শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ১০:৫৯ অপরাহ্ন



সিলেটে করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়লেও ঘর মুখি হচ্ছে না মানুষ : ভয়ঙ্কর রূপ নিতে পারে

সিলেটে করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়লেও ঘর মুখি হচ্ছে না মানুষ : ভয়ঙ্কর রূপ নিতে পারে


স্টাফ রিপোর্ট:

সিলেটে হঠাৎ করে বাড়তে শুরু করেছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। কিন্ত সেই সময় মানুষের বাসা-বাড়ি থাকার কথা থাকলেও টিক উলটো পথে সিলেটের মানুষ।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ঘোষিত লকডাউনের মধ্যেও বুধবার সিলেট নগরী যানজটের নগরীতে পরিণত হয়েছে।

সরকারি সিদ্ধান্তে সীমিত সময়ের জন্য দোকানপাট খোলায় বেড়েছে মানুষের ভিড়। এ অবস্থায় সিলেটের মানুষের এমন ভিড় জীবনকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দিয়েছে বলে মনে করছেন স্বাস্থ্য সংশ্লিষ্টরা।

গত (৮ মে) সিলেট সিটি করপোরেশনের নগরভবনে মেয়রের সঙ্গে ব্যবসায়ী নেতারা বৈঠক করে যৌথভাবে ঘোষণা দেন স্বাস্থ্যঝুঁকি বিবেচনায় ঈদুল ফিতরের আগে সিলেটের কোনো মার্কেট ও শপিংমল এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলবেন না।

সিটি মেয়র আরিফুল হকের সঙ্গে বৈঠকে ব্যবসায়ী নেতারা বলেছিলেন আগে জীবন, পরে ব্যবসা। করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় ১০ মে থেকে সিলেটের কোনো মার্কেট-শপিং মল ও বিপণী বিতান না খোলার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।

কিন্ত ব্যবসায়ীদের সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে নগরের হাসান মার্কেট, হকার্স মার্কেটসহ বিভিন্ন মার্কেটে দোকানপাট খুলে ব্যবসা শুরু করেছেন ব্যাবসায়ীরা।

বুধবার (১৩ মে) সিলেট নাগরীর বন্দরনবাজার ঘুরে দেখা গেছে, মানুষের উপচেপড়া ভিড় আর এলোপাতাড়ি গাড়ির সারি। হাসান মার্কেট ঘিরেই বেশি ছিল মানুষের সমাগম।

হাসান মার্কেটের পাশে হকার্স মার্কেটসহ আশপাশের সব দোকানপাট খোলা থাকায় প্রায় স্বাভাবিক সময়ের মতোই জনসমাগম দেখা গেছে। সামাজিক দূরত্ব এবং স্বাস্থ্যবিধিও মানাও হয়নি।

নগরীতে বড় বড় নামীদামি শপিংমল বন্ধ থাকলেও খোলা হচ্ছে ছোট ছোট দোকানপাট ও বিভিন্ন ফ্যাশন হাউস। এতে এসব ফ্যাশন হাউস ঘিরে কিছু কিছু জায়গায় এলোমেলো করে গাড়ি পার্কিং করায় দেখা দিয়েছে যানজট।

এদিকে, বুধবার (১৩ মে) সিলেটে বিভাগে ২ চিকিৎসক ও ২ নার্সসহ করোনাভাইরাসে আরও ৩০ জন আক্রান্ত হয়েছেন। আর সোমবার (১১ মে) নতুন আরও ৩০ জন নিয়ে সিলেট বিভাগে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছেন সর্বমোট ৩৪৬ জন। এরমধ্যে সিলেটে ৯৩ জন, সুনামগঞ্জে ৭৫ জন, হবিগঞ্জে ১২২ জন এবং মৌলভীবাজারে ৫৬ জন করোনা রোগী সনাক্ত হয়েছেন।

সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম) জেদান আল মুসা বলেন, পুলিশ সবসময় জনগণকে সচেতন করতে কাজ করছে। কিন্তু জনগণ যদি সামাজিক দূরত্ব বা স্বাস্থ্যবিধি না মানেন, তাহলে আমাদের আর কি করার আছে?

সিলেট চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি আবু তাহের মো. শোয়েব বলেন, আমি হাসান মার্কেটের ব্যবসায়ীদের দোকান খোলার বিষয়ে জিজ্ঞেস করেছিলাম। তারা বললেন নগরের হকার্স মার্কেট খোলায় তারাও দোকান খুলেছেন।

তারা মার্কেট খোলা রাখলেও আমাদের কিছু করার নেই। কারণ সরকারি নির্দেশনায় আছে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান খোলা রাখা যাবে। সেজন্য আমরা কাউকে জোর করতে পারি না।


সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin