বৃহস্পতিবার, ১৭ Jun ২০২১, ০৩:৩০ অপরাহ্ন

সিলেটে জেএসসিতে ফল বিপর্যয় পাসের হার বেড়েছে পিইসিতে

সিলেটে জেএসসিতে ফল বিপর্যয় পাসের হার বেড়েছে পিইসিতে


শেয়ার বোতাম এখানে

জেএসসিতে পাসের হার ৭৯.৮২ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০৬৩ জন, গণিতে ফেল ২০,৯২৩ জন
পিইসিতে পাসের হার ৯৩.৬৮ শতাংশ, ইবতেদায়িতে ৯৫.৩৭ শতাংশ

 

আহমেদ জামিল: সিলেটে এবারো জেএসসিতে ফল বিপর্যয় হয়েছে। টানা ৩ বছর থেকে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা বাড়লেও পাল্লা দিয়ে কমছে পাসের হার ও জিপিএ-৫। এবছর সিলেট শিক্ষাবোর্ডে জেএসসিতে পাস করেছে ৭৯.৮২ শতাংশ শিক্ষার্থী। আর জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ৬৯৮ জন। গত বছর পাসের হার ছিল ৮৯.৪১ শতাংশ। আর জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৭ হাজার ৬২১। গতবছরের তুলনায় এবার জিপিএ-৫ কমেছে প্রায় ৫ গুণ। এছাড়া পাসের হার কমার সাথে পাল্লা দিয়ে কমছে শতভাগ পাস শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা। এবছর শতভাগ পাস করেছে এমন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে ৭১টি। গতবছর ছিল ১৭১ জন। এর আগের বছর ২০১৬ সালে ছিল ২৪৪টি।

 

এই ফলাফল বিপর্যয়ের পেছনে গণিত বিষয়ের যোগ্যতা সম্পন্ন শিক্ষদের অভাব বলে মনে করেন সিলেট শিক্ষাবোর্ডের চেয়ার প্রফেসর আব্দুল কুদ্দুস। তিনি বলেন, একমাত্র গণিত বিষয় খারাপ হওয়ার কারণে এই ফল বিপর্যয়। তিনি বলেন, গণিত বিষয়ে এবছর পরীক্ষার্থী ছিল ১ লক্ষ ৪৩ হাজার ৪৭১জন। এর মধ্যে পাস করেছে ১ লক্ষ ২২ হাজার ৫৪৮জন। গণিতে গড় পাসের হার ৮৫.৪২ শতাংশ। গতবছর ওই বিষয়ে পাসের হার ছিল ৯৬.০২ শতাংশ।

 

এদিকে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার (পিইসি) ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা দুটোতেই পাসের হার বেড়েছে। এবছর সিলেট জেলায় পিইসিতে পাসের হার ৯৩.৬৮ এবং ইবতেদায়িতে ৯৫.৩৭। গতবার পিইসিতে ৯১.৮৮ এবং ইবতেদায়িতে ছিল ৯০.৪১। তবে গেলবছরের তুলনায় এবার জিপিএ-৫ কমেছে। এবছর পিইসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫ হাজার ১৬৬জন। গত বছর জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৩ হাজার ৩০১শিক্ষার্থী। এবছর সিলেট জেলায় পিইসিতে অংশ নেয় মোট ৭১ হাজার ১৪৫ জন। সিলেট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. ওবায়দুল্লাহ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
সিলেট শিক্ষাবোর্ডের এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, পরীক্ষার্থীর সংখ্যা বাড়ার সাথে সাথে পাল্লা দিয়ে কমছে পাসের হার ও জিপিএ-৫। ২০১৬ সালে পাসের হার ছিল ৯৩.৩৭ শতাংশ ও জিপিএ-৫ পেয়েছিল ১০ হাজার ২৫৫জন। পরের বছর ২০১৭ সালে সব সূচক কমে পাসের হার দাড়াং ৮৯.৪১ শতাংশে। একই সাথে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা কমে দাড়ায় ৭ হাজার ৬২১ জনে। এবছরও ফের পাসের হার ও জিপিএ-৫-এ ধস নামে।
সিলেট শিক্ষাবোর্ড সূত্রে জানা গেছে, এবছর জেএসসিতে সিলেট বিভাগের চার জেলায় ১ লক্ষ ৪৯ হাজার ৯৪ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেছে। এর মধ্যে ছেলে ৬৩ হাজার ৮৩৬ জন ছেলে ও ৮৫ হাজার ২৫৮ জন মেয়ে। পাশ করে ১ লক্ষ ১৯ হাজার ৬জন। এর মধ্যে ৫০ হাজার ৭৩৩ জন ছেলে ও ৬৮ হাজার ২৭৩ জন মেয়ে। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ৬৯৮ জন। এর মধ্যে ৬৩৫ জন ছেলে ও ১০৬৩ জন মেয়ে।

 

জেলাওয়ারি হিসেবে প্রতিবারের মত এবারো শীর্ষে রয়েছে সিলেট জেলা। এ জেলায় পাসের হার ৮২.২৪ শতদাংশ। আর পিছিয়ে রয়েছে হবিগঞ্জ জেলা। এ জেলায় পাসের হার ৭৮.০৪ শতাংশ। এছাড়া সুনামগঞ্জ জেলায় পাসের হার ৭৯.৩৫ শতাংশ ও মৌলভীবাজার জেলায় পাসের হার ৭৮.২২ শতাংশ।
এবারের জেএসসি পরীক্ষায় সিলেট জেলায় পরীক্ষার্থী ছিল ৫১ হাজার ২৭৭ জন। এর মধ্যে ২২ হাজার ৪৪৭ জন ছেলে ও ২৮ হাজার ৮৩০ জন মেয়ে। পাস করেছে ৪২ হাজার ১৭০ জন। এর মধ্যে ১৮ হাজার ৬৭৩জন ছেলে ও ২৩ হাজার ৪৯৭ জন মেয়ে। ওই জেলায় জিপিএ পেয়েছে ৮৬৬ জন। এর মধ্যে ৩৩৬ জন ছেলে ও ৫০০ জন মেয়ে।

 

হবিগঞ্জ জেলায় মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২৯ হাজার ৭২৩ জন। এর মধ্যে ১২ হাজার ৪০৪জন ছেলে ও ১৭ হাজার ৩১৯ জন মেয়ে। পাস করেছে ২৩ হাজার ১৯৭ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে ৯ হাজার ৫৩০ জন ছেলে ও ১৩ হাজার ৬৬৭ জন মেয়ে। ওই জেলায় জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৯৩ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে ১২০ জন ছেলে ও ১৭৩জন মেয়ে।

 

মৌলভীবাজার জেলায় জেলায় পরীক্ষার্থী ছিল ৩৪ হাজার ৯২১জন। এর মধ্যে ১৪ হাজার ৩৩৬ জন ছেলে ও ২০ হাজার ৫৮৫জন মেয়ে। ওই জেলায় পাস করেছে ২৭ হাজার ৩১৬জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে ১১ হাজার ৩০ জন ছেলে ও ১৬ হাজার ২৮৬ জন মেয়ে। এছাড়া জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৭৬ জন। এর মধ্যে ১০৬ জন ছেলে ও ২৭০জন মেয়ে।

 

তাছাড়া সুনামগঞ্জ জেলায় পরীক্ষার্থী ছিল ৩৩ হাজার ১৭৩ জন। এর মধ্যে ১৪ হাজার ৬৪৯ জন ছেলে ও ১৮ হাজার ৫২৪ সজন মেয়ে। ওই জেলায় পাস করেছে ২৬ হাজার ৩২৩ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে ১১ হাজার ৫শ জন ছেলে ও ১৪ হাজার ৮২৩ জন মেয়ে। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৬৩ জন। এর মধ্যে ৪৩ জন ছেলে ও ১২০ জন মেয়ে।

 

সিলেট শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক কবির আহমদ সোমবার আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল প্রকাশের সময় বলেন, পরীক্ষা পদ্ধতি বদলের কারণে ফলাফলে প্রভাব পড়েছে। আগামীতে ভালো হবে বলে তিনি আশাবাদী।
এ ব্যাপারে

 

এদিকে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার (পিইসি) ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার ফলাফল সোমবার সকালে প্রকাশিত হয়েছে। সিলেটে জেলায় এবার ফলাফলের পাসের হার পিইসিতে ৯৩.৬৮ শতাংশ এবং ইবতেদায়িতে ৯৫.৩৭ শতাংশ। গতবছর পিইসিতে ৯১.৮৮ শতাংশ এবং ইবতেদায়িতে ৯০.৪১ শতাংশ।

 

এবছর সিলেট জেলায় পিইসিতে অংশ নেয় মোট ৭১ হাজার ১৪৫ জন। এদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫ হাজার ১৬৬ জন। সিলেট জেলায় ইবতেদায়িতে অংশ নেয় মোট ৬ হাজার ৪৭৯ জন। এদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৪০ জন।

 

সিলেট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. ওবায়দুল্লাহ বলেন, গতবছরের তুলনায় এবার শিক্ষার্থীরা ভালো করেছে। যদিও জিপিএ-৫ প্রাপ্তে সংখ্যা কমেছে তবে গুণগত মান বেড়েছে। আগামীতে আরো ভাল ফলাফল অর্জনের জন্য প্রচেষ্ঠা অব্যাহত থাকবে।


শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin