বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ০১:২০ অপরাহ্ন


সিলেটে করোনা আক্রান্ত রোগী ও মৃত্যু দ্রুত বাড়ছে: সারাদেশের তুলনায় দ্বিগুণ

সিলেটে করোনা আক্রান্ত রোগী ও মৃত্যু দ্রুত বাড়ছে: সারাদেশের তুলনায় দ্বিগুণ


শেয়ার বোতাম এখানে

স্টাফ রিপোর্ট:
সিলেটে দ্রুত বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। আজ পর্যন্ত এ ১৫৬৪ জনে। একইসাথে সাথে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যাও। এ নিয়ে এক অজানা শঙ্কা ধাওয়া করছে সিলেটকে। দেশের গড় মৃত্যুর হারের চেয়ে সিলেটে এ হার প্রায় দ্বিগুণ। আক্রান্ত রোগী ও সাধারণ মানুষ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ না করায় এ শঙ্কা বেড়ে চলেছে। পাশাপাশি করোনামুক্ত হবার দিকেও সিলেট পিছিয়ে।

সিলেটে সর্বপ্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী সনাক্ত হয় ৫ এপ্রিল। প্রথম রোগী ছিলেন সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক ডা. মঈন উদ্দিন। সিলেট থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় পাঠানো হলে গত ১৫ এপ্রিল কুর্মিটোলা হাপসাতালে তিনি মারা যান।

আর সিলেটের শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী মারা যান গত ২৫ এপ্রিল। এরপর গত এক মাস ২০ দিনে সিলেটের একমাত্র করোনা হাসপাতাল শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন ৪০ জনেরও বেশী। শুরুর দিকে মৃত্যুর হার কম থাকলেও এখন প্রতিদিনই একাধিক মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে। করোনা আক্রান্তের সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যুও।

সিলেট স্বাস্থ্য বিভাগের হিসেব অনুযায়ী বুধবার সকাল পর্যন্ত সিলেট জেলায় করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ১ হাজার ৫৬৪ জন। আর আক্রান্তদের মধ্যে মারা গেছেন ৫৪ জন। আক্রান্ত বিবেচনায় শতকরা মৃত্যুর হার দাঁড়িয়েছে ৩ দশমিক ৬১।

এদিকে, আইইডিসিআর’র তথ্য অনুযায়ী আক্রান্ত বিবেচনায় মঙ্গলবার পর্যন্ত সারাদেশের গড় মৃত্যুর হার ছিল শতকরা ১ দশমিক ৩৪। অর্থাৎ সারাদেশের তুলনায় সিলেটের গড় মৃত্যুর হার ২ দশমিক ২৭ শতাংশ বেশি। সুস্থ্যতার দিক দিয়েও পিছিয়ে রয়েছে সিলেট জেলা। মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত সিলেট জেলায় সুস্থ হয়েছেন ১৫৪ জন করোনা রোগী।

আক্রান্ত বিবেচনায় সিলেট জেলায় সুস্থ্য হওয়ার হার শতকরা ১৩ দশমিক ১১ ভাগ। কিন্তু আইইডিসিআরের তথ্য অনুযায়ী সকাল ৮টা পর্যন্ত সারাদেশে সুস্থতার হার ছিল ৩৮ দশমিক ৩৮ শতাংশ। যা সিলেটের সুস্থতার হারের চেয়ে প্রায় তিনগুণ।

সিলেট জেলায় সুস্থ্যতার হার কম ও মৃত্যুর হার বেশি হলেও বিভাগের অন্য তিন জেলার চিত্র ভিন্ন। এখন পর্যন্ত বিভাগের বাকি তিন জেলার প্রতিটিতে মারা গেছেন ৪ জন করে। বাকি তিন জেলার মধ্যে মৃত্যুর হার সবচেয়ে কম সুনামগঞ্জে। এ পর্যন্ত ৬৪১ জন আক্রান্তের মধ্যে মারা গেছেন মাত্র ৪ জন। ফলে সুনামগঞ্জের মৃত্যুর হার শতকরা দশমিক ৬২। এছাড়া হবিগঞ্জে মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫৩ ও মৌলভীবাজারে ১ দশমিক ৮৬।

এদিকে, মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত সিলেট বিভাগের চার জেলায় করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্তের সংখ্যা ছিল ২ হাজার ৬১২ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন মোট ৫৪ জন। আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫৫৯ জন। আক্রান্ত বিবেচনায় সিলেট বিভাগের সুস্থ্যতার হার ২১ দশমিক ৪০ ও মৃত্যু হার ২ দশমিক শূণ্য ৬।

মৃত্যুর হার বৃদ্ধি প্রসঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সিলেট বিভাগীয় অফিসের সহকারী পরিচালক ডা. আনিসুর রহমান জানান, ‘সিলেটে অনেক আক্রান্ত ব্যক্তিও স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। তারা অনেক দেরি করে চিকিৎসা শুরু করছেন। হাসপাতালে আসতেও দেরি করছেন। তাই মৃত্যুর হার বেশি। অনেকে উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তির কয়েক ঘন্টার মধ্যে মারা যাচ্ছেন। মৃত্যুর পর তাদের পজেটিভ রিপোর্ট পাওয়া যাচ্ছে। মানুষ সচেতন হলে মৃত্যুর হার কমানো সম্ভব হতো।


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin