বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২১, ১১:৪২ অপরাহ্ন

স্যাটালাইট শহর গড়তে চান মাহমুদ-উস-সামাদ

স্যাটালাইট শহর গড়তে চান মাহমুদ-উস-সামাদ


শেয়ার বোতাম এখানে

দক্ষিণ সুরমাকে স্যাটেলাইট শহর, ফেঞ্চুগঞ্জকে শিল্প নগরী ও বালাগঞ্জকে কৃষিভিত্তিক উন্নত শহর গড়ার পরিকল্পনার কথা জানালেন সিলেট-৩ (দক্ষিণ সুরমা-ফেঞ্চুগঞ্জ- বালাগঞ্জ) আসনের নব-নির্বাচিত সংসদ সদস্য মাহমুদ-উস-সামাদ চৌধুরী কয়েস। বুধবার সন্ধ্যায় মুঠোফোনে আলাপচারিতায় দৈনিক শুভ প্রতিদিনকে তিনি এসব কথা বলেন। বিপুল ভোটে নির্বাচিত করার জন্য নির্বাচনী এলাকার সকল জনসাধারণ, ভোটার, কর্মি-সমর্থক ও আওয়ামী লীগের নেতাদের প্রতি কৃতজ্ঞা জানান তিনি। এবং আজ বৃহস্পতিবার শপথ গ্রহণ করে নির্বাচনী এলাকার মানুষের সেবক হিসেবে কাজ করার সবার কাছে দোয়া প্রার্থনা করেছেন মাহমুদ-উস-সামাদ চৌধুরী।
নির্বাচনী এলাকা নিয়ে আগামী পরিকল্পনা নিয়ে মাহমুদ-উস-সামাদ চৌধুরী বলেন, আগামী দিনে নির্বাচনী এলাকার তিনটি উপজেলায়ই সকল অবকাঠামো নির্মাণ, বেকার সমস্যা দুরিকরণ, শিক্ষার মান উন্নয়নেও কাজ করবেন তিনি। আর দক্ষিণ সুরমায় বিভাগীয় হেড কোয়ার্টার নির্মান, স্যাটেলাইট শহরে উন্নতিকরণ সহ প্রত্যেকটি ক্ষেত্রে উন্নয়নের পরিকল্পনা রয়েছে। বালাগঞ্জকে কৃষিভিত্তিক উন্নত শহরে রুপান্তর, প্রতিটি রাস্তাঘাট সংস্কার। ঐতিহ্যবাহী শীতলপাটি নিয়েও তাঁর ব্যাপক স্বপ্ন রয়েছে তাঁর। ফেঞ্চুগঞ্জকে শিল্পনগরী হিসেবে গড়ে তোলাসহ উপজেলার প্রত্যেকটি ক্ষেত্রে কাজ করার পরিকল্পনা রয়েছে তাঁর। এবং তা বাস্তবায়নও হবে। আরও বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প চলমান রয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।
২০০৯ সাল থেকে ২০১৮ সাল তথা বিগত বছরের উন্নয়ন নিয়ে মাহমুদ-উস-সামাদ চৌধুরী বলেন, তিন উপজেলার ১৮টি ইউনিয়নে তার মাধ্যমে প্রায় ৮হাজার ৩০০ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ হয়েছে। এর মধ্যে শাহজালাল সারকারখানা স্থাপনেই ব্যয়ে হয়েছে ৫ হাজার ৭শ’ ৯ কোটি টাকা। তার সংসদীয় এলাকায় উল্লেখযোগ্য উন্নয়নের মধ্যে ৫ হাজার ৭০৯ কোটি টাকা ব্যয়ে শাহজালাল সার কারখানা স্থাপন, রাস্তাঘাট সংস্কার, স্কুল কলেজ নির্মাণ ও অবকাঠামোগত উন্নয়ন করা হয়েছে।
হ্যাট্রিক বিজয়ী সাংসদ মাহমুদ-উস-সামাদ চৌধুরী বলেন, ১৯৬৮ সাল থেকেই আওয়ামী রাজনীতির সাথে তাঁর সংশ্লিষ্টতা। ঐ বছর তিনি ফেঞ্চুগেঞ্জের এনজিএফ হাইস্কুল ছাত্রলীগের সহ সভাপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন। ছাত্রলীগ কর্মী হিসাবে ১৯৬৯ সালে আইয়ুব বিরোধী আন্দোলন ও ৭০ সালে নৌকার পক্ষে সক্রিয় ছিলেন। ১৯৭২ সালে আমি যুক্তরাজ্য চলে যান। ১৯৮৬ সালে দেশে ফিরে এসে নিজ এলাকায় আওয়ামী লীগকে সংগঠিত করতে কাজ করেন। ১৯৮৯ সাল থেকে শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদের মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।


শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin