বৃহস্পতিবার, ১৩ Jun ২০২৪, ১১:০৯ অপরাহ্ন


তুমুল যুক্তিতর্কে নিজেদের প্রতিভা দেখিয়ে দিল শিক্ষার্থীরা : এগিয়ে ছিল মেয়েরা

তুমুল যুক্তিতর্কে নিজেদের প্রতিভা দেখিয়ে দিল শিক্ষার্থীরা : এগিয়ে ছিল মেয়েরা


শেয়ার বোতাম এখানে

নবীন সোহেল: শনিবার সকাল ১০টা। বৃষ্টি চলছে।  তখনো শুরু হয়নি প্রতিযোগিতা।  সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ভিড়। শিক্ষার্থীদের কেউ ঘড়িতে সময় দেখছে, কেউ বইয়ের পাতা ওলটাচ্ছে, কেউবা নিজেদের মতো করে গুছিয়ে নিচ্ছে প্রস্তুতি। সবার চোখেমুখে আনন্দের ছাপ। সঙ্গে তুমুল উত্তেজনা। উদ্দেশ্য—যুক্তিতর্কে মেধা যাচাই।

উপজেলা অডিটোরিয়ামও বর্ণিল সাজে  সাজিয়ে তোলা হয়েছে। গ্রীষ্মের বৃষ্টিকে উপেক্ষা করে সকালে নিজ নিজ দলের শিক্ষকদের নেতৃত্বে খুদে বিতার্কিকেরা হাজির হয়েছে অনুষ্ঠানস্থলে। নিজেদের প্রতিষ্টানকে জেতাতে প্রথম রাউন্ডে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে যুক্তির লড়াইয়ে নেমেছে তারা।

নিয়ম মেনে বিতর্ক প্রতিযোগিতা শুরু হলো সকাল সাড়ে ১০টায়। শিক্ষার্থীরা নামল যুক্তি জয়ের যুদ্ধে। তবে সকল ক্ষেত্রেই এগিয়ে ছিল মেয়েরা।

‘সার্সিং মেরিটস’ স্লোগান নিয়ে আজ শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় বিশ্বনাথ উপজেলার মাধ্যমিক স্কুলের শিক্ষার্থীদের নিয়ে ‘আন্ত:স্কুল সংসদীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা-২০২৪’ এর প্রথম রাউন্ড শুরু হয়।

শিক্ষার মানোন্নয়নের পাশাপাশি মেধা অন্বেষনের লক্ষ্যে বর্ণাঢ্য ও জাকজমকপূর্ণ আয়োজনের মধ্য দিয়ে উপজেলার ১৭টি মাধ্যমিক স্কুলের শিক্ষার্থীদের নিয়ে ২য় বারের মতে এ আয়োজন করে কিউরিয়াস ফর ট্যালেন্ট।

আর ব্যয়বহুল এই প্রতিযোগিতার পৃষ্টপোষকতায় রয়েছেন এমএ মজনু ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান যুক্তরাজ্য প্রবাসী মোহাম্মদ আলী মজনু।

সকাল সাড়ে ১০টায় জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের শুভ সুচনা হয়। পরে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন কিউরিয়াস ফর ট্যালেন্ট’র সভাপতি ও উত্তর বিশ্বনাথ আমজদ উল্লাহ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ নেছার আহমদ।

প্রথম রাউন্ডে প্রতিযোগীতার বিষয়বস্তুু ছিল ‘তথ্য ও প্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষাব্যবস্থা, শিক্ষার্থীর জ্ঞান বৃদ্ধির অন্তরায় এবল তথ্য প্রযুক্তির অবাদ ব্যবহার, উগ্রবাদ বৃদ্ধির প্রধান কারন।
দুইপর্বে এ বিতর্ক প্রতিযোগিতায় উদ্বোধনীর পর প্রথম রাউন্ডে আশুগঞ্জ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়কে হারিয়ে জয়লাভ করে একলিমিয়া উচ্চ বিদ্যালয়। পরবর্তিতে ইলামের গাও উচ্চ বিদ্যালয়কে হারিয়ে উত্তর বিশ্বনাথ উচ্চ বিদ্যালয়, সফাত উল্লাহ উচ্চ বিদ্যালয়কে হারিয়ে পিএমসি উচ্চ বিদ্যালয়, দক্ষিণ বিশ্বনাথ উচ্চ বিদ্যালয়কে হারিয়ে কোনারাই আনোয়ার হোসেন উচ্চ বিদ্যালয় ও সিংগেরকাছ পাবলিক বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজকে হারিয়ে জমির আহমদ বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয় ও চান্দভরাং উচ্চ বিদ্যালয়কে হারিয়ে চাউলধনী স্কুল এন্ড কলেজ জয়লাভ করে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করে।

এদিকে প্রতিযোগী স্কুল উপস্থিত না হওয়ায় রামসুন্দর সরকারি হাইস্কুল ও রাগীব রাবেয়া স্কুল এন্ড কলেজ এবং বাউসী কাশিমপুর উচ্চ বিদ্যালয় কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে। আগামী শনিবার আরও বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে এ বিতর্ক প্রতিযোগিতার কোয়ার্টার ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

দুটি পর্বে বিতর্ক প্রতিযোগিতায় স্পীকারের দায়িত্ব পালন করেন- শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. শরবিন্দু ভট্টাচার্য্য ও মঈনউদ্দিন আদর্শ মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ আবিদুর রহমান।

বিচারকের দায়িত্বে ছিলেন-  নূরজাহান মেমোরিয়াল মহিলা ডিগ্রি কলেজের বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মোহাম্মদ আব্দুল আজিজ, রাগীব রাবেয়া ডিগ্রি কলেজের সহকারী অধ্যাপক কবি খালেদ উদ-দীন ও বুরুঙ্গা ইকবাল আহমদ হাইস্কুল এন্ড কলেজের সিনিয়র প্রভাষক মো. শহিদুল ইসলাম।

অপরদিকে, সদ্য প্রয়াত বিশ্বনাথ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বজলুর রশিদের স্মৃতির প্রতি শোক জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে সংগঠনের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য বিশ্বনাথ ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ছয়ফুল হক, যুক্তরাজ্য প্রবাসী শমসাদুর রহমান রাহিন, ইউপি সদস্য ও সংগঠক শফিক আহমদ-পিয়ারসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকবৃন্দ ও গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দায়িত্বে ছিলেন, কিউরিয়াস ফর ট্যালেন্ট এর সাধারণ সম্পাদক ও চান্দভরাং উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের সহকারী প্রধান শিক্ষক আব্দুল মুমিন মামুন, সদস্য ও বিয়াম ল্যাবরেটোরি স্কুলের অধ্যক্ষ মনিকাঞ্চন চৌধুরী, সদস্য ও দক্ষিণ বিশ্বনাথ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের সহকারী শিক্ষক সমীর কান্তি দে, সদস্য ও চাউলধনী স্কুল এন্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আনহার আলী, এমএ মজনু ট্রাস্টের সদস্য মাহবুবর রহমান।


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin