রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০২:৫৫ অপরাহ্ন

বিএনপির এমপিদের শপথে চাপের চেয়ে লোভ বেশি : গয়েশ্বর

বিএনপির এমপিদের শপথে চাপের চেয়ে লোভ বেশি : গয়েশ্বর


শেয়ার বোতাম এখানে

প্রতিদিন ডেস্ক :
বিএনপির এমপিদের শপথ গ্রহণের ক্ষেত্রে সরকারি চাপের চেয়ে লোভ বেশি ছিল বলে মন্তব্য করেছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। আজ শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে তাঁতী দল আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৮তম শাহাদাৎবার্ষিকী উপলক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘আমাদের সিদ্ধান্ত নিয়ে এই যে কথা বলছেন, সংসদে যাব না। কিন্তু সংসদে গেলাম। এখানেই তো বুঝতে হবে আমাদের প্রতিশ্রুতির অভাব আছে। আমরা অবাধ্যকে বাধ্য করতে পারি না। কারণ তাদের দলের প্রতি ও রাজনীতির প্রতি অঙ্গিকার নাই। এই পাঁচটা অবাধ্যকে যদি আমরা বাধ্য করতে পারতাম তাহলে আজকে আমাদের এই দুঃখ থাকত না।’

তিনি বলেন, ‘এই বিষয়গুলো আপনাদেরকে বুঝতে হবে। এখন এই পাঁচজন যদি দল ছেড়ে চলে যেত। চলে যেত না? যেত। সেই কারণে আপনাকে প্রেক্ষাপটটা বুঝতে হবে। এদের ওপরে লোভ আছে, চাপ আছে। তবে চাপের চেয়ে লোভ বেশি। এরা একটা দিনের জন্য বলেছে যে, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মুক্ত না হলে সংসদে যাব না? এই পাঁচ জনের কেউ বলেছেন? একদিন। কেউ বলছে? বলে নাই। তাহলে তাদের সংসদে যাওয়াটা জরুরি। বেগম জিয়ার মুক্তিটা কিন্তু জরুরি না। ’

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে গয়েশ্বর চন্দ্র আরও বলেন, ‘আমরা কাজে ফাঁকি দেই। আমরা কমিটি করি। কিন্তু কেউ সংগঠন করি না। তবে একটি কমিটি মানেই সংগঠন না। কমিটিতে যখন যুগ্মআহ্বায়কের সংখ্যা বেশি এবং সদস্য সচিব থাকে তখনই বুঝতে হবে কেউ কাউকে মানে না। তার মানে অঙ্গিকারের অভাব। সংগঠনের চেয়ে নিজেকে সবাই বড় মাপের দেখতে চায়।’

আমরা প্রকৃত অর্থে জিয়াউর রহমানের উত্তরসূরি ও অনুসারী হতে কি পেরেছি— এই প্রশ্ন করে বিএনপির জ্যেষ্ঠ এই নেতা বলেন, ‘জিয়াউর রহমানকে কি আমরা অনুসরণ করছি? তাকে যদি আমরা অনুসরণ করি তাহলে আমাদের ভাগ্যের চাকা ঘুরে না এবং আমরা গাড়ি-বাড়ির মালিক হতে পারি না। কারণ উনার রাজনৈতিক জীবনে গাড়ি-বাড়ি ও বিত্তশালী হওয়ার কোনো অনুপ্রেরণা ছিল না। উনার রাজনীতি ছিল দেশপ্রেম ও দেশের মানুষকে জাগিয়ে তোলা। ’

বিএনপির এই স্থায়ী কমিটির সদস্য বলেন, ‘যারা উপদেশ দেন, তারা নিজের বেলায় সেটা কতটুকু বাস্তবায়ন করেন— তা একটু ভেবে দেখবেন। আর দলের উপদেষ্টা সম্পাদক বেশি, কর্ম সম্পাদকটা একটু কম। বলা হয়, ঘরে বসে মিটিং করব না। কিন্তু ঘরেই ডাকা হয়। আর আজকে ঘরে না ডেকে যদি বাইরে ডাকা হতো তাহলে খুব বেশি ভালো লাগত।’

আয়োজক সংগঠনের আহ্বায়ক আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য দেন— খায়রুল কবির খোকন, অধ্যক্ষ সেলিম ভূঁইয়া, ২০ দলীয় জোট নেতা সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি, সিনিয়র যুগ্মআহ্বায়ক বাহাউ‌দ্দিন বাহার, ড. কাজী ম‌নিরুজ্জামান ম‌নির, সদস্য স‌চিব ম‌জিবুর রহমান প্রমুখ।



শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin