শনিবার, ১৯ Jun ২০২১, ০৭:১৮ অপরাহ্ন

সিলেটে অনলাইন কেনাকাটায় বাড়ছে প্রতারণা

সিলেটে অনলাইন কেনাকাটায় বাড়ছে প্রতারণা


শেয়ার বোতাম এখানে

মবরুর আহমদ সাজু
সিলেটে অনলাইন কেনাকাটায় জনপ্রিয়তার মধ্যে বাড়ছে প্রতারণা। এতে ক্রেতাদের আস্থার সংকট সৃষ্টি হচ্ছে। ফলে জনমুখী এই অনলাইন ব্যবসার ভবিষ্যত নিয়ে এখনই প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। খুব অল্প সময়ের মধ্যে নিজের অর্ডার করা পণ্য ডেলিভারি পেয়ে ক্রেতারাও আগ্রহী হয়ে উঠছেন অনলাইন কেনাকাটায়। বিশেষ করে তাজা মাছ, মাংস, তরিতরকারি থেকে শুরু করে টিভি, ফ্রিজ, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য, ভোগ-বিলাসের পণ্য বিক্রি হচ্ছে অনলাইনে। এসব কিনতে এখন আর বাজারে দৌড়াতে হয় না।
কিন্তু কিছু অসৎ ব্যবসায়ী গ্রাহকদের সাথে প্রতারণা করায় ক্রেতার আগ্রহ সৃষ্টি হচ্ছে না। ক্রেডিট কার্ড বা বিকাশে মূল্য পরিশোধ করা যায়। এ কারণে কেনাকাটায় জনপ্রিয়তা পায় অনলাইন ব্যবসা। তবে ক্রেতারা এ নিয়ে তাদের হতাশার কথা জানালেন।

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী জান্নাত শুভ্রা মনি বলেন, অনলাইনে অনেক পণ্যের সমাহার আছে তাই আধুনিক এ কেনাকাটা করতে বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। তবে অনলাইনে কিছু গাফলতি রয়েছে। পণ্য কিনে পরিবর্তন করতে চাইলে আর সাড়া মিলে না ব্যবসায়ীদের। বেশিরভাগ সময় পণ্যে কোয়ালিটি থাকে না।

দক্ষিণ সুরমা ডিগ্রি কলেজের ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক সুমন রায় বলেন, অনলাইন কেনাকাটা ভালো, সময় বাঁচে। কিন্তু প্রতারণার মাত্রাও কম নয়। নামসর্বস্ব প্রতিষ্ঠান নিম্নমানের পণ্য পাঠায়, হয়রানি করে। দেরিতে ডেলিভারী দেয়। অনেক সময় ভুল পণ্য পাঠায়। নগরীর ১১ নম্বর ওয়ার্ডের গৃহিণী রোশনা আরা বাশি জানান, ডিজিটাল বাংলাদেশের জন্য অনলাইন শপিং নারীদের জন্য আর্শিবাদ। তবে এতে সমস্যাও আছে অনেক।

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ঝর্ণা চৌধুরী বলেন, অনলাইন শপিং অনেকাংশেই ভালো। আমরা দোকানে না গিয়ে যখন তখন যেকোনো জিনিস কিনতে পারি। কিন্তু সুবিধা থেকে অসুবিধাই বেশি। অনলাইনে যে কোয়ালিটির জিনিস দেখায় প্রায়ই তা দেয় না এবং দামও বেশি নেয়। আবার অনেক সময় কুরিায়ার সার্ভিস অর্ডারের পণ্য পরিবর্তন করে ফেলে।

সিলেট সন্ধানী লাইফ ইন্সোরেন্স কোম্পানির কর্মকর্তা হেনা মমো বলেন, সারাদিন পরিবার অফিসে সময় দিয়ে বাজারে যেতে সময় পাই না। তাই আমি অনলাইন কেনাকাটা করি। অনলাইন শপিং নারীদের জন্য নিরাপদ কেনাকাটা। ইচ্ছামত শপিং করা যায়। তাই অনলাইন শপিংয়ে পুরুষদের তুলনায় নারীরাই বেশি এগিয়ে আছে। এব্যাপারে ডিজিটাল সেবা ডটকমের এরিয়া ম্যানেজার আব্দুল মোসদ্দেক তোফালে বলেন, অনলাইন শপিং আমাদের জন্য আশীর্বাদ, ঘরে বসে আমরা আমাদের পছন্দের জিনিস কিনতে পারি। কিন্তু কিছু অসাধু ব্যবসায়ীর জন্য এই বাজারের ভবিষ্যত নষ্ট হয়ে হুমকির মধ্যে পড়তে পারে। এতে সরকারের সংশ্লিষ্টদের তদারকি প্রয়োজন। ওয়েস্ট ওয়ার্ল্ড মার্কেটের মেহেদি ফ্যাশনের মালিক জাবেদ আহমদ বলেন, অনলাইন মার্কেটের কারণে তাদের বিক্রিতে কোনো প্রভাব পড়ছে না। নগরীর ৮ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা যিশু বলেন, অনলাইন মার্কেট থেকে পোশাক কিনে প্রতরণার শিকার হয়েছি। অনলাইন ভিত্তিক ব্যবসায়ী আবু বকর বলেন, আমরা যারা অনলাইনে কেনা-বেচা করি সবাই এক রকমের না। তবে মাঝে মাঝে কিছু সমস্যার কথা শুনছি। ক্রেতাদের কাছে আরো আস্থা অর্জন করতে হবে। ব্যবসায়ীদের সততা বাড়াতে হবে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সিলেটে প্রায় শতাধিক অনলাইন শপিংস্টোর রয়েছে। অনলাইন শপিংয়ে পুরুষদের তুলনায় নারীরাই বেশি এগিয়ে। অনলাইন শপিং সেন্টার বা ফেসবুক পেইজের মাধ্যমে যারা শপিং সেন্টার খুলে বসেছেন। তাদের মতে, সারাদিনে যা অর্ডার আসে তার সিংহভাগই দেন নারীরা। জিন্দাবাজার অনলাইন গাল্ধসঢ়;স গ্যালারির স্বত্বাধিকারী ফারাজান বলেন, বর্তমানে অনলাইন কেনা-কাটার ক্ষেত্রে আমরা অনেক বেশি সাড়া পাচ্ছি। সাধারণ ক্রেতারা এখন অনলাইন কেনাকাটায় বেশ আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। অবশ্যই এটা একটা সম্ভবনাময় খাত


শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin