রবিবার, ১৩ Jun ২০২১, ০৩:০৬ অপরাহ্ন

শীতে হাত পায়ের চামড়া ওঠা বন্ধ করবেন

শীতে হাত পায়ের চামড়া ওঠা বন্ধ করবেন


শেয়ার বোতাম এখানে

স্বাস্থ্য ডেস্ক:
শীতে হাত ও পায়ের চামড়া ওঠা খুবই সাধারণ রোগ। তবে বছরজুড়েই যদি হাত-পায়ের চামড়া ওঠে, তাহলে এটি অবশ্যই সমস্যা।

হাত-পায়ের চামড়া ওঠাকে চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় কেরাটোলাইসিস এক্সফোলিয়াটিচা বলা হয়।

চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায়, হাত-পায়ের চামড়া ওঠার প্রথম কারণ হচ্ছে- জিনগত বা বংশগত। এর বাইরে পুষ্টিহীনতা ও ত্বকের পরিচর্যায় অবহেলা থেকেও চামড়া ওঠে। চামড়া উঠে যাওয়ায় শরীরের সৌন্দর্য নষ্ট হয়ে যায়।

তবে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার কিছু উপায় রয়েছে।

আসুন জেনে নিই কী করবেন-

১. হাতের চামড়া উঠে যাওয়ার জন্য তিলের তেল, গ্লিসারিন ও গোলাপজল সমপরিমাণে মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন।

এছাড়া জলপাইয়ের (অলিভ) তেলও ব্যবহার করতে পারেন। পায়ের চামড়ার জন্য মধু, গ্লিসারিন, লেবুর রস ও ঘৃতকুমারীর রস একসঙ্গে মিশিয়ে নির্দিষ্ট জায়গায় লাগাতে হবে। বিশেষ করে রাতে খাবার শেষে যখন ঘুমোতে যাবেন, তার ঠিক ৩০ মিনিট আগে লাগিয়ে রাখুন। তারপর পায়ে পাতলা মোজা পরে ঘুমোতে যান।

৩. সয়াবিন গুঁড়ো হাত-পায়ের চামড়া উঠে যাওয়া বন্ধে খুবই উপকারী। সয়াবিন কড়াইয়ে দিয়ে হালকা আঁচে কিছুক্ষণ নেড়ে গুঁড়ো করে নিন। এরপর সেটি দিয়ে হাত ও পা ধুতে পারেন। এরপর ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন।

৪. হাতে পানি যত কম লাগানো যায় ততই ভালো। রান্নাঘরের কাজ, গোসল কিংবা হাত-পায়ে পানি লাগতে পারে, এমন কাজ করার পর দ্রুত শুকনো তোয়ালে দিয়ে হাত মুছে শুকিয়ে ফেলুন। একইভাবে পা মুছে নিলে ভালো হয়।

৫. খাদ্য তালিকায় সুষম খাদ্য রাখুন। যেমন- আমিষ, লৌহ, জিঙ্ক, ভিটামিন-এ, ই ও সি। পুষ্টিহীনতার কারণে চামড়া উঠা বন্ধ হবে।

৬. গরম পানির মধ্যে আধা চামচ শ্যাম্পু ও একটু লবণ দিয়ে ১০ থেকে ১৫ মিনিট হাত-পা ডুবিয়ে রাখতে পারেন। নির্দিষ্ট সময় শেষে ব্রাশ দিয়ে হাত-পা ঘষবেন। দেখবেন, হাত-পায়ের মরা চামড়া উঠে যাবে।

হাত ও পায়ে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন।

 

লেখক : কন্সালট্যান্ট ডার্মাটোলজিস্ট অ্যান্ড ডার্মাটো সার্জন, ডা. আজমল হাসপাতাল লিমিটেড, মিরপুর, ঢাকা।


শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin