শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:০৬ অপরাহ্ন


সংস্কৃতিই হচ্ছে একটি জাতির মূল পরিচয়

সংস্কৃতিই হচ্ছে একটি জাতির মূল পরিচয়


শেয়ার বোতাম এখানে

 অভিনেত্রী শমী কায়সার

মবরুর আহমদ সাজু
ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে বাংলাদেশ অনেকদূর এগিয়ে গেছে বলতেই হয়। সরকারের জোরালো পদক্ষেপের ফলে বিগত কয়েক বছরে ডিজিটাল বা তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর প্রশাসন ব্যবস্থা, ব্যবসা-বাণিজ্য, কৃষি, স্বাস্থ্যসেবা, শিক্ষা, জনসেবাসহ বিভিন্ন খাতে উল্লেখযোগ্য উন্নয়ন লক্ষ করা যায়। বর্তমানে সারাদেশ ৪-জি নেটওয়ার্কের আওতায় প্রবেশ করেছে।বাংলাদেশের সব বড় ই-কমার্স প্লাটফর্ম। গতকাল অনুষ্ঠিত ই-কমার্স মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ই-ক্যাব) কার্যকরী পরিষদের সভাপতি জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক শমী কায়সার সিলেটে আসলে দৈনিক শুভপ্রতিদিনের সাক্ষাৎকারে তিনি এসব কথা বলেন। সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন আমাদরে প্রতিবেদক মবরুর আহমদ সাজু
শমী কায়সার কে সবাই জানে, বাংলাদেশের খ্যাতিমান অভিনেত্রী, প্রযোজক ও নির্মাতা তাঁর বাবা নিহত বুদ্ধিজীবী শহীদ শহিদুল্লাহ কায়সার ও মা পান্না কায়সার পান্না কায়সারের মেয়ে। শমী কায়সার বর্তমানে মিডিয়ায় খুব একটা সময় দিতে না পারলে ও ব্যবসায়িক সংগঠন এফবিসিআইর পরিচালক হিসেবে ফেনী-৩ আসন থেকে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন কিন্তু সময় আর বাস্তবতায় হয়ে উঠেনি বলে তিনি জানান।
বড় বড় বিদেশি কোম্পানিগুলো কেন হঠাৎ এতটা আগ্রহী হয়ে উঠেছে বাংলাদেশ নিয়ে? বাংলাদেশে ই-কমার্সের অবস্থা আসলে কী? (ইক্যাব) প্রেসিডেন্ট শমী বলেন দেশ নেত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে অনেক এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ বিশেষ করে তার পূত্র সজীব ওয়াজেদ জয় তথ্য প্রযুক্তিতে নিবেদিত।
বাংলাদেশে ই-কমার্স বাড়ছে খুবই দ্রুত। গত তিন বছর ধরে এই খাতের প্রবৃদ্ধি প্রায় কয়েক গুণ অর্থাৎ প্রতি বছর প্রায় দ্বিগুন হয়ে যাচ্ছে এই খাত। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন সবে মাত্র শুরু হয়েছে বিভাগীয় শহরে সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে ই-কমার্সের প্রবৃদ্ধি নিয়ে তিনি জানান ২০১৬ সালে বাংলাদেশের ই-কমার্স খাতে ৭২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি ঘটেছে যা বাংলাদেশে ই-কমার্সের ইতিহাসে অত্যন্ত আশাপ্রদ অগ্রগতি। বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিসংখ্যান মতে, জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর ২০১৬-তে মোট ৩.৫৯ বিলিয়ন টাকা (৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার) ই-কমার্সের মাধ্যমে লেনদেন হয়েছে যা ২০১৫ সালে রেকর্ড মতে ২.১৬ বিলিয়ন টাকা (৩০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার) ছিলো। দেশে ডেবিট কার্ড অপেক্ষা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারকারীর সংখ্যা অধিক এবং ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৬০ মিলিয়নের অধিক যা দেশের মোট জনসংখ্যার প্রায় এক-তৃতীয়াংশ।
শমী বলেন,
ই-কমার্স হলো ইন্টারনেট নেটওয়ার্কের মাধ্যমে ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি যেমন ব্যক্তিগত কম্পিউটার, ল্যাপটপ, ট্যাবলেট, মোবাইল ফোন ইত্যাদি ব্যবহার করে ওয়েব ও ইলেক্ট্রনিক ডাটা আদান-প্রদানের মাধ্যমে সকল প্রকারের ভৌত এবং ডিজিটাল পণ্য ও সেবা ক্রয়-বিক্রয় করাকে বোঝায়। এটি মূলত অনলাইনে ব্যবসা পরিচালনার একটি আধুনিক ডিজিটাল মাধ্যম, যা সরকারের বিভিন্ন ক্ষেত্রসমূহের মধ্যে সমন্বয় সাধন, ব্যবসায়িক লেনদেন ও যোগাযোগ সহজীকরণ এবং সারাদেশে ব্যাপকহারে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করে। ক্রমবিকাশমান বিশ্বায়ন প্রক্রিয়ার কারণে ই-কমার্সের পরিধি এবং জনপ্রিয়তা বিশ্বব্যাপী বেড়ে চলেছে।

শমী কায়সার ই-কমার্স খাতের উল্লেখযোগ্য ইতিবাচক দিকগুলো সম্পর্কে বলেন আন্তর্জাতিক মূল্য প্রক্রিয়ার সাথে সম্পৃক্ততা হওয়ার সুযোগ সৃষ্টি; বিশাল বাজারে প্রবেশ ও গবেষণার অবাধ সুযোগ সৃষ্টি; অভ্যন্তরীণ বাজারের দক্ষতা উন্নয়ন ও বৃদ্ধি; সহজ ও স্বল্প লেনদেন ব্যয়; নতুন রপ্তানী বাজার সৃষ্টি ও রপ্তানী আয় বৃদ্ধি; এসএমইসহ চাহিদাভিত্তিক নতুন শিল্পায়ন; ক্ষেত্রভিত্তিক নতুন ব্যবসায়ী উদ্যোক্তা সৃষ্টি; অধিকতর নতুন কর্মসংস্থানের ক্ষেত্র সৃষ্টি;

অভিনয় জীবনে নিয়ে জানতে চাইলে শমী কায়সার বলেন, আমি ঢাকা থিয়েটারে ১২ বছর ধরে কাজ করি বহু বছর আগে ১৯৮৯ সালে নোয়াখালীর একটি আঞ্চলিক ভাষার নাটক ‘কেবা আপন কেবা পর’ নাটকে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে নাটকের জীবন শুরু হয় নাটকটি পরিচালায় ছিলেন আতিকুল হক চৌধুরী এর পর কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলনের উপন্যাস অবলম্বনে এবং আবদুল্লাহ আল মামুনের পরিচালনায় তিন পর্বের ধারাবাহিক নাটক ‘যত দূরে যাই’-এ অভিনয় করি ড. সেলিম আল দীনের ‘হাত হদাই’ নাটকে অভিনয় করার সুযোগ হয় চলচ্চিত্র নির্মাতা ঋত্বিক ঘটকের জীবনী নিয়ে নির্মিত ‘দ্য নেম অব এ রিভার’ (২০০২) সিনেমায় অভিনয় করি
সংস্কৃতি নিয়ে শমী কায়সার বলেন, সংস্কৃতিই হচ্ছে একটি জাতির মূল পরিচয় যেমন আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের মূল ভিত্তিটাই ছিল সংস্কৃতি সংস্কৃতিবিহীন কোনো জাতি হতে পারে না কোনো মানুষ প্রকৃত সংস্কৃতিবান না হলে প্রকৃত শিক্ষিত হতে পারে না
সাংস্কৃতিক অঙ্গনের উদ্যোগে সরকারের ভূমিকা নিয়ে শমী কায়সার বলেন আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর মুক্তিযুদ্ধের সঠিক আদর্শের সরকার ক্ষমতায় এসেছে প্রধানমন্ত্রী ২০০৮ সালে ক্ষমতায় আসার পর ২০১৮ পর্যন্ত সংস্কৃতিবোধের উন্নয়নের জন্য সবচেয়ে বেশি কাজ করেছেন
ফেনী নুসরাত নিয়ে নিয়ে তিনি বলেন এটি আসলে খুব দুঃখজনক বিষয় যে, যা বলার ভাষা নেই আমি চাই এর সঠিক বিচার যেন হয়।
ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান এফবিসিসিআইর পরিচালক হিসেবে ফেনীতে ব্যবসায়িক নেতাদের সঙ্গে এখানকার ব্যবসা-বাণিজ্যের উন্নয়ন নিয়ে কোনো আলোচনা হয়েছে কি
শমী কায়সার ফেনী চেম্বার অব কমার্স কিংবা কোনো ব্যবসায়িক সংগঠনের সঙ্গে আলাদাভাবে ওভাবে বসা হয়নি আশা করি, সামনেই আমরা বসব কারণ, এরই মধ্যে আমাদের ইকোনমিক জোনের কাজ শুরু হয়েছে

দেশের চলচ্চিত্র নিয়ে শমী কায়সার বলেন আরে বাংলাদেশ আর বর্তমান বাংলাদেশ এক নয়। আমার কাছে যেটা মনে হয় যে আমাদের দেশে ভালো লেখক, গল্পকার, চলচ্চিত্র নির্মাতা রয়েছে, তবে চলচ্চিত্রের জন্য আলাদা কোনো ইনস্টিটিউট নেই আমাদের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে তথ্য চলচ্চিত্র অধিদপ্তরের আওতায় একটি চলচ্চিত্র ইনস্টিটিউট হচ্ছে শিগগিরই গাজীপুরে এর কাজ শুরু হবে এটি শুরু হলেই আমাদের চলচ্চিত্রে আরো বেশি পেশাদারিত্ব আসবে আন্তর্জাতিক মানের সিনেমা তৈরি হবে বাংলাদেশে নাটক ও চলচ্চিত্রের ভবিষ্যৎ কী জানতে চাইলে শমী কায়সার বলেন বাংলাদেশে চলচ্চিত্র ও নাটকের অবস্থা একেবারেই খারাপ, এটা বলা যাবে না সাম্প্রতিককালে অনেক ভালো কিছু চলচ্চিত্র, নাটক তৈরি হচ্ছে অনেক নতুন নির্মাতা দেখতে পাচ্ছি, যাদের প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে সে হিসেবে আমাদের দেশে যে চলচ্চিত্র ইনস্টিটিউট তৈরি হচ্ছে, তা অবশ্য ভবিষ্যতে ভালো কাজ হবে
সংসদ নির্বাচন সর্ম্পকে শমী বলেন, আজ হয় নি আগামিতে হবে। দেখেন আমি শহীদ পরিবারের সন্তানফেনী-৩ আসন আমার এলাকা, আমার জন্মভূমি, সে হিসেবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের হয়ে আমি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে চাই, যদি নেত্রী আমাকে যোগ্য মনে করেন তাহলে আমি একদিন সংসদে যাবো। আমি জীবনের শেষ পর্যন্ত মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করে আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে যাব আমি এলাকায় সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক কার্যক্রমে অংশ নিচ্ছি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যদি আমাকে যোগ্য মনে করে প্রার্থী করেন, তাহলে আগামী সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে চাই আমার বিশ্বাস, কাজটি আমি নিষ্ঠার সঙ্গে করতে পারব মোটকথা, আওয়ামী লীগের বিজয় মানে বাংলাদেশের সার্বিক উন্নয়নের বিজয়।


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin