সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৫০ পূর্বাহ্ন


রক্তের ফেরিওয়ালা রুবেল

রক্তের ফেরিওয়ালা রুবেল


শেয়ার বোতাম এখানে

সোহেল আহমদ সুহেল
২০১৩ সালে আমার মামীর যখন ব্লাড ক্যান্সার হয়, তখন তার জন্য প্রতিদিন রক্ত লাগবে বলে ডাক্তার জানান। উনার রক্তের গ্রুপ ছিলো এবি নেগেটিভ। এই গ্রুপের রক্ত পাওয়া খুব কষ্টকর ছিল। রক্ত সংগ্রহে অনেক খুঁজাখোজি করতে হয়েছে। তখন বুঝেছিলাম মানুষের জীবনে রক্ত কী জিনিস। সেই থেকে প্রতিজ্ঞা করেছিলাম রক্তের অভাবে কাউকে মরতে দিবনা। সেই থেকে রক্তের পেছনে ছুটছি। কথাগুলো সিলেটের সদর উপজেলার লামাকাজী খালপাড় গ্রামের মৃত আব্দুল হামিদের ছেলে রুবেল আহমদ রবি’র। ২৭ বছরের সেই তরুণটি নিজে ২৪বার রক্ত দিয়েছেন। তার সেই স্বপ্নকে পূরণ করতে গড়ে তুলেছেন স্বপ্নপূরণ তরুণ রক্তদান ও সমাজ কল্যাণ সংগঠন। গত ৭ বছরে তার সেই স্বপ্নটি বাস্তবে রুপ দিয়েছেন রুবেল। তাইতো নিজে একজন রক্তের ফেরিওয়ালা নামে সর্বমহলে সুপরিচিতি লাভ করেছেন।
রুবেল আহমদ রবির সাথে কথা হলে তিনি জানান, ২০১৩ সাল থেকে তিনি স্বেচ্ছায় রক্ত দেওয়ার কাজে লিপ্ত। এ পর্যন্ত রক্ত দিয়েছেন ২৪ বার। শুধু নিজের শরীর থেকে রক্ত দেওয়ার মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়, অন্যের জীবন বাঁচাতে রক্ত সংগ্রহও করে দেন রুবেল। আর রুবেলের আগ্রহ তৈরি করেছেন ‘রক্ত দিন-জীবন বাচাঁন’ সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও আরেক রক্তের ফেরিওয়াল রেদওয়ান কবির মাসুদ। সিলেটের গড়ে তোলা এ সেচ্ছাসেবী সংগঠনের প্রচারণার কাজ চলে মূলত অনলাইনের মধ্য দিয়ে। সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত সবাই বিভিন্ন স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। তারা ফেসবুকে ফ্রেন্ডস গ্রুপ করে রক্ত সংগ্রহ কার্যক্রম পরিচালনা করে। উৎসাহ জোগায় রক্তদানে। তাদের ফেসবুক পেজে আছে হাজার হাজার ফলোয়ার। সংগঠনের কার্যকরী সদস্য ও শুভাকাক্ষী হিসেবে যুক্ত আছেন অর্ধ শতাদিক রক্তদাতা। এ প্রক্রিয়ায় তারা এ পর্যন্ত কয়েক হাজার নারী-পুরুষকে রক্ত দিয়ে সহায়তা করেছে। সিলেট ছাড়াও ফেসবুক ও মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ঢাকা, চট্রগ্রাম, কুমিল্লা, খুলনাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় রক্ত জোগাড় করে দিয়েছে সংগঠনের সদস্যরা। এছাড়া গ্রামে গ্রামে বিনা মূল্যে ব্লাড ক্যাম্পেইন করেও মানুষের মধ্যে রক্তদানের উৎসাহ তৈরি করা হয়। রুবেল আরও জানান, এখন তিনি গড়ে প্রতিদিন ২/৩ ব্যাগ রক্ত সংগ্রহ করে দিতে হয়।
রুবেল আহমদ রবি প্রতিষ্ঠানিক শিক্ষায় তেমন একটা শিক্ষিত না হলেও সামাজিক শিক্ষা তিনি একজন উচ্চশিক্ষিত যুবক বলা যায়। নিজেই উদ্যোগী হয়ে গড়ে তুলেছেন বেশ কয়েকটি রক্তদাতা সংগঠন। এরমধ্যে স্বপ্ন রক্তদান ও সমাজ কল্যাণ সংস্থা, মানবসেবা সমাজ কল্যাণ সংস্থা, স্বপ্নপূরণ তরুণ রক্তদান ও সমাজ কল্যাণ সংস্থা এবং মানবতার ফেরিওয়ালা নামক সংগঠনগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ জনপ্রিয়। রুবেল আহমদ সদর উপজেলার ৭নং মোগলগাও ইউনিয়নের সংঘ প্রকল্পের ইউনিয়ন যুব ফোরামের সভাপতি। এছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক ও সেবামূলক সংগঠনের সাথে জড়িত থেকে সমাজ ও মানব সেবায় কাজ করে যাচ্ছেন।
রুবেল বলেন, এখন শুধু রক্তদাতা কিংবা রক্ত জোগানদাতা সংগঠন নয়, এগুলো এখন এক একটি সামাজিক সংগঠনে রূপান্তরিত হয়েছে। সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে আমরা রমজানে ইফতারসামগ্রী, পথশিশুদের ঈদবস্ত্র, শীতবস্ত্র, বন্যার্তদের ত্রাণ দেওয়াসহ নানা কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকি।
এ প্রসঙ্গে সিলেট সদর উপজেলার চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আশফাক আহমদ রুবেল আহমদের কাজের প্রশংসা করে বলেন, ‘মানুষের সেবায় তরুণরা এগিয়ে আসায় সমাজ উপকৃত হচ্ছে। এভাবে সব তরুণরা কাজ করলে দেশ এগিয়ে যাবে।


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin