বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ০৫:১৭ অপরাহ্ন

হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে দুদকের হানা, ডাক্তারা বিশ্রামে

হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে দুদকের হানা, ডাক্তারা বিশ্রামে


শেয়ার বোতাম এখানে

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি  
হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে হানা দিয়েছে বাংলাদেশ দূর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এ সময় হাসপাতালের বিভিন্ন অব্যবস্থাপনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন দুদক কর্মকর্তারা। একই সাথে ৭দিনের মধ্যে সকল সমস্যা সমাধান করার নির্দেশ প্রদান করা হয়।
আজ রবিবার (২৬ মে) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত এ অভিযান পরিচালনা করেন বাংলাদেশ দূর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) হবিগঞ্জে এর সহকারি পরিচালক মোহাম্মদ এরশাদ। এ সময় তার সাথে দুদকের আরো দুইজন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।
জানা যায়, রবিবার সকালে সিভিল পোষাকে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে অবস্থান নেন বাংলাদেশ দূর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) হবিগঞ্জ কার্যালয়ের তিনজনের একটি দল। এ সময় দুদক কর্মকর্তারা হাসপাতালে কোন ডাক্তার পাননি। তারা দেখেন সেখানে রোগীদের চিকিৎসা দিচ্ছেন ইন্টার্নি চিকিৎসকরা। সেখানে ঘন্টাখানেক অবস্থান করার পর কোন ডাক্তারের দেখা না পেয়ে ফিরে যান দুদক কর্মকর্তারা। কিছুক্ষণ পর নিজেদের পোষাক পরে আবারো তাঁরা (দুদক কর্মকর্তা) সদর হাসপাতালে অভিযান চালান। এ সময়ও ইমার্জেন্সি বিভাগে কোন ডাক্তার ছিলেন না।
ইমার্জেন্সি বিভাগে দায়িত্বপ্রাপ্তরা জানান, ডাক্তার তার নিজ রুমে অবস্থান করছেন। পরে সেখানে গিয়ে ডাক্তার মিঠুর রায়কে পান দুদক কর্মকর্তারা।
এ ব্যাপারে ডাক্তার মিঠুন রায় দুদক কর্মকর্তাদের জানান, তিনি সেখানে কয়েকজন রোগীর ছাড়পত্র লিখছিলেন।
পরে দুদক টিম সদর হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ড ঘুরে অব্যবস্থাপনা দেখতে পান। এছাড়া সরকারি ঔষধ বিতরণে বিভিন্ন অনিয়ম পান তারা। একই সাথে বিভিন্ন সংকটও দুদক কর্মকর্তাদের নজরে আসে। এ ব্যাপারে সকল সমস্যা সমাধান করতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে ৭ দিনের সময় দিয়ে যান দুদক।
এ ব্যাপারে বাংলাদেশ দূর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) হবিগঞ্জ কার্যালয়ের সহকারি পরিচালক মোহাম্মদ এরশাদ বলেন, “সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত আমরা হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ছিলাম। সেখানে বিভিন্ন অনিময় পাওয়া গেছে। দ্রুত সকল সমস্যা সমাধানের জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আমরা কিছুদিন পর আবারো হাসপাতাল পরির্দশনে আসবো।”


শেয়ার বোতাম এখানে

সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin