সোমবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২১, ০৭:১০ অপরাহ্ন

সিলেটে করোনা : এলাকায় নিখোঁজ তারা

সিলেটে করোনা : এলাকায় নিখোঁজ তারা


শেয়ার বোতাম এখানে

সিলেটভিউ এর সৌজন্য: 

করোনা ভাইরাস বৈশ্বিক মহামারীর পাশাপাশি বাংলাদেশে জাতীয় দূর্যোগ হিসেবে ঘোষণা দেয়া হয়েছে। জাতীয় দূর্যোগের এই সময়ে সবচেয়ে বেশী সমস্যায় পড়েছেন শ্রমজীবী মানুষেরা। ঠিক মত কাজে যেতে পারছেন না তারা, ফলে অভাব-অনটনে দিন কাটছে তাদের।

এ অবস্থায় অসহায়-দুস্থ লোকজনের পাশে দাড়িয়েছে সরকার। সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় পাঠানো হচ্ছে বিনামূল্যে চালসহ অন্যান্য খাদ্যসামগ্রী। এছাড়া এ দুর্যোগকালীন সময়ে দেশেরসকল সংসদ সদস্য এবং অন্যান্য জনপ্রতিনিধিদের অসহায়দের পাশে দাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের পরও সিলেটের তিনটি আসনের সংসদ সদস্যদের এই আপদকালীন সময়ে জনগণের পাশে দেখা যাচ্ছে না। এমনকি আড়ালেও নেই তাদের কোন তৎপরতা। কেউ কেউ বলছেন জনগণের দুর্যোগের সময়ে তারা এখন নিখোঁজ।

এ দুর্যোগকালীন সময়ে নীরব থাকা সিলেটের সংসদ সদস্যরা হচ্ছেন সিলেট-২ (ওসমানীনগর-বিশ্বনাথ) আসনের সংসদ সদস্য মোকাব্বির খান, সিলেট-৫ (জকিগঞ্জ-কানাইঘাট) আসনের সংসদ সদস্য হাফিজ আহমদ মজুমদার ও সিলেট-৬ (গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজার) আসনের সংসদ সদস্য, সাবেক শিক্ষমন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। এদের মধ্যে নুরুল ইসলাম নাহিদ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী প্রেসিডিয়াম সদস্যও।

আমাদের বিশ্বনাথ ও ওসমানীনগর প্রতিনিধিরা জানান, করোনা ভাইরাসের ফলে সৃষ্ট দুর্যোগে প্রবাসী অধ্যুষিত এই দুই উপজেলায় সরকারের পাশাপাশি অনেক প্রবাসীরাও অসহায়-দুস্থ লোকজনের পাশে দাড়াচ্ছেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোন কার্যক্রমে দেখা যায়নি স্থানীয় সংসদ সদস্য মোকাব্বির খানকে। এতে সংসদ সদস্যের উপর ক্ষুব্ধ এলাকার লোকজন।


বিগত নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই এলাকায় কম যাওয়ার অভিযোগ ছিল সিলেট-৫ আসনের সংসদ সদস্য হাফিজ আহমদ মজুমদারের বিরুদ্ধে। এবার জাতীয় দূর্যোগের এই সময়েও তার দেখা পাননি জকিগঞ্জ ও কানাইঘাট উপজেলাবাসী। তবে তার অনুসারীদের দাবি বয়সের কারণে বের হচ্ছেন না তিনি। সবসময় এলাকার খোঁজ খবর রাখছেন।

জকিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পরিষদের চেয়ারম্যান লোকমান উদ্দিন চৌধুরী এ ব্যাপারে জানান, সিলেট-৫ আসনের সংসদ সদস্য হাফিজ আহমদ মজুমদার সবার আগে জকিগঞ্জ ও কানাইঘাট উপজেলার চিকিৎসকদের জন্য পিপিই সরবরাহ নিশ্চিত করেছেন। এখন দুই উপজেলায় মাস্ক সরবরাহ করা হবে। এছাড়াও সার্বক্ষণিক টেলিফোনে এলাকার খোঁজখবর রাখছেন। এলাকায় খাদ্যসঙ্কট নেই, দেখা দিলে অবশ্য সাংসদ মহোদয়ের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নেয়া হবে।

সিলেট-৬ আসনের সংসদ সদস্য, সাবেক শিক্ষমন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের আওতাধীন উপজেলা গোলাপগঞ্জ ও বিয়ানীবাজার। করোনা ভাইরাসে সৃষ্ট দুর্যোগের সময় এই সংসদ সদস্য একদিনের জন্যও এলাকায় আসেননি। সরকার দলের প্রেসিডিয়াম সদস্যের মত গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে থেকেও এই দু:সময়ে জনগণের পাশে না থাকায় ক্ষুব্ধ দলের নেতাকর্মীরাও।

এ ব্যপারে গোলাপগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা যুবলীগ নেতা ফজলুর রহমান জসিম বলেন, প্রশাসন যাই করুক, জনপ্রতিনিধিরা এই দূঃসময়ে জনগণের খোঁজ খবর নিবেন, সাহস দিবেন এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু দূঃখজনক আমরা আমাদের এমপি মহোদয়ের কোন খোজই পাচ্ছি না।

এসব সাংসদের ব্যাপারে অনেককে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তীর্যক মন্তব্য করতে দেখা গেছে।              নিউজ ও ছবি: সিলেট ভিউ এর সৌজন্য। 


শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin