রবিবার, ২৫ Jul ২০২১, ০২:২৪ পূর্বাহ্ন

বিয়ানীবাজারে দারিদ্র্য দূরীকরণে অগ্রণী ভূমিকা রাখছে পিডিবিএফ

বিয়ানীবাজারে দারিদ্র্য দূরীকরণে অগ্রণী ভূমিকা রাখছে পিডিবিএফ


শেয়ার বোতাম এখানে

স্টাফ রিপোর্ট:
সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলার দরিদ্র্য জনগোষ্ঠীর আর্থসামাজিক উন্নয়ন এবং নারী-পুরুষ সমতা বিকাশে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশন (পিডিবিএফ)। এছাড়া দক্ষতা বৃদ্ধি করে উদ্যোক্তা সৃষ্টি করতে নারী-পুরুষকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হচ্ছে। প্রশিক্ষিত করে তাদের মাঝে ঋণ বিতরণ করা হচ্ছে। এতে স্বাবলম্বী হচ্ছে উপেজলার অনেক বেকার যুবক ও নারী।

পিডিবিএফ বিয়ানীবাজার উপজেলা কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯-২০ অর্থবছরে প্রায় দুই কোটি ৫০ লক্ষ টাকা ঋণ বিতরণ করা হয়েছে। এর মধ্যে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ঋণ বিতরণ করা হয়েছে ১ কোটি ৭০ হাজার টাকা। নারী উদ্যোক্তা ঋণ বিতরণ করা হয়েছে ২০ লাখ ৬০ হাজার টাকা। ক্ষুদ্র ঋণ বিতরণ করা হয়েছে ১ কোটি ৬ লাখ টাকা। ঋণের আদায়ের হার ৯৯ শতাংশ।

তাছাড়া ১০০ জন সদস্যকে দক্ষতা উন্নয়ন এবং নেতৃত্বের বিকাশ ও সামাজিক উন্নয়ন প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে।

পল্লী দরিদ্র্য জনগোষ্ঠীর আর্থসামাজিক উন্নয়ন এবং নারী-পুরুষ সমতা বিকাশের উদ্দেশ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশন (পিডিবিএফ) প্রতিষ্ঠা করেন। এই প্রতিষ্ঠানের আওতায় বিয়ানীবাজার উপজেলায় প্রায় ১৫০০ সুফলভোগী সদস্য রয়েছেন। উপজেলার দরিদ্র্য ও অসুবিধাগ্রস্ত জনগোষ্ঠীকে সংগঠিত করার মাধ্যমে ঋণ বিতরণ করা হচ্ছে।

বিয়ানীবাজার উপজেলা সহকারি দারিদ্র্য বিমোচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহবুব হাসান জানান, দারিদ্র্য বিমোচনে তৃণমূল পর্যায়ের মানুষদের স্বাবলম্বী করতে আমাদের এই ঋণ কার্যক্রম চলছে। ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ঋণ ১ লাখ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত দেওয়া হয়। নারী উদ্যোক্তারা সর্বোচ্চ দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ গ্রহণ করতে পারেন। এছাড়া সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা তাদের মূল বেতনের সর্বোচ্চ ১২ গুণ পর্যন্ত ঋণ নিতে পারবেন।

উপজেলা দারিদ্র্য বিমোচন কর্মকর্তা মোঃ আমির হোসেন সরকার জানান, উপজেলা পর্যায়ে দারিদ্র্য তা দূরীকরণে সরকারের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। সততা, দক্ষতা, জবাবদিহিতা ও নিষ্ঠার সাথে এই ঋণ কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালিত হচ্ছে। এ কার্যালয়ে ঋণ বিতরণে কোন অনিয়ম , হয়রানি ও উৎকোচ গ্রহণ করা হয় না।

তিনি বলেন, আমাদের প্রায় ১৫০০ সুফলভোগী সদস্য রয়েছেন। এদের মধ্যে ৮০ শতাংশই নারী সদস্য রয়েছেন। যারা আমাদের কাছ থেকে ঋণ গ্রহণ করে স্বাবলম্বী হয়েছেন। এছাড়া অনেক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীও রয়েছেন এর আওতায়। যারা অল্প পুজি নিয়ে ব্যবসা শুরু করে এখন অনেক বড় ব্যবসায়ী ও স্বাবলম্বী হয়েছেন । বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয় নিয়ে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে এই প্রতিষ্ঠান সরকারের হাতকে আরও শক্তিশালী করবে বলে জানান তিনি।


শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin