মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:৩২ পূর্বাহ্ন


বিশ্বনাথে হত্যা মামলার আসামির বাড়ির গেইট-ঘর ভাংচুরের অভিযোগ

বিশ্বনাথে হত্যা মামলার আসামির বাড়ির গেইট-ঘর ভাংচুরের অভিযোগ


শেয়ার বোতাম এখানে

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি
সিলেটের বিশ্বনাথে সিসি ক্যামেরা বন্ধ করে জেলে থাকা হত্যা মামলার প্রধান আসামি আ’লীগ নেতা মাসুক মিয়া (৫০) এর বাড়িতে হামলা ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিনি উপজেলার দশঘর ইউনিয়নের বরুনী গ্রামের মৃত জমির আলীর ছেলে। মাসুক মিয়া একই গ্রামের শেখ গয়াছ মিয়া হত্যা মামলার প্রধান আসামি। তবে নিহত শেখ গয়াছ মিয়ার পরিবারের উপর কোনো অভিযোগ নেই। সুযোগ নিয়েছে তৃতীয় পক্ষ।

মাসুক মিয়ার স্ত্রী জেসমিন বেগম (৪০) জানান, দীর্ঘদিন ধরে তৃতীয় পক্ষের লোক একই গ্রামের বাসিন্দা ও স্থানীয় জামিয়া ইসলামিয়া দারুল উলুম বরুনী মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা নজির মিয়া (৫৩) এর সাথে রাস্তা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। মাওলানা নজির মিয়া বর্তমানে লন্ডনে অবস্থান করছেন। আর ওই মাদ্রাসাটি মাসুক মিয়ার বাড়ির রাস্তার পাশেই অবস্থিত। তার স্বামী মাসুক মিয়া মামলায় গ্রেফতার হয়ে জেল হাজতে থাকায় বাড়িটি পুরুষ শুন্য হয়ে আছে। আর এই সুযোগে তৃতীয় পক্ষের লোকজন গত ৩ জুন রাতে হামলা করে বসত ঘরের দেয়াল ভাংচুর করে ঘরে ঢুকে প্রায় ৫ভরি র্স্বণালংকার ও নগদ প্রায় ৮০হাজার টাকা লুটপাট করে নেয়।

পরদিন তিনি থানায় অভিযোগ দিলে পুলিশ আমলে নেয়নি। ফলে ১০জুন আবারও মাদ্রাসার সিসি ক্যামেরা বন্ধ করে মাদ্রাসার পাশে থাকা তাদের বাড়ির প্রধান গেইট ও দেয়াল ভেঙে দেয়া হয়েছে। এছাড়াও মাদ্রাসার বিদ্যুৎ ব্যবহার করে এই গেইটের ফিলারের রডও কাটা হয়। মুহতামিম মাওলানা নজির মিয়া লন্ডনে অবস্থান করলেও তার ভাড়াটিয়া বরুনী গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দা মুক্তার খান (৫৫) তার দুই ছেলে’সহ গ্রামের প্রায় ১৫/২০জনকে নিয়ে এই ভাংচুর করেন। তবে এই হামলার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন মুক্তার খান।

জানতে চাইলে মাদ্রাসার শিক্ষাসচিব হাফিজ মাওলানা শরিফ উদ্দিন বলেন, ঘটনার দু’দিন পূর্বে এই পাশের সিসি ক্যামেরার লাইন কেবা কাহারা কেটে দিয়েছিল। তবে ঘটনার একদিন পর তিনি ক্যামেরা কাজের লোক নিয়ে আবার চালু করেছেন বলে জানান।

জানতে ওসি গাজী আতাউর রহমান বলেন, তিনি কোনো অভিযোগ পাননি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin