রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ১০:৩৭ অপরাহ্ন



সিলেটে ৪৩ জনের মনোনয়নত্র বাতিল

সিলেটে ৪৩ জনের মনোনয়নত্র বাতিল


আহমেদ জামিল: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট বিভাগের ১৯ আসনে প্রথম ধাপেই ছিটকে পড়লেন ৪৩ জন প্রার্থী। মোট ভোটারের ১ শতাংশের স্বাক্ষরে গড়মিল, হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকা, জনপ্রতিনিধির পদ থেকে পদত্যাগ না করা ও ঋণখেলাপীসহ বিভিন্ন কারণে তাদের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। বাদ পড়াদের মধ্যে বেশিরভাগই রয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী। তাছাড়া বিএনপি ও জাপার প্রার্থীর নামও রয়েছে।

 

রোববার সকাল থেকে সিলেট সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জের রিটার্ণিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসকগণ পৃথকভাবে দাখিলকৃত মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই করেন। মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়া প্রার্থীদের মধ্যে সিলেট জেলায় রয়েছেন ১৫ জন, সুনামগঞ্জ জেলায় রয়েছেন ১১ জন, মৌলভীবাজার জেলায় ৫ জন এবং হবিগঞ্জে রয়েছেন ১২ জন। এদিকে বাছাইয়ে বাদ পড়া তালিকায় আওয়ামী লীগের দলীয় কোনো প্রার্থী নেই। ৪৩জনের মধ্যে রয়েছেন বিএনপির ৫জন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ১জন, জাতীয় পার্টির ৫জন, স্বতন্ত্র প্রার্থী ১৭ জন ও অন্যান্য দলগুলোর ১৫জন প্রার্থী। সিলেট বিভাগের ১৯টি আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন ১৮৪ জন।

 

তবে মনোনয়নপত্র বাতিলকৃত প্রার্থীরা তার আদেশের কপিসহ আজ থেকে তিনদিনের মধ্যে নির্বাচন কমিশন বরাবরে আপীল করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা। নির্বাচন কমিশন আগামী ৬ থেকে ৮ ডিসেম্বরের মধ্যে আপীলের শুনানী শেষে সিদ্ধান্ত দেবে।

 

সিলেট : একাদশ জতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেটের ৬টি আসনে মনোনয়ন জমা দেয়া ৬৬জন প্রার্থীর মধ্যে ১৫জন প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বাতিল করা হয়েছে। রোববার সকালে বাছাইকালে তাঁদের মনোনয়নপত্রে ক্রটি থাকার কারণে বাতিল করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক কাজি এমদাদুল হক।

 

সিলেট-১ আসনে ১১ জন প্রার্থীর মধ্যে ১জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। বাংলাদেশ মুসলিম লীগের প্রার্থী আনোয়ার উদ্দিন বোরহানাবাদীর স্বাক্ষর না থাকায় মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয় । সিলেট-২ আসনে ১২ জন প্রার্থীর মধ্যে ৩জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। এরমধ্যে ভোটারদের স্বাক্ষর মিল না থাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী এনামুল হক সর্দার, স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুর রব ও মুহিবুর রহমানের প্রার্থীতা বাতিল করা হয়। অন্য ৯টি মনোনয়নপত্র বৈধ হিসেবে গণ্য হয়।

 

সিলেট-৩ আসনে ১৩ প্রার্থীর মধ্যে ৩জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। বৈধ ঘোষনা করা হয় ১০ জনকে। মূল ফরমে স্বাক্ষর না থাকায় বিএনপির আব্দুল কাইয়ুমের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। ভোটারদের স্বাক্ষর না থাকায় সতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট আব্দুল ওদুদ, জুনায়েদ মোহাম্মদ মিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

সিলেট-৪ আসনে ৭ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়। জাতীয় পার্টির প্রার্থী ইসমাইল আলী আশিক দলীয় মনোনয়নের প্রত্যায়নপত্র জমা দিতে না পারায় ছিটকে পড়েন।
সিলেট-৫ আসনে ১২ প্রার্থীর ৫ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়। এরমধ্যে ৩২ হাজার ৮৩২ টাকা বিদ্যু’ বিল খেলাপির দায়ে ইসলামী ঐক্যজোটের এম এ মতিন চৌধুরীর, ঋণ ও বিল খেলাপীর দায়ে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নুরুল আমিনের, হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় স্বতন্ত্র ফয়জুল মুনীর চৌধুরীর, ভোটার সাক্ষর ও ৪৩ হাজার ৪১৮ টাকা বিল খেলাপির দায়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী আহমদ আল ওয়ালীর এবং হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় জাতীয় পার্টির সেলিম উদ্দিনের মনোনয়ন বাতিল করা হয়।

 

সিলেট-৬ আসনে ১০জন প্রার্থীর মধ্যে ৮ জনের মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করা হয়। ভোটার তথ্য ভুল থাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী জাহাঙ্গীর হোসেন মিয়ার ও জাতীয় পার্টির মনোনয়নের পাশাপাশি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে একই আসনে মনোনয়ন দাখিল করা এবং স্বাক্ষর না থাকায় বিরোধী দলীয় হুইপ জাপার কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব সেলিম উদ্দিনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়।
বাছাই শেষে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা বলেন, বাতিলকৃত প্রার্থীরা তাঁর আদেশের কপিসহ আপীল করতে পারবেন। আগামি ৯ ডিসেম্বর প্রত্যাহারের শেষ দিন এবং ১০ ডিসেম্বর প্রতিক বরাদ্দ দেওয়া হবে বলেও নিশ্চিত করেন তিনি।

 

মৌলভীবাজার : মৌলভীবাজারের ৪টি আসনে ২৮ জনের দাখিলকৃত মনোনয়নপত্র বাছাইকালে ৫ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল করেছেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা। রোববার সকাল থেকে জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মোঃ তোফায়েল ইসলাম মনোয়ন যাচাই বাছাই শেষে এ ঘোষণা দেন।

 

মৌলভীবাজার-১ (বড়লেখা-জুড়ি) আসনে আয়কর রিটার্ন দাখিল না করায় বিএনপির সাবেক প্রতিমন্ত্রী এবাদুর রহমান চৌধুরী এবং মোট ভোটারের ১ শতাংশের স্বাক্ষরে গড়মিলসহ স্বাক্ষর জালের কারণে জামায়াতের স্বতন্ত্র প্রার্থী আমিনুল ইসলমের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। এই আসনে ৬ জন প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিয়েছিলেন।

 

মৌলভীবাজার-২ (কুলাউড়া) আসনে ঋণ খেলাপির অভিযোগে স্বতন্ত্র প্রার্থী মহিবুল কাদির চৌধুরী’র মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। এই আসনে মোট ৮জন প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিয়েছিলেন।
মৌলভীবাজার-৩ (সদর ও রাজনগর) আসনে মামলার তথ্য গোপনের অভিযোগে বিএনএফএর আশা বিশ্বাস এবং তথ্যে গড়মিল থাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ মুছব্বিরের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। এই আসনে ৯ জন প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিয়েছিলেন।

 

সুনামগঞ্জ : সুনামগঞ্জের পাঁচটি আসনে ৫২ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন; এর মধ্যে যাচাই-বাছাইয়ের পর ১১ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়াদের মধ্যে রয়েছেন, সুনামগঞ্জ-১ আসনে (তাহিরপুর-জামালগঞ্জ-ধর্মপাশা) বিএনপির প্রার্থী কামরুজ্জামান কামরুল। উপজেলা চেয়ারম্যান পদে বহাল থাকায় তার মনোনয়নপত্র বাতিল কর হয়েছে। এছাড়া এই আসন থেকে এ কে এম ওহীদুল ইসলাম কবির (জাসদ) ও আমান উল্লাহ আমানের (জাকের পার্টি) মনোনয়ন পত্র বাতিল করা হয়েছে। সুনামগঞ্জ-২ আসনে (দিরাই ও শাল্লা) রুহুল আমীনের (জাতীয় পার্টি) মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

 

সুনামগঞ্জ-৩ আসনে (দক্ষিণ সুনামগঞ্জ ও জগন্নাথপুর) সৈয়দ শাহ মুবশ্বির আলী (বাংলাদেশ মুসলিম লীগ), আবদুল ছত্তার (স্বতন্ত্র), রফিকুল ইসলাম খসরু (স্বতন্ত্র) ও আশরাফুক হক সুমনের (স্বতন্ত্র) মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। সুনামগঞ্জ-৪ আসনে (সদর ও বিশ্বম্ভরপুর) ঋণ খেলাপির দায়ে দেওয়ান জয়নুল জাকেরীন (বিএনপি) ও মো. রাজু আহমদের মনোনয়নপত্র (স্বতন্ত্র) বাতিল করা হয়েছে।

 

সুনামগঞ্জ-৫ আসনে (ছাতক ও দোয়ারাবাজার) ভোটারদের স্বাক্ষরে গরমিল থাকায় রনজিৎ কুমার দের (স্বতন্ত্র) মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ মুরাদ উদ্দিন হাওলাদার বলেন, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল না করা, ঋণখেলাপি, প্রদত্ত তথ্যে গড়মিলসহ নানা ত্রুটির কারণে এসব প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। বাতিলদের আপিল করার সুযোগ রয়েছে।

 

হবিগঞ্জ : হবিগঞ্জের ৪টি আসনে মনোনয়নপত্র জমাদানকারী ৩৮জন প্রার্থীর মধ্যে ১২ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক মাহমুদুল কবীর মুরাদ। রোববার সকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে যাচাই বাছাই কার্যক্রম সম্পন্ন হয়। অসম্পূর্ণ হলফনামা ও স্বাক্ষর, ঋণখেলাপী, দাখিলকৃত ১ শতাংশ ভোটারের স্বাক্ষর জাল থাকার কারণে তাদের মনোনয়ন পত্র বাতিল ঘোষণা করা হয় বলে জানা গেছে।

 

হবিগঞ্জ-১ (নবীগঞ্জ ও বাহুবল) আসনে নির্বাচনে ১২ প্রার্থীর মধ্যে ৬ জনে প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বাতিল করা হয়েছে। সিটি ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড ডিভিশনের ঋণ খেলাপি (বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে পাঠানো ঋণখেলাপীর তালিকা) হওয়ায় ঐক্যফ্রন্টের (গণফোরাম) প্রার্থী সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়ার ছেলে ড. রেজা কিবরিয়ার মনোনয়ন পত্র বাতিল করা হয়। হলফনামা অসম্পূর্ণ ও স্বাক্ষর না থাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান সংরক্ষিত নারী সদস্য আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে অধ্যাপক মো. আব্দুল হান্নান মনোনয়ন পত্রে দাখিলকৃত ১ শতাংশ সমর্থকের স্বাক্ষর সরেজমিন যাচাইকালে একজনের স্বাক্ষর সঠিক না পাওয়ায় তা বাতিল হয়। অন্যদিকে হলফনামায় মামলা সংক্রান্ত তথ্য গোপনের কারণে বাংলাদেশ ইসলামী আন্দোলন এর প্রার্থী আবু হানিফা আহমদ হোসেন এবং হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের প্রার্থী জুবায়ের আহমেদ ও ইসলামী ফ্রন্ট বাংলাদেশের প্রার্থী মোহাম্মদ বদরুর রেজার মনোনয়ন পত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়।

 

হবিগঞ্জ-২ (বানিয়াচং ও আজমিরিগঞ্জ) আসনে নির্বাচনে ১০ প্রার্থীর মধ্যে শুধুমাত্র বিএনপি প্রার্থী মো. জাকির হোসেনের মনোনয়ন পত্রের সঙ্গে দাখিলকৃত হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় তা বাতিল ঘোষণা করা হয়।

 

হবিগঞ্জ-৩ (হবিগঞ্জ সদর-লাখাই) আসনে নির্বাচনে আগ্রহী ৯ প্রার্থীর মধ্যে ২ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। ইসলামী ঐক্যজোট প্রার্থী মাওলানা আতাউর রহমানের হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় এবং ন্যাশনাল পিপলস পার্টি এনপিপি মনোনীত প্রার্থী মো. আব্দুল কাদিরের মনোনয়ন পত্রে দলীয় প্রার্থীতার চিঠি না থাকায় তা বাতিল ঘোষণা করা হয়।
হবিগঞ্জ-৪ (মাধবপুর-চুনারুঘাট) আসনে নির্বাচনে আগ্রহী ৭ জন প্রার্থীর মধ্যে মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে ৩ জনের। জাকের পার্টির প্রার্থী মো. আনছারুল হকের মনোনয়ন পত্রের সাথে দাখিলকৃত হলফনামায় মামলা সংক্রান্ত তথ্য গোপনের কারণে তা বাতিল করা হয়। সেই সাথে হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট প্রার্থী মৌলানা মোহাম্মদ ছোলাইমান খান রাব্বানী এবং ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর প্রার্থী মোহাম্মদ আব্দুল মমিনের মনোনয়ন পত্র বাতিল করেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা।


সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin