বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১১:২৮ পূর্বাহ্ন



সিলেট-৪ সেলিম-জামানে দ্বিধাদ্বন্দ্ব

সিলেট-৪ সেলিম-জামানে দ্বিধাদ্বন্দ্ব


কোম্পানীগঞ্জ সংবাদদাতা: সিলেট-৪ (গোয়াইনঘাট, জৈন্তাপুর ও কোম্পানীগঞ্জ) আসনে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কে হচ্ছেন বিএনপির চুড়ান্ত প্রার্থী তা নিয়ে চলছে নানা অন্তহীন জল্পনা। এ আসনে বিএনপির প্রার্থী নিয়ে ধোঁয়াশা কাটেনি। ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগ এ আসনে একক প্রার্থী ঘোষনা করলেও এখনও প্রার্থী নিয়ে দ্বিধাদ্বন্ধে রয়েছে বিএনপি। এ আসনে সাবেক সংসদ সদস্য দিলদার হোসেন সেলিম এবং সিলেট জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক এড. সামসুজ্জামান জামানকে প্রাথমিক মনোনয়ন দিয়েছে বিএনপি। শেষ পর্যন্ত কে হচ্ছেন চুড়ান্ত প্রার্থী তা নিয়ে নেতাকর্মীদের কৌত‚হলের শেষ নেই। সিলেট-৪ আসনকে বলা হয় খনিজ সম্পদ পাথরের আসন। তাইতো বলা চলে ভোটের বাক্সে পাথরের প্রভাব। তাই এ আসনে প্রার্থী মনোনয়নের ক্ষেত্রেও বিশেষ গুরুত্ব দেয় রাজনৈতিক দলগুলো।

 

এবার এ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সহ- সভাপতি ইমরান আহমদ। কিন্তু বিএনপি এখনও এ আসনে প্রার্থী চুড়ান্ত করতে পারেনি। এ আসনে প্রার্থী হতে দল থেকে প্রাথমিক মনোনয়ন পেয়ে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন দিলদার হোসেন সেলিম ও এড. সামসুজ্জামান জামান।

 

যেখানে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ তাদের প্রার্থী নিয়ে কৌশলী প্রচার শুরু করেছে সেখানে বিএনপির মনোনয়ন পাওয়া এই দুই নেতাকে নিয়ে বিপাকে পড়েছেন দলটির নেতাকর্মীরা। মনোনয়নপত্র চুড়ান্ত না হওয়ার কারণে এ আসনে বিএনপির কোনো শীর্ষ নেতাই দুই প্রার্থীর কারোর সঙ্গে নির্বাচনের মাঠে নামছেন না। শেষ পর্যন্ত কে হচ্ছেন বিএনপির চুড়ান্ত প্রার্থী তা জানার জন্য অপেক্ষায় থাকতে হবে ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

 

এ বিষয়ে সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামিম বলেন, দুই প্রার্থীকে কেন্দ্র করে নেতাকর্মীদের মধ্যে কোনো গ্র“পিং নেই। দুই একদিনের মধ্যেই প্রার্থী চুড়ান্ত করা হবে। তিনি বলেন, ব্যক্তির চেয়ে ধানের শীষ প্রতীকটাই গুরুত্বপূর্ণ।

 

উলে­্যখ, গোয়াইনঘাট, জৈন্তাপুর ও কোম্পানীগঞ্জ এ তিন উপজেলা নিয়ে (সিলেট-৪) জাতীয় সংসদের ২৩২ নং আসন। গোয়াইনঘাট উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন, জৈন্তাপুর উপজেলার ৬টি ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা ৬টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত এ আসনটি। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসনের মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৮২ হাজার ৪১২জন। পুরুষ ভোটার ১লাখ ৯৬হাজার ৫শ’ ৩৭জন এবং নারী ভোটার ১লাখ ৮৫হাজার ৮শ’ ৭৫জন। তš§ধ্যে গোয়াইনঘাট উপজেলায় ১ লাখ ৭৯ হাজার ২শ’ ৮০জন। জেন্তাপুর উপজেলায় ১ লাখ ৬হাজার ৬শ’ ১৩জন। এবং কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় ৯৬ হাজার ৫শ’ ১৯জন।

 

আসন্ন একদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসনে মোট ৮জন মনোনয়ন দাখিল করেছেন। তারা হলেন, সিলেট জেলা অওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ও বর্তমান সাংসদ ইমরান আহমদ,বিএনপির সাবেক সাংসদ দিলদার হোসেন সেলিম ও এড. সামসুজ্জামান জামান, জাতীয় পার্টির প্রবাসী নেতা এটি ইউ তাজ রহমান ও এম ইসমাঈল আলী আশিক, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও সিলেট জেলা জমিয়তের সাধারণ সম্পাদক শায়খুল হাদিস আতাউর রহমান, বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কাস পার্টির মনোজ কুমার সেন এবং বাংলাদেশ ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের মো. জিল্লুর রহমান।

 

আওয়ামী লীগের প্রার্থী ইমরান আহমদ এ আসনে বিগত ৫ বারের নির্বাচিত এমপি। দলটির পক্ষ থেকে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে এবারও তাকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে তিনি নিজ নির্বাচনী এলাকায় ভোটার ও দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে গণসংযোগ ও সভা সমাবেশ চালিয়ে যাচ্ছেন। সার্বিক অবস্থায় সিলেট-৪ আসনে শেষ পর্যন্ত বিএনপির চুড়ান্ত প্রার্থী কে হচ্ছেন তা নিয়ে সংশ্লিষ্ট্য দলীয় নেতাকর্মী- সমর্থক, ভোটার ও রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মধ্যে চলছে নানা হিসাব নিকাশ। ফলে চুড়ান্ত ভোটের লড়াইয়ের পূর্বে এ আসনে জমে উঠেছে উভয়ের মনোনয়ন লড়াই।


সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin