রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৪৬ পূর্বাহ্ন


ভাতিজাকে অপহরণ করে মুক্তিপন দাবি, দুদিন পর উদ্ধার

ভাতিজাকে অপহরণ করে মুক্তিপন দাবি, দুদিন পর উদ্ধার


শেয়ার বোতাম এখানে

প্রতিদিন ডেস্ক
ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলা থেকে অপহরণের দুদিন পর ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে স্কুলছাত্র রিয়াদ হোসেনকে (১০) উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুরে পুলিশ কেরানীগঞ্জের মহুরী পট্টি এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে উদ্ধার করে।
এ ঘটনায় তাইজুল ইসলাম ওরফে স্বপন ওরফে মুন্না নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
পুলিশ জানায়, অসুস্থ মায়ের জন্য নাস্তা আনার কথা বলে মুন্না ওই স্কুলছাত্রকে তার বাড়ি থেকে নিয়ে আসেন। এরপর স্থানীয় বাজারে যাওয়ার পথে রিয়াদকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ঢাকা নিয়ে যান তিনি। মুন্না ওই স্কুলছাত্রকে অপহরণের পর থেকে তিন লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে আসছিলেন। টাকা না দিলে তাকে খুন করারও হুমকি দেন তিনি। গত রোববার পুলিশ ওই স্কুলছাত্রের বাবা ফারুক হোসেনকে সঙ্গে নিয়ে মুন্নার মুঠোফোন ট্র্যাক করে কেরানীগঞ্জের মুহুরী পট্টী এলাকায় অভিযান চালিয়ে স্কুলছাত্র রিয়াদকে উদ্ধার করে।
কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইউনুচ আলী জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কালীগঞ্জ থানা পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে কেরানীগঞ্জে জনৈক সাগরের ভাড়া বাড়ি থেকে স্কুলছাত্র রিয়াদকে উদ্ধার করে। এ সময় মুন্নাকে গ্রেপ্তার করা হয়।
ওসি আরও জানান, এ ঘটনায় অপহৃত স্কুলছাত্রের বাবা ফারুক হোসেন বাদী হয়ে অপহরণকারী মুন্নাসহ তিনজনকে আসামি করে একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেছেন। মামলার বাকি দুই আসামি মুন্নার বাবা শুকুর মোল্লা ও মুন্নার স্ত্রী সুইটি আক্তার আনোয়ারা পালাতক রয়েছেন।
উল্লেখ্য, গত শনিবার সকালে অপহরণকারী মুন্না কেরানীগঞ্জের বগেরগাছি গ্রামের ফারুক হোসেনের ছেলে রিয়াদ হোসেনকে তাদের বাড়ি থেকে অপহরণ করেন। পরিবারের লোকজন অনেক খোঁজাখুজি করেও রিয়াদ ও অপহরণকারী মুন্নার কোনো খোঁজ না পেয়ে পরদিন রোববার রিয়াদের বাবা কালীগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অপহরণকারী মুন্না সস্পর্কে রিয়াদের বাবা ফারুক হোসেনের ফুফাতো ভাই।

শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin