শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১০:১৭ পূর্বাহ্ন



স্বামীকে বিদায় জানাতে এসে এয়ারপোর্টে ‘অসুস্থ’ আসমা কামরানের আহাজারি : দোয়া কামনা

স্বামীকে বিদায় জানাতে এসে এয়ারপোর্টে ‘অসুস্থ’ আসমা কামরানের আহাজারি : দোয়া কামনা


মবরুর আহমদ সাজু :
নিজেও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। চিকিৎসা নিচ্ছেন বাসায় থেকে। এখনও তিনি ঝুঁকিমুক্ত নন। কিন্তু প্রাণপ্রিয় স্বামীর শরীরের অবস্থা সংকটাপন্ন। তা এতটাই আশঙ্কার যে, তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য দ্রুত এয়ার এম্বুলেন্সযোগে সিলেট থেকে ঢাকায় নিয়ে যেতে হচ্ছে! এ অবস্থায় নিজের শরীর-স্বাস্থের ঝুঁকির কথা মাথায় রাখেননি আসমা কামরান।

ছুটে এসেছেন হাসপাতালে। সেখান থেকে পরম মমতায় ছিলেন স্বামীর পাশে! বিদায় জানাতে সাথে গিয়েছেন বিমানবন্দরেও। সারা পথ কাঁদছিলেন ফুপিয়ে ফুপিয়ে! যখন তার জীবন সাথীকে এম্বুলেন্স থেকে স্ট্রেচারে করে এয়ার এম্বুলেন্সে নিয়ে তোলা হচ্ছিল, আর শান্ত থাকতে পারলেন না! কেঁদে উঠলেন হাউমাউ করে।

আহাজারিতে চারদিক স্তব্ধ হয়ে উঠলো। তাকে কাছে এসে স্বান্তনা দিচ্ছেন যারা, তারাও চোখের পানি ধরে রাখতে পারলেন না! ফুপিয়ে কেঁদে উঠলেন তার সাথে! আসমা কামরান আহাজারি করছিলেন আর বারবার বলছিলেন, আমার স্বামীর জন্য আপনারা দোয়া করবেন। আল্লাহ যেন আপনাদের কামরানকে আবার আপনাদের মাঝে ফিরিয়ে আনেন। আমার জীবনের বিনিময়ে হলেও যেন আল্লাহ পাক তাকে ফিরিয়ে দেন!

তিনি এসময় সিলেটবাসীর কাছে তার স্বামীর সুস্থ্যতার জন্য দোয়া কামনা করেন। বলেন, কামরান আপনাদের। তিনি যেন আপনাদের জন্যই আবার ফিরে আসেন।

করোনা আক্রান্ত সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের স্বাস্থ্যের অবনতি হলে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় বিমান বাহিনীর বিশেষ এয়ার এম্বুলেন্স যোগে সিলেট থেকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে তাকে সিলেট শামসুদ্দীন হাসপাতাল থেকে আকাশপথে রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল সিএমএইচে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। কামরানের সাথে রয়েছেন ছোটভাই এনাম আহমেদ, কামরানের ছেলে আরমান আহমেদ শিপলু এবং একজন চিকিৎসক।

হাসপাতালে ও বিমান বন্দরে প্রিয় নেতাকে বিদায় জানাতে সিলেট আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতারা ছাড়াও বিপুল সংখ্যক মানুষ উপস্থিত ছিলেন। বিদায়কালে পরিবারের সদস্যদের মাঝে স্ত্রী আসমা কামরান, পুত্রবধূ উপস্থিত ছিলেন। নিজে করোনা আক্রান্ত হওয়ায় আসমা কামরানকে স্বামীর সাথে ঢাকায় যেতে দেয়া হয়নি।

বিমান বন্দরে উপস্থিত আ’লীগের আরেক নেতা মরহুম ইফতেখার হোসেন শামীমের স্ত্রীর নাজনীন শামীম কান্নাজড়িত কণ্ঠে কামরানের জন্য সবার কাছে দোয়া চান। তিনি বলেন, কয়েকদিন আগে কামরান ভাই হার্টে রিং লাগিয়েছেন। তার কিডনিতেও সমস্যা রয়েছে। তার জন্য সত্যি অনেক কষ্ট লাগছে।

বিমানবন্দর সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। বিমানবন্দরে তাকে সিলেট থেকে বিদায় জানানোর সময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড,মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, মহানগরীর সাবেক সাধারন সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ,সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক,অ্যাড,নাসির উদ্দিন খানসহ আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, রোববার সকালে কামরানের পরিবারের পক্ষ থেকে তার শারীরিক অবস্থার অবনতির বিষয়টি ফোনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনকে জানান। তিনি বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অবগত করলে তিনি কামরানের দ্রুত এয়ার অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা করে তাকে সিএমএইচে নিয়ে আসতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশনা দেন।

বিকাল পৌনে ৬টার দিকে শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতাল থেকে কামরানকে কার্ডিয়াক অ্যাম্বুলেন্সযোগে ওসমানী বিমানবন্দরে নিয়ে যাওয়া হয়।

গত শুক্রবার রাতে কামরানের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর শনিবার সকালে তিনি শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে ভর্তি হন।

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইউনুছুর রহমান বলেন, করোনার উপসর্গ ছাড়াও বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের ডায়বেটিসসহ নানা শারীরিক সমস্যা রয়েছে। সিলেটে অভিজ্ঞ চিকিৎসকদের সমন্বয়ে মেডিকেল বোর্ড গঠন করে সিলেটে তার চিকিৎসা চলছিল।


সমস্ত পুরানো খবর




themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin