সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:০১ পূর্বাহ্ন


সিলেট জুড়ে কঠোর নিরাপত্তা বলয়

সিলেট জুড়ে কঠোর নিরাপত্তা বলয়


শেয়ার বোতাম এখানে

সুলতান সুমন: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সব ধরণের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন। ভোটের দিন সুষ্ট ও নিরপেক্ষভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য সিলেটজুড়ে গড়ে তোলা হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা বলয়। আর যে কোন ধরণের নাশকতা মূলক কর্মকান্ড প্রতিহত করতে নেয়া হয়েছে তৎপর রয়েছে প্রশাসন। সকল নির্বাচনী এলাকায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, বিজিবি, র‌্যাব-পুলিশ ছাড়াও ভোটের মাঠে সাদা পোশাকে রাখা হয়েছে বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার কঠোর নজরদারি। তাছাড়া সিলেট জেলা ও মহানগরে কড়া পুলিশি নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদারে পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে। নির্বাচনের দিন সিলেট মহানগর ও জেলার সবকটি কেন্দ্রে পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন থাকবে বলে জানিয়েছে সিলেট জেলা ও মহানগর পুলিশ সূত্র। সূত্র আরো জানায়, সিলেট নগরীতে গতকাল থেকে নামানো হয়েছে অতিরিক্ত ৩ শ’ ৫০ জন পুলিশ সদস্যকে। আর ভোটের দিন নগরীর বিভিন্ন ভোট কেন্দ্রতে থাকবেন ২ হাজার ২ শ’ পুলিশ।
তাছাড়া নির্বাচনকে সামনে রেখে শুক্রবার সিলেটে নামানো হয়েছে পুলিশের স্টাইকিং ফোর্স। এর পাশাপাশি সিলেটের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে মোড়ে বসানো হয়েছে নিরাপত্তা চৌকি। এসকল চৌকিতে গতকাল থেকে চলছে তল্লাশি। পুলিশের পাশাপাশি বিভিন্ন স্থানে যানবাহনে তল্লাশি চালিয়েছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও বিজিবি সদস্যরাও।
এবারের নির্বাচনে স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসাবে দায়িত্বে পালন করছে সেনাবহিনী। সিলেট জেলায় নিরপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত আছেন ৭০০ সেনা সদস্য। গত সোমবার থেকে সিলেটে দায়িত্ব পালন করছেন তারা। গতকাল শুক্রবার নির্বাচনী প্রচারণা না থাকলেও সকাল থেকে নগরীর বিভিন্ন স্থানে টহল দিতে দেখা গেছে সেনাবাহিনীর সদস্যদের। দুপুর ১২টার দিকে উপশহর এলাকায় চেক পোস্ট বসিয়ে সন্দেহজনক বিভিন্ন গাড়িতে তল্লাশী করেন তারা। একই সাথে সিলেটের ৬টি আসনে দায়িত্বরত সেনা সদস্যরা নিরাপত্তা টহলে আছেন বলেও জানা গেছে।
সূত্র জানায়, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হচ্ছে পুরো সিলেট নগরীকে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে কয়েক স্থরের নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হয়েছে বলে জানা গেছে। পুলিশের পাশাপাশি মহানগরীতে টহল দিচ্ছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। মোতায়েন রয়েছে সেনা ও বিজিবি সদস্যরা। গতকাল সকাল থেকে নগরীর প্রবেশ পথ সহ মোড়ে মোড়ে বসানো হয়েছে অস্থায়ী চেকপোস্ট। বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে মোবাইল চেকপোস্ট বসিয়ে যানবাহনে ব্যাপক তল্লাশি করে যাচ্ছে র‌্যাব ও পুলিশ। পাশাপাশি টহল দিচ্ছে সেনাবাহিনী। নির্বাচন উপলক্ষে সিলেটে মহানগরী সহ পুরো সিলেটে শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষা, জনস্বার্থ, জনশৃঙ্খলা ও সাধারণ জনগণের চলাচল নির্বিঘ্ন করতে যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছেন।
আজ দিবাগত মধ্যরাত থেকে ৩০ ডিসেম্বর মধ্যরাত ১২টা পর্যন্ত বেবিট্যাক্সি, অটোরিকশা, ইজিবাইক, ট্যাক্সিক্যাব, মাইক্রোবাস, জীপ, পিক-আপ, কার, বাস, ট্রাক, টেম্পো এবং স্থানীয় পর্যায়ের বিভিন্ন যন্ত্রচালিত যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। এছাড়া আজ মধ্যরাত থেকে পহেলা জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত সিলেটে মোটরসাইকেল চলাচলের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।
উল্লেখ্য রিটার্নিং অফিসারের অনুমতি সাপেক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী, তাদের নির্বাচনী এজেন্ট, পরিচয় পত্রধারী দেশী, বিদেশী পর্যবেক্ষকদের ক্ষেত্রে এ নিষেধাজ্ঞা শিথিলযোগ্য। নির্বাচনের সংবাদ সংগ্রহের কাজে নিয়োজিত পরিচয় পত্রধারী দেশী, বিদেশী সাংবাদিক, নির্বাচন কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তা-কর্মচারী, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য, নির্বাচনের বৈধ পরিদর্শক , এ্যাম্বুলেন্স, ফায়ার সার্ভিস, বিদ্যুৎ, গ্যাস, ডাক ও টেলিযোগাযোগের ক্ষেত্রে এ নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য হবে না।
সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম) জেদান আল-মুসা জানান, প্রতিটি কেন্দ্রের বাইরে এক বা একাধিক গুরুত্বপূর্ণ ওয়ার্ডে মোবাইল পেট্রোল টিমের পাশাপাশি ৪/৫টি ওয়ার্ডে একটি করে স্ট্রাইকিং ফোর্স থাকবে। এর বাইরেও সদরদপ্তরে রিজার্ভ স্ট্রাইকিং ফোর্স প্রস্তুত থাকবে এবং প্রতিটি কেন্দ্রে সাদা পোশাকে নজরদারি করবে পুলিশ। এছাড়াও মহানগর পুলিশের আওতাধীন ২৯৩টি কেন্দ্রের মধ্যে ২০২টি গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রেও বিশেষ নজরদারি রাখা হবে। তিনি আরো জানান, গতকাল শুক্রবার সিলেট নগরীতে নামানো হয়েছে অতিরিক্ত ৩ শ’ ৫০ জন পুলিশ সদস্যকে। আর ভোটের দিন নগরীর বিভিন্ন ভোট কেন্দ্রতে থাকবেন ২ হাজার ২ শ’ জন পুলিশ।
সিলেট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার শামসুল ইসলাম সরদার দৈনিক শুভ প্রতিদিনকে জানিয়েছেন, সিলেট জেলায় ৪ স্থরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।, প্রতিটি কেন্দ্রে পুলিশ মোতায়েন ছাড়াও প্রতিটি ইউনিয়নে একটি করে মোবাইল পেট্রোল থাকবে এবং প্রতিটি থানায় একটি স্ট্রাইকিং ফোর্স রিজার্ভ থাকবে। এছাড়াও জেলা পর্যায়ে ২টি বিশেষ স্ট্রাইকিং ফোর্স এবং প্রতিটি কেন্দ্রে সাদা পোশাকে পুলিশ নিরাপত্তা থাকবে বলে জানিয়েছেন তিনি।


শেয়ার বোতাম এখানে





LoveYouZannath
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin