মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ০৮:৫৯ পূর্বাহ্ন

সক্ষমতার পথে শ্রীমঙ্গলের চা নিলাম কেন্দ্র : নিলাম শুরু

সক্ষমতার পথে শ্রীমঙ্গলের চা নিলাম কেন্দ্র : নিলাম শুরু


শেয়ার বোতাম এখানে

বিকুল চক্রবর্তী, মৌলভীবাজার থেকে:

প্রথমবারের মতো শুধুমাত্র শ্রীমঙ্গলের ব্রোকার হাউজ দ্বারাই সম্পন্ন হয়েছে চলমান মৌসুমের প্রথম অকশন। আর এ অকশনে ঢাকা ও সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে প্রায় ৩০জন বিডার অংশনেন বলে জানান বাংলাদেশ চা বোর্ডের প্রকল্প উন্নয়ন ইউনিটের পরিচালক ড. রফিকুল হক। তিনি জানান, করোনার মর্তে কড়া শর্তকতায় নিরাপদ দুরত্ব বজায় রেখে এ অকশন পরিচালিত হয়। তিনি জানান, অনান্য অকশনের চেয়ে এর পরিসর কিছুটা ছোট হলেও এটি শ্রীমঙ্গলের চা নিলাম কেন্দ্রের জন্য মাইফফলক। কারন এই অকশনটি পরিচালনা করে শ্রীমঙ্গলের দুটি ব্রোকার্স হাউজ। যা এ অকশন হাউজ স্বয়ংসম্পুন্নতার দিকে অগ্রসর হচ্ছে বলেও তিনি মনে করেন।

শ্রীমঙ্গল ব্রোকার্স লিমিটেডএর ব্যবস্থাপরা পরিচালক মো: হেলাল আহমদ জানান, করোনার কারনে এ অকশনে চট্টগ্রাম থেকে অনান্য ব্রোকার হাউস আসেনি। তাই শ্রীমঙ্গলের দুটি ব্রোকার্স হাউজই তা পরিচালনা করে এবং এই অকশনে ভায়ারদেরও স্বতসফুর্ত উপস্থিতি ছিলো। তিনি জানান, তাদের ব্রোকার্স হাউজের নিলামে উত্তোলিত চায়ের ৮০ ভাগই বিক্রি হয়েছে। সর্বোচ্চ ২৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয় শ্রীমঙ্গল ক্লোনেল বাগানের চা।

শ্রীমঙ্গলস্থ, টি ট্রেডার্স অ্যান্ড প্ল্যান্টারস অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ এর পরিচালক জহর তরফদার জানান, ‘টি ট্রেডার্স অ্যান্ড প্ল্যান্টারস অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ’-এর ব্যবস্থাপনায় শ্রীমঙ্গলে দ্বিতীয় চা নিলাম কেন্দ্রে চলতি মৌসুমের প্রথম নিলাম সম্পন্ন হয়েছে বুধবার। এখন থেকে শ্রীমঙ্গল অকসন হাউজে প্রতিমাসে দুটি করে নিলাম অনুষ্ঠিত হবে। প্রথমদিনের নিলামে ১৮,৭০০ কেজি চা বিক্রি হয়েছে। আর গড় দর পাওয়া গেছে ২২০ টাক। তিনি জানান, শ্রীমঙ্গলের দুটি ব্রোকার্স হাউজ এর মধ্যে রুপসী বাংলা ব্রোকার হাউজের অফিস শ্রীমঙ্গল আজিজ সুপার মার্কেট ও শ্রীমঙ্গল টি ব্রোকার্স হাউজের অফিস শ্রীমঙ্গল রামকৃষ্ণ মিশন রোডে। দুটি প্রতিষ্ঠানের নিলাম ডাকে বিডার্সদের স্বতস্পুর্ত অংশগ্রহন ছিল।

টি ট্রেডার্স অ্যান্ড প্ল্যান্টারস অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ এর সিনিয়র সদস্য সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী জানান, এবছর করোনাভাইরাসের কারণে কিছুটা বিলম্বে শ্রীমঙ্গলে চা নিলাম পক্রিয়া শুরু হয়েছে। বুধবার (৩জুন) অনুষ্ঠিত নিলামে দেশের নানা প্রান্ত থেকে চা পাতার ক্রেতা ও বিক্রয় প্রতিনিধিরা অংশ নেন।

এ বছর আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় চা উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে, যার ফলে প্রতি নিলামে চা পাতা উত্তোলন ও বিক্রি বৃদ্ধি হওয়ার আশাবাদী চা সংশ্লিষ্টরা।
শ্রীমঙ্গল চা ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি চেরাগ আলী জানান, দেশের ১৬৭টি চা বাগানের মধ্যে শুধূ মৌলভীবাজারেই রয়েছে ৯২টি চা বাগান। এ অঞ্চলের উৎপাদিত চা দুবছর আগেও চট্রগ্রামের নিলাম কেন্দ্রে নিয়ে বিক্রি করতে হতো। ২০১৭ সালের ৮ ডিসেম্বর শ্রীমঙ্গলে দেশের দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক চা নিলাম কেন্দ্র উদ্বোধনের মধ্যে দিয়ে ২০১৮ সালে আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়েছিল।

টি ট্রেডার্স অ্যান্ড প্ল্যান্টারস অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ এর পরিচালক জহর তরফদার আরো জানান, এবছর চায়ের উৎপাদন বৃদ্ধির ফলে দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশে রপ্তানির সুযোগ বেড়েছে। এই মৌসুমে প্রতি সোমবার চট্টগ্রামে চা নিলাম অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া মাসের প্রথম ও তৃতীয় সপ্তাহের বুধবার শ্রীমঙ্গলে চা নিলাম হওয়ার কথা রয়েছে। ইতোমধ্যে চট্রগ্রামে মৌসুমের দুটি নিলাম সম্পন্ন হয়েছে। এ বছর চট্টগ্রামে ৪২টি ও শ্রীমঙ্গলে ২০টি চা নিলাম অনুষ্ঠিত হবে।
করোনাভাইরাসের বন্ধের মধ্যেও দেশের বিভিন্ন বাগানে চা উৎপাদন চালু রাখা হয়েছিল। অন্যদিকে পরিমিত বৃষ্টি ও আদ্রতা অনুকুলে থাকায় মৌলভীবাজারে চা উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে। এবছর লক্ষমাত্রা ছাড়িয়ে যাওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।



শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin