মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১, ০৫:৩২ অপরাহ্ন

সিলেট-২: বিকল্প প্রার্থী চায় না বিএনপি

সিলেট-২: বিকল্প প্রার্থী চায় না বিএনপি


শেয়ার বোতাম এখানে

আব্বাস হোসেন ইমরান, বিশ্বনাথ
উচ্চ আদালতের আদেশে সিলেট-২ আসনে ২০দলীয় জোট মনোনিত-জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট সমর্থিত প্রার্থী, নিখোঁজ বিএনপি নেতা এম. ইলিয়াস আলীর সহধর্মিনী ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তাহসিনা রুশদীর লুনার প্রার্থীতা স্থগিত থাকলেও এ আসনে আপাতত বিকল্প কোনো প্রার্থীর চিন্তা করছে না বিএনপি। তার প্রার্থীতা স্থগিতের পরে জোটগত কারণে আলোচনায় আসা গণফোরামের সংসদ সদস্য প্রার্থী মোকাব্বির খান ও খেলাফত মজলিসের সংসদ সদস্য প্রার্থী মুনতাছির আলীকে পাত্তাই দিচ্ছে না দলটির নেতাকর্মী-সমর্থকেরা। তারা শেষ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে চান তাদের প্রার্থী লুনা ও ধানের শীষ প্রতিকের। তাদের বুকভরা আশা, আইনী জটিলতা কাটিয়ে মাঠে ফিরবেন তিনি এবং বিপুল ভোটের ব্যবধানে হবেন বিজয়ী।

 

এ নিয়ে মাঠ-ঘাট থেকে শুরু করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমও সরগরম করে রেখেছেন নেতাকর্মী-সমর্থকেরা। তাদের দাবী সিলেট-২ আসন বিএনপির ঘাটি। এখানে বিএনপি প্রার্থীর বিকল্প কিছু চিন্তাও করা যায় না। তারা যেকোনোভাবেই এখানে তাদের প্রার্থীকে ধানের শীষ প্রতিকে দেখতে চান।

 

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিশ্বনাথ ও ওসমানী নগর উপজেলা নিয়ে গঠিত সিলেট-২ আসনে ২০ দলীয় জোট ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে প্রার্থী করা হয় এই আসনের সাবেক সংসদ সদস্য, নিখোঁজ বিএনপি নেতা এম. ইলিয়াস আলীর সহধর্মিনী, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তাহসিনা রুশদীর লুনাকে। এর আগেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্টার পদের চাকুরী ছাড়েন তিনি। নামেন নির্বাচনী মাঠে। মনোনয়ন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে ধানের শীষ প্রতিক পেয়ে নির্বাচনী মাঠ-ঘাট চষে বেড়াতে শুরু করেন এই হেভিওয়েট প্রার্থী। আড়মোড়া ভেঙ্গে জেগে উঠে দুই উপজেলার বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মী-সমর্থকেরা। চাঙ্গাভাব বিরাজ করে দলীয় ঘরানার ভোটারদের মধ্যে। কিন্তু হঠাৎ করে ছন্দপতন ঘটে প্রচারণায়। গত ১৩ ডিসেম্বর বৃহষ্পতিবার সকালে একই আসনের জাতীয়পার্টি মনোনিত-মহাজোট সমর্থিত প্রার্থী, জাতীয়পার্টির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও বর্তমান সংসদ সদস্য ইয়াহ্ইয়া চৌধুরীর এক রিটের শুনানী শেষে তার প্রার্থীতা স্থগিত করে আদেশ দেন বিচারপতি জেবিএম হাসানের নেতৃত্বাধীন উচ্চ আদালতের একটি দ্বৈত বেঞ্চ ।


 

রিটে ইয়াহ্ইয়া চৌধুরী উল্লেখ করেন, আরপিও অনুযায়ী সরকারি চাকুরী থেকে অবসর নেয়ার তিন বছর পর সংসদ সদস্য পদে প্রার্থী হওয়ার বিধান থাকলেও তাহসিনা রুশদীর লুনা একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মাত্র ৬ মাস আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্টার পদ থেকে অব্যাহতি নেন। তিনি গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ লঙ্ঘন করে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন।

 

স্থগিতাদেশের আদেশ সংবাদপত্রের মাধ্যমে জানতে পেরে অইদিন রাতেই ঢাকা ছুটে যান লুনা। ৫দিন পর মঙ্গলবার উচ্চ আদালতের দেয়া আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল করেন তিনি। আবেদনের শুনানি নিয়ে অইদিন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন ৭ বিচারপতির আপিল বেঞ্চ ‘নো অর্ডার’ আদেশ দেন। এই আদেশের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে রিভিউ করেন তিনি। রবিবার এর রায় প্রদান করা হবে বলে দলীয় সূত্র জানিয়েছে।
কথা হলে বিশ্বনাথ উপজেলা বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিন বলেন, আমরা শেষ পর্যন্ত আমাদের প্রার্থী ও ধানের শীষের অপেক্ষা করব। ইনশাআল্লাহ, আইনী প্রক্রিয়া শেষে সিলেট-২ আসনে ভোটের মাঠে ফিরবে বিএনপি।

 

ওসমানী নগর উপজেলা বিএনপির সভাপতি সৈয়দ মোতাহির আলী বলেন, আপাতত আমরা বিকল্প কিছু ভাবছি না। রিভিউ’র রায়ের পরে দলীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক আমরা কাজ করব।

 

জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ বলেন, আমরা আশা করছি, রিভিউ’র রায় আমাদের পক্ষেই আসবে। যদি কোনো কারণে সেটার ব্যত্যয় ঘটে, তাহলে সিলেট-২ আসনে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করবে কেন্দ্র।


শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin