বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২:৪৬ পূর্বাহ্ন



সিলেটে বাড়ছে আত্মহত্যার প্রবণতা : ১২ ঘন্টায় ৪ লাশ উদ্ধার

সিলেটে বাড়ছে আত্মহত্যার প্রবণতা : ১২ ঘন্টায় ৪ লাশ উদ্ধার


নবীন সোহেল.
সিলেটে হঠাৎ করে ব্যপক হারে বেড়ে গেছে আত্মহত্যার প্রবণতা। গত ১২ ঘন্টায় সিলেট বিভাগে আত্মহত্যার ঘটনায় ৪টি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এরমধ্যে সিলেট জেলার বিশ্বনাথ উপজেলায় এক গৃহবধুসহ ২জনের, মহানগরীতে এক শিক্ষার্থীর ও মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে এক মধ্যবয়সি ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করা হয়। শনিবার (৯আগষ্ট) রাতের ১২ ঘন্টার মধ্যে পৃথক পৃথক স্থানে এসব ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, শনিবার গভীর রাতে সিলেটের শিবগঞ্জ এলাকায় এমসি কলেজের শিক্ষার্থী মৌমিতা দাস পপি (২৬) নামের এক যুবতী গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে। সে শিবগঞ্জের হাতিমবাগ এলাকার ১ নম্বর রোডের ৪ নম্বর বাসার বাসিন্দা এবং এমসি কলেজের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী। স্থানীয়রা জানান, শনিবার রাত সাড়ে ১২টায় মা বাবার সাথে রাতের খাবার খেয়ে নিজের রুমে ঘুমাতে যায় পপি। রোববার সকালে বাবা মা ঘুম থেকে উঠে পপিকে বেডরুমের ফ্যানের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। এরপর পরিবারের লোকজন শাহপরাণ থানায় বিষয়টি অবগত করলে দুপুর আড়াইটায় এসআই লিপটনের নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করে।

এ ব্যাপারে শাহপরাণ থানার ওসি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, ঘটনার খবর পাওয়ার সাথে সাথে আমার পুলিশ বাসা থেকে লাশ উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেলের মর্গে ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যায়। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।

একইদিন শনিবার রাতে লুৎফা বেগম (২৮) নামের এক সন্তানের জননীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে বিশ্বনাথ থানা পুলিশ। স্বামীর বসত ঘরের তীরের সাথে গলায় ওড়না পেছানো অবস্থায় (ঝুলন্ত) তার লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনি বিশ্বনাথ উপজেলার খাজাঞ্চি ইউনিয়নের এনায়েতপুর (তবলপুর) গ্রামের লাল মিয়ার স্ত্রী। লাশ উদ্ধারের পর ময়না তদন্তের জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।
বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন থানার এসআই দেবাশীষ শর্ম্মা। এ বিষয়ে লুৎফার ভাই মো: আবু সাহেদ বিশ্বনাথ থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করেছেন, (মামলা নং ১৮)।

এদিকে, বিশ্বনাথ উপজেলায় শনিবার রাত ৮টারদিকে তার ৩ ছেলের সঙ্গে কলহের জেরে তিনি (কীটনাশক) বিষপান করেন রামপাশা ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামের ৬০বছর বয়সী বৃদ্ধ আনোয়ার আলী। নিজ বসত ঘরে বিষপানের পর রোববার ভোররাত ৪টারদিকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এরপর পুলিশ লাশ নিহতের উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় ইউপি সদস্য জামাল আহমদ।

অপরদিকে, শনিবার (৮ জুলাই) দিবাগত রাতে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে বিকুল তন্ত বায় (৪০) নামের একজনের লাশ উদ্ধার করেছে থানাপুলিশ। তিনি উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের বৌলাছড়া চা বাগানের শ্রমিক। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। এই ঝগড়ার জের ধরে রাতের কোন এক সময় স্ত্রীকে দা দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে স্বামী গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।

নিহতদের বড় মেয়ে সুভা তন্ত বায় (১২) জানায়, রাতে সে পাশের ঘরে ঘুমিয়ে ছিল। রোববার সকালে ঘুম থেকে উঠে মা বাবার ঘরে ডাকাডাকি করে দরজা না খোলায় ধাক্কা দিয়ে দরজা খুলে মায়ের গলা কাটা দেহ ও পাশে বাবার ঝুলন্ত দেহ দেখে। সুভা জানায়, তার বাবা মার মধ্যে কোন ঝগড়া বিবাদ ছিল না। সুভার দেবা তন্ত রায় নামে ৬ বছরের এক ভাই ও দেবী তন্ত বায় নামে ২ বছরের এক বোন রয়েছে। বাবা মায়ের এই মর্মান্তি মৃত্যুতে এই ৩ শিশু শোকে বিহবল হয়ে পড়েছে। এদিকে এটি স্বামী স্ত্রীকে হত্যা করে স্বামীর আত্মহত্যা নাকি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড- এনিয়ে এলাকায় গুঞ্জন দেখা দিয়েছে।

এ ব্যপারে শ্রীমঙ্গল থানার ওসি আব্দুছ ছালেক বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জোড়া লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত রক্তমাখা দা’ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়না তদন্ত রিপোর্ট আসার পর এই জোড়া হত্যাকান্ডের প্রকৃত কারণ জানা যাবে তিনি জানান।

হঠাৎ করে আত্মহননের ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন সমাজ বিশ্লেষক ও মনোবিজ্ঞানীরা। তারা বলছেন, যখন কোনো ব্যক্তির জ্ঞান-বুদ্ধি, বিবেক ও উপলব্ধি-অনুধাবন শক্তি লোপ পায়, নিজেকে অসহায়-ভরসাহীন মনে করে, তখনই ধর্ম-কর্ম ভুলে মানুষ আত্মহত্যা করে বসে। প্রচন্ড মনস্তাত্ত্বিক চাপও আত্মহত্যার পেছনে কাজ করে। আবার জাগতিক দুঃখ-কষ্ট, লাঞ্ছনা ও অপমান থেকে আত্মরক্ষা করতে দুর্বল চিত্তের ব্যক্তিরা আত্মহননের মধ্য দিয়ে মুক্তি খোঁজে। তারা আত্মহত্যার প্রবণতা কমাতে কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রমের মাধ্যমে জনসচেতনতা বাড়াতে সচেতনতামূলক কার্যক্রম হাতে নেয়া খুবই প্রয়োজন বলে মনে করছেন।

অপরদিকে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ‘প্রিভেনটিং সুইসাইড : অ্যা সোর্স ফর মিডিয়া প্রফেশনালস ২০১৭’-এ বলা হয়, প্রতি বছর বিশ্বে ১০লাখ মানুষ আত্মহত্যা করে। প্রতি ৪০ সেকেন্ডে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে একটি। আশঙ্কা করা হচ্ছে, ২০২০ সালে এ সংখ্যা প্রতি ২০ সেকেন্ডে একজনে পৌঁছবে। একই প্রকাশনায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংখ্যা আরও বলছে, গত ৪৫ বছরে আত্মহত্যার ঘটনা ৬০ শতাংশ বেড়েছে। বিশ্বে বর্তমানে ১৫ থেকে ৪৪ বছর বয়সী মানুষের মৃত্যুর প্রধান তিনটি কারণের একটি হল আত্মহত্যা।


সমস্ত পুরানো খবর




themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin