বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:১৭ পূর্বাহ্ন


বিশ্বনাথের বিদ্যুতের লোডশেডিং নিয়ে যা বললেন ডিজিএম

বিশ্বনাথের বিদ্যুতের লোডশেডিং নিয়ে যা বললেন ডিজিএম


শেয়ার বোতাম এখানে

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি
জ্বালানী সংকটে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে দেশজুড়ে এলাকাভিত্তিক শিডিউল পদ্ধতিতে লোডশেডিং চলমান রয়েছে। গত মঙ্গলবার থেকে সিলেটের বিশ্বনাথে এ পদ্ধতিতে শুরু হয়েছে। এলাকাভিত্তিক প্রতিদিনে ৪-৫ ঘণ্টা লোডশেডিংয়ের শিডিউল থাকলেও উপজেলায় বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের শিডিউল বিপর্যয় চলছে। গ্রাহকের চাহিদার অর্ধেক বিদ্যুৎ না মেলায় ঘোষিত লোডশেডিংয়ের সূচি ঠিক রাখতে পারছে না বিদ্যুৎ বিভাগ। ফলে গ্রাহককে পোহাতে হচ্ছে ভোগান্তি।

শনিবার বিকেলে সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১’র বিশ্বনাথ জোনাল অফিসের ডিজিএম সাইফুল ইসলাম উপজেলার সাংবাদিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময়কালে সাংবাদিকরা গ্রাহকদের অভিযোগগুলো তুলে ধরেন।

বিভিন্ন প্রশ্নে জবাবে ডিজিএম বলেন, চাহিদার বিপরীতে কম বিদ্যুৎ পাওয়ায় সরবরাহ ঠিক রাখা যাচ্ছে না। ফলে নিত্যনৈমিত্তিক শিডিউলের পরিবর্তন আনতে হচ্ছে। আবার প্রতিদিন একই সময়ে একই এলাকায় লোডশেডিং না করার নির্দেশও রয়েছে। তাই প্রতিদিন নতুন করে সিডিউল তৈরি করা হচ্ছে। কিন্তু গ্রাহকদের প্রতিদিন জানানো যাচ্ছে না। তিনি আরও বলেন, ঘাটতি বেশি থাকায় লোডশেডিংয়ে সময়ের ব্যত্যয় ঘটছে। ঘাটতি কম হলে লোডশেডিংয়ের মাত্রা কমবে।

এসময় সাংবাদিকরা শিডিউল ঠিক রাখা, পৌর শহরের সাথে গ্রামাঞ্চলে সমবন্ঠনে বিদ্যুৎ সরবরাহ দেয়ার অনুরোধ জানালে লোডশেডিংয়ের আগামীকাল থেকে শিডিউিল ঠিক রাখার আশ্বাস দেন। এসময় ডিজিএম বলেন, হঠাৎ করে উর্দ্ধতন অফিস থেকে নতুন সিদ্ধান্ত আসে তাই শতভাগ শিডিউল ঠিক রাখা যায় না। এখানে আমাদের হাত নেই।

তিনি গ্রাহকদের অনুরোধ জানিয়ে বলেন, পিক আওয়ারে (সন্ধ্যা ৭ টা- রাত ১১টা পর্যন্ত) ফ্রিজ ও লোডেবল ইলেক্ট্রনিক্স বন্ধ রাখা, অকারণে ঘরের লাইট, ফ্যান বন্ধ রাখাসহ উপজেলাবাসীকে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে সহযোগীতার আহবান জানান।


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin