বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ০৩:০৭ পূর্বাহ্ন



সকল মানুষকে পর করে করোনা যুদ্ধাদের আপন হলেন নার্সরা

সকল মানুষকে পর করে করোনা যুদ্ধাদের আপন হলেন নার্সরা


ফয়সল আহমদ মুন্না:

সব মানুষেরই একজন না একজন  আপন মানুষ থাকে। আর সেই মানুষ যখন পর হয়ে যায় তখন কি মনে হয়। দেশসহ বিশ্বে করোনা আতঙ্কিত, করোনা যুদ্ধাদের পাশে প্রিয় মানুষরা থাকতে পারছে না। তখন নার্সরাই হয়ে উঠছেন আপনজন। করোনাযুদ্ধের সম্মুখসারির যোদ্ধা এখন নার্সরা। এই মহামারির সময়ে ডাক্তারের পরামর্শে অসুস্থ রোগীর সেবা দিয়ে জাচ্ছেন তারা।

করোনার ছোবল বিশ্বেজুড়ে, নিস্তব্ধ হয়ে যাওয়া বিশ্ব এক সময়কার ব্যস্ত নগরীর বর্তমান স্তব্ধ জীবনে কেবলই মৃত্যুর কোলাহল। মানবজাতি লড়ছে এক মরণযুদ্ধের বিরুদ্ধে। করোনার ভয়াল জীবনকে বাজি ধরে একটা স্টেথোসকোপ, থার্মোমিটার আর সিরিঞ্জ হাতে সামনাসামনি যুদ্ধ করছেন দেশের হাজার হাজার নার্স।

যুগ যুগ থেকে নার্সরা মানবজাতির সেবায় নিবেদিত প্রাণ। আজ যখন কভিড-১৯ এর কারণে বিপন্ন মানবপ্রাণ, তখনও চিকিৎসকসহ অন্য স্বাস্থ্যকর্মীদের সঙ্গে নার্সরা সংগ্রাম করছেন সম্মুখসারির যোদ্ধা হিসেবেই। সম্পূর্ণ জেনে বুঝেই তারা নিজেদের প্রায় মৃত্যুর মুখেই সপে দিচ্ছেন। সব মানুষ যখন ঘরে বন্দি, তখন নার্সরা কোন কিছুর তোয়াক্কা না করেই দিন রাত করোনায় রোগীর পাশে থেকে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে প্রতিদিনই আক্রান্ত ও মৃত্যুর রেকর্ড হচ্ছে। দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ১২ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। আর সিলেট বিভাগে ৩ শত ছাড়িয়েছে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। আজ মঙ্গলবার (১২ মে) পর্যন্ত সিলেট বিভাগে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ শত জনেরও বেশি। এর মধ্যে হাসপাতালে ভর্তি আছেন ১২০ জন করোনা রোগী।

সেবা দিতে গিয়ে দেশে প্রায় দেড় হাজার চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মী আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে নার্সের সংখ্যা বেশি। এরই মধ্যে সিলেট শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে করোনা রোগীদের সেবায় কর্মরত ৩ জন নার্স করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

অজানা এই ভাইরাসটি বৈশ্বিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনাকেই তছনছ করে দিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে আজ মঙ্গলবার (১২ মে) পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক নার্স দিবস।

এবারের প্রতিপাদ্য: বিশ্ববাসীর স্বাস্থ্যের জন্য নার্স গুরুত্বপূর্ণ। আধুনিক নার্সিংয়ের প্রবর্তক ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেলের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তার জন্মদিন ১২ মে প্রতি বছর আন্তর্জাতিক নার্স দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে।

দিবসটিতে সিলেটসহ সারাদেশের নার্সদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বাংলাদেশ নার্সেস এসোসিয়েশন (বিএনএ) সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শাখার সভাপতি শামীমা নাসরিন ও সাধারণ সম্পাদক ইসরাইল আলী সাদেক।

এক শুভেচ্ছা বার্তায় নেতৃবৃন্দ বলেন, মানুষের ধর্ম কি? মুসলিম, হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান এই পরিচয়ে একেকজন হয়তো একের ধর্মের কথা বলবেন। কিন্তু কর্তব্যর বিচারে মানবজীবনের সবচেয়ে বড় ধর্ম বোধহয় ‘সেবা’। মানুষের সেবা। আর এই ধর্মের অগ্রণী সৈনিক হলেন নার্সগণ।

আজ ১২ মে ১৮২০ সালের এই দিনেই জন্মগ্রহণ করেছিলেন মহিয়সী নারী ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল। আধুনিক নার্সিংয়ের প্রবর্তক এই নারীর সম্মানার্থেই প্রতি বছর ১২ মে ‘আন্তর্জাতিক নার্সিং ডে (বিশ্ব নার্স দিবস)’ পালন করা হয়।

এবার করোনাকালে দিবসটি অনেক বেশি তাৎপর্যপূর্ণ হয়ে উঠেছে। করোনা আক্রান্ত রোগীর সেবা নিশ্চিত করতে গিয়ে এরই মধ্যে দেশে কয়েকশত নার্স আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের অনেকে সুস্থ হয়ে আবার করোনা রোগীদের সেবায় নিয়োজিত হয়েছেন। কেউ কেউ কাজে ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। বিভিন্ন সীমাবদ্ধতার পরও রোগীর পাশে থেকে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন নার্সরা।

এসবের মধ্যেই এবার দিবসটির আগে একটি সুখবর পেয়েছেন নার্সরা। করোনা দুর্যোগ মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী, ৫ হাজার ৫৪ জন নার্সকে নিয়োগ দিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। আগামীকাল বুধবার তাদের পদায়নকৃত কর্মস্থলে যোগদান করতে বলা হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক নতুন নিয়োগ পাওয়া নার্সদের অভিনন্দন জানিয়ে তাদের প্রতি করোনা আক্রান্ত রোগীদের সেবায় কাঙ্ক্ষিত ভূমিকা পালনের আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি জানান, আন্তর্জাতিক নার্স দিবসের আগে প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তে একসঙ্গে পাঁচ হাজারের বেশি নার্স নিয়োগ পেলেন। তাদের জন্য এটি একটি বড় সুখবর। আশা করি, করোনার এই দুর্যোগ মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তের প্রতি সম্মান জানাতে তারাও আক্রান্ত রোগীদের সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করবেন।

সিলেটে কর্মরত ফারিয়া আক্তার নামের এক নার্স বলেন, রোগীদের সংস্পর্শে যাওয়া ছাড়া নার্সদের সেবা দেওয়ার কোনো উপায় নেই। রোগীরা যখন আসেন তখন প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী ওষুধ, ইনজেকশনসহ নানান কারণে নার্সদেরই রোগীদের কাছে যেতে হয়। ফলে করোনাভাইরাস সংক্রমণের বড় ঝুঁকির সৃষ্টি হয়।

বাংলাদেশ নার্সেস এসোসিয়েশন সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শাখার সাধারণ সম্পাদক ইসরাইল আলী সাদেক বলেন, আমাদের নার্সদের প্রথমে থাকার একটু অসুবিধা ছিল। আমাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মহোদয়ের প্রচেষ্টায় সিলেটে আমরা হোটেল পেয়েছি। হোটেল ঠিক করে দেওয়াতে আইসোলেশন বা কোয়ারেন্টাইনে থাকা নার্সদেরই থাকতে সুবিধা হচ্ছে।

তিনি আরাও বলেন, সিলেট শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে করোনা রোগীদের সেবায় কর্মরত ৩ জন নার্স করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। আশা করি কিছু দিনের বিতর সুস্থ হয়ে উঠবেন তারা।

বাংলাদেশ নার্সেস এসোসিয়েশন সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শাখার সভাপতি শামীমা নাসরিন বলেন, রোগী হাসপাতালে এলে তাকে রিসিভ করা থেকে শুরু করে ওষুধ দেওয়া, স্যালাইন দেওয়া, ইনজেকশন দিতে হয়। এসব কারণে আমাদের রোগীর শ্বাস-প্রশ্বাসের আওতার মধ্যে বা ক্লোজ কন্টাক্টে যেতে হয়। ফলে করোনাভাইরাস সংক্রমণের বড় ঝুঁকির সৃষ্টি হয়। তার পরও আমরা রোগীর সেবা করতে চাই।

তিনি বলেন, আমি ও আমার সাধারন সম্পাদক আমরা সিলেটের সকল নার্সেদের খুজ খবর নিচ্ছি, যাতে আমাদের কোন নার্সের সমস্যা না হয়।


সমস্ত পুরানো খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  



themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 Shubhoprotidin