রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০২:২৪ অপরাহ্ন

সিলেটে বন্ধ হতে যাচ্ছে ইন্টারনেট সেবা!

সিলেটে বন্ধ হতে যাচ্ছে ইন্টারনেট সেবা!


শেয়ার বোতাম এখানে

জামিল আহমদ: সিলেটে পরীক্ষামূলকভাবে চালু হয়েছে ভূগর্ভস্থ বিদ্যুৎ লাইন। নগরী থেকে তারের জঞ্জাল সরাতে গিয়ে বিপাকে পড়ছে ইন্টারনেট গ্রাহকরা। সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সহযোগিতা না পেয়ে প্রোভাইডার প্রতিষ্ঠানগুলোর ইন্টারনেট সার্ভিস বন্ধ হওয়ার শঙ্কা রয়েছে। নগর থেকে বিদ্যুতের খুঁটি সরিয়ে ফেললে প্রায় ৩০টি ইন্টারনেট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের সেবা বন্ধ হয়ে পড়বে।

এতদিন তারা খুঁটি ব্যবহার করেই ইন্টারনেট সেবা দিচ্ছিল। ইন্টারনেট সেবা বন্ধ হলে বিপাকে পড়বে সাধারণ গ্রাহক, ব্যাংক, বিমাসহ বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান।

প্রায় ৩ বছর আগে সিলেট নগরীকে তারের জঞ্জালমুক্ত করতে ‘বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা উন্নয়ন প্রকল্প সিলেট বিভাগ, সিলেট’ নামে একটি প্রকল্পটি হাতে নেয় বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি)। নগরীর প্রায় ৭ কিলোমিটার এলাকায় ভূগর্ভস্থ বিদ্যুৎলাইন প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করতে প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয় ৫৫ কোটি টাকা। এরইমধ্যে নগরীর শাহজালাল মাজার গেইট এলাকায় পরীক্ষামূলকভাবে ভূগর্ভস্থ বিদ্যুৎলাইন চালু হয়েছে। বাকি অংশের কাজও চলছে।

এ প্রকল্পের কাজ শেষ হলে নগরী থেকে বিদ্যুৎ লাইন সরে যাবে। এতে খুঁটি ব্যবহার করে ইন্টারনেট সেবা দিতে পারবে না সার্ভিস প্রোভাইডারগুলো। বিদ্যুৎ লাইনের কাজ শুরু হলে একমাসের মধ্যে বিকল্প পথে ইন্টারনেট লাইন টানার ব্যবস্থা করতে ডিশ ব্যবসায়ী ও ইন্টারনেট প্রোভাইডারকে একটি নোটিশ দেয় সিটি করপোরেশন। কিন্তু ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার প্রতিষ্ঠানগুলো বিকল্প ব্যবস্থা পাচ্ছেন না। এনিয়ে মেয়রের সাথে বেশ কয়েকবার বৈঠক করে সুরাহা হয়নি।

পিডিবি ও সামিট গ্রুপের শর্ত হল দুটি ইন্টারনেট কোম্পানিকে তাদের পাতাল পথে লাইন টানার সুযোগ দেবে। এতে তাদেরকে কয়েকটি পয়েন্ট ব্যবহারের সুযোগ দেয়া হবে। কিন্তু এই দুটি পয়েন্ট দিয়ে ইন্টানেট ব্যবাসায়ীরা গ্রাহকের বাসা বা প্রতিষ্ঠানে পৌছাতে পারবে না। মাটির উপর দিয়েই ক্যাবল টানতে হবে তাদের।

সম্প্রতি ইন্টারনেটের তার সরাতে সিটি করপোরেশন থেকে তাগিদ দেয়া হচ্ছে। এতে খুঁটির সাথে বাধা তার সরাতে গেলেই ৩০টি ইন্টারনেট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান তাদের সার্ভিস বন্ধ করে দিতে হবে।

শনিবার এক বিজ্ঞপ্তিতে সিলেট সিটি করপোরেশন জানিয়েছে, নগরের ভেতরে ৭ কিলোমিটার এলাকায় চলমান পাতাল বিদ্যুৎ প্রকল্পের কাজ শেষ করার জন্য ওইসব এলাকায় স্থাপিত সকল বৈদ্যুতিক খুঁটি এবং ওভারহেড তারসমূহ বিপিডিবি কর্তৃক অপসারণ করা হবে। বৈদ্যুতিক খুঁটি অপসারণ করার ফলে খুঁটিসমূহে স্থাপিত ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডারদের (আইএসপি) ক্যাবলসমূহও অপসারিত হবে।

যার ফলে ইন্টারনেট সংযোগ বিঘিœত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। উক্ত বিষয়ে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি), ন্যাশনওয়াইড টেলিকমিউনিকেশন ট্রান্সমিশন নেটওয়ার্ক (এনটিটিএন) এবং আইএসপি এর সাথে কয়েক দফা সভা করে কোনো সমাধানে পৌঁছানো যায়নি। এ ব্যাপারে আইনগতভাবে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের কোনো দায়-দায়িত্ব নেই বিধায় আগামী ৭ (সাত) কর্মদিবসের মধ্যে আইএসপিগণকে এনটিটিএন কর্তৃপক্ষের সাথে সমন্বয় করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার অনুরোধ জানানো গেল।

অন্যথায় অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতির জন্য সংশ্লিষ্টরা দায়ী থাকবে
এ ব্যাপারে সিলেট ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার এসোসিয়েশনের যুগ্ম আহবায়ক দেবব্রত পাল জানান, এই প্রকল্পের শুরু থেকেই আমরা মেয়রের সাথে বৈঠক করে আসছি। তিনি প্রথমে আমাদের সুযোগ দেয়ার কথা বলেন। কিন্তু এখনও বাস্তবায়ন না করে উল্টো বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছেন। আমরা সামিটের সাথে কথা বলেছি। তারা প্রতিটি সংযোগের জন্য ৫ হাজার টাকা দাবি করছে। এতে আমাদের পক্ষে গ্রাহকদের সেবা দেয়া সম্ভব হবে না।

এ ব্যাপারে সিলেট সিটি করপোরেশনের নির্বাহী প্রকৌশলী আলী আকবর বলেন, ইন্টারনেট ব্যবসায়ীরা বিকল্প ব্যবস্থা না করলে আমাদের কিছু করার নেই। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে ক্যাবল সরাতেই হবে।



শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin