বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:১৩ পূর্বাহ্ন


ভিডিও ধারণ করে বিএনপির সম্পাদককে জুতাপেটা করলেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান : অত:পর

ভিডিও ধারণ করে বিএনপির সম্পাদককে জুতাপেটা করলেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান : অত:পর


শেয়ার বোতাম এখানে

স্টাফ রিপোর্ট
২০১৯ সালে সিলেটের বিশ^নাথ উপজেলা বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিনকে জুতাপেটা করার পর এবার ভিডিও ধারণ করে দলটির বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ও অলংকারী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান লিলু মিয়াকে প্রকাশ্যে জুতাপেটা করেছেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও সাবেক জেলা বিএনপি নেতা সুহেল আহমদ চৌধুরী।

ঘটনাটি ঘটে শুক্রবার (১ মার্চ) রাতে দিকে বিশ^নাথ পৌরশহরের পুরান বাজারের কলেজ রোডস্থ থানা মসজিদের সামনে। ঘটনার কয়েকটি ভিডিও ক্লিপ ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

এ ঘটনায় বিএনপি নেতা সুহেল আহমদ চৌধুরীর বিরুদ্ধে মারপিটে জখম ও চুরির মামলা দায়ের করেন উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক লিলু মিয়া। শনিবার (২ এপ্রিল) বিকেলে বিশ্বনাথ থানায় এই মামলাটি, (মামলা নং-৩)। মামলার এজাহারে দুজনকে আসামি করা হয়েছে। আরও ৭/৮ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি রাখা হয়েছে। এজাহারনামীয় দুই আসামিরা হলেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সুহেল আহমদ চৌধুরী ও দ্বিতীয় আসামি জাহাঙ্গীর আলম নামের এক যুবদল নেতা।

থানার ওসি গাজী আতাউর রহমান মামলার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বাদি লিলু মিয়া তার এজাহারে উল্লেখ করেছেন যে শুক্রবার রাতে পূর্ব বিরোধের জের ধরে বিশ্বনাথ রশিদপুর রোডের কারিকোনা মসজিদের কাছে আসামিরা বাদিকে আটকিয়ে মারপিট করে টাকা পয়সা নিয়ে গেছে। আর এঘটনায় তিনি থানায় মামলা দিয়েছেন।

এদিকে, এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে লিলু মিয়া ও সুহেল চৌধুরী বলয়ের নেতাকর্মীদের মধ্যে যেকোনো সময় সংঘর্ষের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

বিশ^স্ত সূত্রের মাধ্যমে ভিডিও ক্লিপগুলো এসেছে এই প্রতিবেদকের হাতেও। ওই ভিডিও ক্লিপসের একটিতে দেখা যায়, ‘তোরে উপজেলা বিএনপির সেক্রেটারী আমি বানাইছি। আমি নেতা বানাইছি। তোরে কে চিনতো। তুই আমার লগে বিরোধিতা করোস। তুই মনো করোস জানাইয়ার (স্থানীয় গ্রাম) পুয়াইনতে তরে বাচাইলিবা।’-এসব বলে ঘটনাস্থলে উপস্থিত একজনকে ভিডিও করার নির্দেশ দিয়ে জুতা দিয়ে লিলু মিয়াকে পেটাচ্ছেন সুহেল আহমদ চোধুরী।

এর আগে, কমিটি নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে ২০১৯ সালের ৬ নভেম্বর রাতে উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সদর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান জালাল উদ্দিনকে বিশ^নাথ থানার বিপরীতে একটি মার্কেটের ২য় তলায় ডেকে নিয়ে জুতাপেটা করেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সুহেল আহমদ চৌধুরী।

গতকালের ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইলে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও অলংকারী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান লিলু মিয়াকে কল দিলে তিনি রিসিভ করেননি। তবে, উপজেলা বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘আমার সহযোদ্ধা উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক লিলু মিয়া গতকাল রাত ৯টার দিকে বিশ^নাথ থানা মসজিদের সামনে সুহেল চৌধুরী নামের ডাকাতের হাতে লাঞ্চিত হয়েছেন। তিনি আমাদের দলের কেউ নয়। তার বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।’

এব্যাপারে সুহেল আহমদ চৌধুরী বলেন, একই বাস গাড়িতে করে দু’জন যাত্রী ছিলাম। কিন্তু ভাড়া নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে বাসের কন্ট্রাকটার লিলু মিয়াকে থাপ্পড় মারলে আমি সমাধান করে তাকে গাড়ি থেকে নামিয়ে দেই। আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা।


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin