাদ হোসেন,গণতন্ত্রী পার্টি জেলা সভাপতি মোঃ আরিফ মিয়া,জাসদ মহানগর সভাপতি মিশফাক আহমদ মিশু,বাসদ (মার্ক্সবাদী) আহ্বায়ক উজ্জল রায়, ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি সিকান্দর আলী,বাসদ সমন্বয়ক আবু জাফর, ওয়ার্কার্স পার্টি(মার্ক্সবাদী) জেলা সভাপতি সিরাজ আহমদ, ন্যাপ ঐক্য সাধারণ সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস বাবুল,গণতন্ত্রী পার্টি সাধারণ সম্পাদক জুনেদুর রহমান চৌধুরী, সাম্যবাদী আন্দোলনের সমন্বয়ক সুশান্ত সিনহা সুমন,জাসদ সাধারণ সম্পাদক কে,এ কিবরিয়া চৌধুরী, সিপিবি সাধারণ সম্পাদক
খায়রুল হাসান, জাসদ মহানগর সাধারণ সম্পাদক গিয়াস আহমদ, ওয়ার্কার্স পার্টি জেলা সাধারণ সম্পাদক ইন্দ্রানী সেন শম্পা,বাসদ(মার্ক্সবাদী) জেলা সদস্য এডভোকেট হুমায়ূন রশীদ শোয়েব,বাসদ জেলা সদস্য প্রণব জ্যোতি পাল ও সাম্যবাদী আন্দোলনের এডভোকেট রণেন সরকার।


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin