শনিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২১, ০৫:৪৪ অপরাহ্ন

সিলেট-সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের প্রশস্তকরণ কাজে ধীরগতি

সিলেট-সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের প্রশস্তকরণ কাজে ধীরগতি


শেয়ার বোতাম এখানে

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
সিলেট-সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের প্রশস্তকরণ কাজ ধীরগতিতে চলছে। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে কাজ শুরু হয়ে ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর মাসে শেষ হওয়ার কথা থাকলেও কাজের ধীরগতি ও অবহেলায় তা সঠিক সময়ে শেষ না হওয়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে। এছাড়াও রাস্তায় পুরোনো খানা-খন্দের সঙ্গে যোগ হয়েছে নির্মাণ কাজের জন্য খোঁড়া নতুন গর্ত। ফলে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কে ছোট-বড় দুঘর্টনা ও যানজট এখন নিত্য দিনের সঙ্গী হয়ে দাঁড়িয়েছে।
সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের সুনামগঞ্জ অফিস সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালে সিলেট-সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের প্রশস্তকরণ প্রকল্পটি অনুমোদন ও এর জন্য অর্থ বরাদ্দ দেয়া হয়। পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নানসহ জেলার সকল সংসদ সদস্যের জোরালো সুপারিশের পর ১৪০.৮৯ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়। প্রকল্প অনুযায়ী সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কের ৬৪ কিলোমিটার উভয় দিকে ৩ ফুট করে মোট ৬ ফুট প্রশস্তকরণের উদ্যোগ নেয়া হয়। এ সময় সড়ক ও জনপথ বিভাগ ১৪০.৮৯ কোটি টাকা বরাদ্দে দরপত্র আহ্বান করে।

সরেজমিনে সিলেট-সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কে গিয়ে দেখা যায়, ঢিলেঢালাভাবে রাস্তায় কাজ করছেন শ্রমিকরা। রাস্তা প্রশস্ত করা হলেও তা ৩ ফুটের চেয়ে কম। তাছাড়া ৩ ফুট প্রশস্তকরণের পর রাস্তার পাশে অতিরিক্ত জায়গা রাখার কথা থাকলেও তা রাখা হয়েছে দায়সারাভাবে। অনেক স্থানে রাখা হয়নি। সংকীর্ণ রাস্তা হওয়ায় এবং কাজের ধীর গতিতে আতঙ্কে রয়েছেন গাড়ির মালিক থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ।

সুনামগঞ্জ-সিলেট আঞ্চলিক সড়কের পাশের জানিগাঁও এলাকার বাসিন্দা শাহীন চৌধুরী বলেন, কাজ যে গতিতে করার কথা সে মতো হচ্ছে না। কাজের মানও খুব নিম্ন। কাজে যে সকল মেটেরিয়াল ব্যবহার করা হচ্ছে তা বেশিদিন স্থায়ী হবে না। শ্রমিকরা একদিন আসেনতো আরেকদিন আসেন না।
স্থানীয় বাসিন্দা সুব্রত দাশ বলেন, কাজের মতো কাজ হলো না। যে যার খুশি মতো কাজ করে। সরকারের টাকার হরিলুট চলে। কাজের যে গতি তাতে আগামী দুই বছরেও এইটা শেষ হবে না। আমরা ভয়ে থাকি। রাস্তা ছোট তার মধ্যে কাজ চলায় যেকোনো সময় বড় দুঘর্টনা ঘটতে পারে।


জেলা বাস মিনিবাস মালিক গ্রুপের মহাসচিব জুয়েল মিয়া বলেন, কাজ যে হচ্ছে তা আমরা বুঝতে পারছি না। ২০২০ সালে শুনেছি কাজ শেষ হবে। কিন্তু আমারতো মনে হয় ২০২০ সাল নয় ২২ সালেও শেষ হবে না। তাছাড়া রাস্তা ছোট হওয়ায় আমরা আতঙ্কে থাকি। কাজের ধীরগতির কারণে দুঘর্টনার শিকার হচ্ছি আমরা।

নিরাপদ সড়ক চাই সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি মোশাহিদ আলম মুহিত বলেন, রাস্তার কাজ সঠিক মতো হচ্ছে না। ৬৪ কিলোমিটার রাস্তায় দুই দিকে ৩ ফুট করে বাড়ানোর কথা থাকলেও অনেক জায়গায় দুই ফুট আড়াই ফুট করে বাড়ানো হচ্ছে। তাছাড়া রাস্তার পাশে যে জায়গা রাখা হচ্ছে তা খাড়া। যা বৃষ্টির পানিতে মিশে যাবে। কাজের ধীরগতির কারণে সড়কে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে, সঙ্গে ছোট-বড় দুঘর্টনা ঘটছে। আমরা চাইবো কাজ যেনো সঠিক সময়ে শেষ হয়।
সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগ সুনামগঞ্জের সহকারী প্রকৌশলী অমিয় চক্রবর্তী বলেন, কাজ ঠিকমতো হলেও বিটুমিনের কাজ এখনো ১ শতাংশ শেষ হয়নি। আমরা বর্তমানে রাস্তা খোঁড়া এবং প্রশস্তকরণের কাজ করছি। তাছাড়া ৩ ফুট প্রশস্তকরণের জায়গায় অনেকে দুই ফুট, দেড় ফুট দেয়ার কথা বলতেছে কারণ হল রাস্তার মাপতো এক না, রাস্তার অনেক জায়গায় মাপ বেশি। যেখানে বেশি সেখানে একটু কমিয়ে দেয়া হচ্ছে। এ রকম করে সিলেট-সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের প্রশস্ত হবে সাড়ে ২৪ ফুট।

সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগ সুনামগঞ্জের নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম বলেন, সিলেট-সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের কাজে ধীরগতি নেই। কাজ যথাযথ গতিতেই চলছে। দ্রুত কাজ শেষ করার জন্য যাবতীয় কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছে।


শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin